Advertisement
০৪ ডিসেম্বর ২০২২
Kalyani

CID: এমসে পুত্রবধূর চাকরি, বিধায়কের বাড়িতে সিআইডি

যোগ্যতা না থাকা সত্ত্বেও প্রভাবশালীদের সুপারিশে এমসে কাজের বরাতপ্রাপ্ত সংস্থায় অনেকের চাকরি পাওযার অভিযোগ রয়েছে।

ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৪ জুলাই ২০২২ ০৫:৫৫
Share: Save:

কল্যাণী এমসে চাকরিতে নিয়োগ সংক্রান্ত দুর্নীতির তদন্তে নেমে চাকদহের বিজেপি বিধায়ক বঙ্কিম ঘোষের পুত্রবধূকে জিজ্ঞাসাবাদ করল সিআইডি। বুধবার সিআইডি-র একটি দল নদিয়ায় হরিণঘাটার জাগুলিতে বঙ্কিমবাবুর বাড়িতে যায়। আগামী শুক্রবার বাঁকুড়ার বিজেপি বিধায়ক নীলাদ্রিশেখর দানার বাড়িতে গিয়ে তাঁর মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যও নোটিস পাঠানো হয়েছে।

Advertisement

যোগ্যতা না থাকা সত্ত্বেও প্রভাবশালীদের সুপারিশে এমসে কাজের বরাতপ্রাপ্ত সংস্থায় অনেকের চাকরি পাওযার অভিযোগ রয়েছে। প্রাথমিক ভাবে গোয়েন্দারা জানতে পেরেছেন, একটি সংস্থার মাধ্যমে নিয়োগ পাওয়া প্রায় দুশো জনের অর্ধেকই ঢুকেছেন প্রভাবশালীদের সুপারিশে। তার মধ্যে বঙ্কিমবাবুর পুত্রবধূ অনসূয়া ঘোষ ধর এবং নীলাদ্রিবাবুর মেয়ে মৈত্রী দানাও রয়েছেন বলে অভিযোগ।

এ দিন দুপুর সওয়া ১২টা নাগাদ সিআইডি-র চার জনের একটি দল বঙ্কিমবাবুর বাড়িতে যান। সেখানে তাঁরা প্রায় দেড় ঘন্টা ছিলেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর সিআইডি জানতে পেরেছে, গত এপ্রিলে কল্যাণী এমসে ডেটা এন্ট্রি অপারেটরের কাজে যোগ দিলেও অনসুয়া নিয়োগপত্র পান গত ১০ জুন। নিয়োগপত্র না পাওয়া সত্ত্বেও কার নির্দেশে তিনি কাজে যোগ দিলেন, সেই প্রশ্নের অবশ্য সদুত্তর মেলেনি। গত জানুয়ারিতে ওই পদে নিয়োগের জন্য যে পরীক্ষা দিয়েছিলেন অনসূয়া। কিন্তু অনেকের চেয়ে কম নম্বর পেয়েও তিনি কী ভাবে চাকরি পেলেন, সেই প্রশ্নেরও উত্তর মেলেনি। এক তদন্তকারী অফিসার জানান, অনসূয়াকে ফের জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে। তিনি এ দিন কোনও কথা বলতে চাননি। বঙ্কিমবাবুর দু’টি মোবাইল ফোনও দিনভর বন্ধ ছিল।

এই নিয়োগ নিয়ে গত ২০ মে কল্যাণী থানায় যে অভিযোগ দায়ের হয়, তাতে ওই দুই বিধায়ক ছাড়াও বিজেপির রানাঘাট ও বাঁকুড়ার দুই সাংসদ— যথাক্রমে দলের রাজ্য সহ-সভাপতি জগন্নাথ সরকার ও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী সুভাষ সরকারের নাম রয়েছে। তাঁরা অবশ্য আগাগোড়াই নিয়োগে প্রভাব খাটানোর অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। নীলাদ্রবাবুর মেয়ে মৈত্রী দানাকে সোমবার জিজ্ঞাসাবাদ করতে চেয়েছিল সিআইডি। কিন্তু রবিবার ই-মেল করে মৈত্রী সময় চান, এর পরেই শুক্রবার জিজ্ঞাসাবাদের দিন ধার্য করা হয়েছে।

Advertisement

এ দিন বাঁকুড়ায় একটি কর্মসূচিতে তৃণমূলের উদ্দেশে নীলাদ্রিবাবু বলেন, ‘‘আপনাদের লজ্জা করে না! সৎ ভাবে আপনাদের পশ্চিম বাংলায় কোনও চাকরি নেই। একটা কোম্পানির কাছে আবেদন জানিয়ে একটা কাজ করছে। নো ওয়ার্ক-নো পে কাজ। যেন কত অপরাধ করেছে! আপনারা যে অপরাধের আঙুল তুলছেন, আপনারা প্রত্যেকটা জায়গায় লোক ঢুকিয়েছেন।’’ তৃণমূলের বাঁকুড়া সাংগঠনিক জেলা সভাপতি দিব্যেন্দু সিংহ মহাপাত্রের দাবি, “বিজেপি বিধায়কের মেয়ের চাকরি যে প্রভাব খাটিয়ে হয়েছে, ওঁর কথায় পরিষ্কার।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.