Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

নিখোঁজ ছাত্রের মৃতদেহ কুয়োয়

নিজস্ব সংবাদদাতা
আসানসোল ২৭ এপ্রিল ২০১৬ ০১:৫৪
থানায় বিক্ষোভ। নিজস্ব চিত্র।

থানায় বিক্ষোভ। নিজস্ব চিত্র।

সপ্তাহখানেক নিখোঁজ থাকার পরে পরিত্যক্ত কুয়ো থেকে উদ্ধার হল এক কিশোরের দেহ। মঙ্গলবার হিরাপুরের শ্যামডিহির এই ঘটনায় খুনের অভিযোগ করেছে ষষ্ঠ শ্রেণির ওই ছাত্রের পরিবার। দোষীকে গ্রেফতারের দাবিতে এ দিন হিরাপুর থানায় বিক্ষোভ দেখান এলাকার বাসিন্দারা। পুলিশ জানায়, ওই কিশোরকে খুন করা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক জনকে আটক করে জেরা করা হচ্ছে।

হিরাপুরের করিমডাঙায় একটি ভাড়াবাড়িতে স্ত্রী ও ছেলেমেয়েকে নিয়ে থাকতেন দেবাশিস বাগদি। তিনি পেশায় রাজমিস্ত্রি। আদতে মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা দেবাশিসবাবু কয়েক বছর আগে কর্মসূত্রে বার্নপুরে আসেন। তাঁর ছেলে শিবনাথ বাগদি (১১) বার্নপুরেরই একটি স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ত। ১৯ এপ্রিল বিকেলে বাড়ি থেকে বেরনোর পরে সে আর ফেরেনি। রাত পর্যন্ত তার কোনও খোঁজ না পেয়ে পরিবারের তরফে হিরাপুর থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার দুপুরে বনগ্রাম লাগোয়া শ্যামডিহি এলাকার বাসিন্দারা ওই পরিত্যক্ত কুয়োয় কিশোরের দেহ ভাসতে দেখেন। খবর পেয়ে পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে। ওই ছাত্রের বাবা দেবাশিসবাবু আগে নিখোঁজ ডায়েরি করে রাখায় পুলিশ প্রথমে তাঁকে খবর দেয়। তিনি গিয়ে দেহ শনাক্ত করেন। প্রাথমিক তদন্তের পরে পুলিশের অনুমান, ওই ছাত্রকে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে। আসানসোল জেলা হাসপাতালে ময়না-তদন্ত হয়েছে।

Advertisement

ওই ছাত্রের পরিবারের অভিযোগ, প্রতিবেশী এক যুবকের সঙ্গে বেশ কিছু দিন আগে তাদের বিবাদ হয়েছিল। ওই যুবক তখন হুমকি দিয়েছিল। ওই যুবকই তাঁদের ছেলেকে খুন করেছে বলে সন্দেহ দেবাশিসবাবুদের। মঙ্গলবার দুপুরে দেহ উদ্ধারের পরেই এলাকা অশান্ত হয়ে ওঠে। ওই প্রতিবেশী যুবককে গ্রেফতারের দাবিতে হিরাপুর থানায় বিক্ষোভ শুরু করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। পুলিস ওই যুবককে আটক করে।

কমিশনারেটের এডিসিপি (পশ্চিম) বিশ্বজিৎ মাহাতা জানান, পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। মৃতের পরিবারের নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে ওই যুবককে জেরা করার জন্য আটক করা হয়েছে। তবে কী কারণে এই খুন, তা এখনও পরিষ্কার নয়। পুলিশের ধারণা, ব্যক্তিগত আক্রোশ বা পারিবারিক বিবাদের জেরে এই খুন হয়ে থাকতে পারে।

আরও পড়ুন

Advertisement