Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২২ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

১০০ শয্যার ‘কোভিড সেফ হোম’ চালু ডায়মন্ড হারবারে

নিজস্ব সংবাদদাতা
ডায়মন্ড হারবার ১৬ এপ্রিল ২০২১ ১৬:৪০
ডায়মন্ড হারবারে কোভিড সেফ হোম-এর উদ্বোধন। শুক্রবার। - নিজস্ব চিত্র।

ডায়মন্ড হারবারে কোভিড সেফ হোম-এর উদ্বোধন। শুক্রবার। - নিজস্ব চিত্র।

করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের মোকাবিলায় ১০০ শয্যার ‘কোভিড সেফ হোম’ চালু করল ডায়মন্ড হারবার স্বাস্থ্য জেলা। শুক্রবার ডায়মন্ড হারবারের এসডিও মাঠে এই ‘সেফ হোম’-এর উদ্বোধন করলেন জেলাশাসক অন্তরা আচার্য। মূলত ডায়মণ্ড হারবার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনা রোগীদের চাপ কমাতেই এই ‘সেফ হোম’ চালু করা হল বলে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর।

আপাতত এই ‘সেফ হোম’ ১০০ শয্যার হলেও আগামী দিনে প্রয়োজনে শয্যার সংখ্যা বাড়ানো হবে বলে সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছে। জেলার মগরাহাট, কাকদ্বীপ, পাথরপ্রতিমা, সাগর, বারুইপুর, জয়নগর, ক্যানিং এবং মহেশতলাতেও দ্রুত ‘সেফ হোম’ চালু করতে চলছে জেলা স্বাস্থ্য দফতর।

জেলাশাসক অন্তরা আচার্য বলেছেন, ‘‘করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় হাসপাতাল ও ‘সেফ হোম’ মিলিয়ে মোট ৪৫১টি শয্যার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। তবে পরিস্থিতি বুঝে ওই সংখ্যা পরে বাড়ানো হবে।’’

Advertisement

ডায়মন্ড হারবারের কোভিড সেফ হোমটিকে ‘মডেল’ হিসাবে তৈরি করতে চাইছে স্বাস্থ্য দফতর। ডায়মন্ড হারবার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনায় আক্রান্তদের জন্য মোট ৬১টি শয্যা রয়েছে। করোনা আক্রান্তদের প্রথমে ‘সেফ হোম’-এ ভর্তি রাখা হবে। ‘সেফ হোম’ –এ থাকার সময় কোনও আক্রান্তের অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে তৎক্ষণাৎ তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে। এই ‘সেফ হোম’–এ ২৪ ঘণ্টা চিকিৎসক তো থাকবেনই, থাকবেন অভিজ্ঞ নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীরাও। ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে মোট ৮টি অ্যাম্বুল্যান্সের। মুমূর্ষু রোগীদের জন্য অক্সিজেনেরও ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে।

এই ‘সেফ হোম’ থেকেই ডায়মন্ড হারবার এবং কাকদ্বীপ মহকুমার করোনা আক্রান্তদের জন্য একটি হেল্পলাইন নম্বরও চালু করা হয়েছে। নম্বরটি হল- ০৩১৭৪২৫৬৪৭৫। এই নম্বরে যোগাযোগ করে বাড়িতে বসেই চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে পারবেন আক্রান্তরা।

জেলাশাসক ছাড়াও শুক্রবার ডায়মন্ড হারবারের ‘সেফ হোম’ উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন এডিএম (স্বাস্থ্য) শঙ্খ সাঁতরা, সিএমওএইচ দেবাশিস রায়, এসডিও সুকান্ত সাহা প্রমুখ।

করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের মোকাবিলায় শুধু স্বাস্থ্য দফতরই নয় পুলিশ ও প্রশাসনের তরফেও মাস্ক পরা নিয়ে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। মানুষের সচেতনতা বাড়াতে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণও শুরু করেছে পুলিশ।

ডায়মন্ড হারবার স্বাস্থ্য জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক চিকিৎসক দেবাশিস রায় বলেছেন, ‘‘বৃহস্পতিবারই আমাদের জেলায় নতুন করে ৪৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। দ্রুত পরিস্থিতির মোকাবিলায় স্বাস্থ্য দফতরের তরফে সব রকমের ব্যবস্থা করা হয়েছে।’’

আরও পড়ুন

Advertisement