Advertisement
৩০ নভেম্বর ২০২৩
Poor Road Condition In Howrah

হাওড়ায় রাস্তা সারাইয়ের দাবিতে অবরোধ

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, উত্তর হাওড়ার বেহাল সীতানাথ বসু লেনের খোঁড়া অংশ সারাই না হওয়ায় এক দিকে যেমন ঘটছে দুর্ঘটনা, তেমনই জমা জলে বাড়ছে ডেঙ্গি-ম্যালেরিয়ার মশা।

An image of Road Condition In Howrah

দুর্ভোগ: দীর্ঘ দিন ধরে জমে আছে জল। এ ভাবে নিত্য যাতায়াত বাসিন্দাদের। মঙ্গলবার, হাওড়ার সীতানাথ বসু লেনে। ছবি: দীপঙ্কর মজুমদার।

নিজস্ব সংবাদদাতা
হাওড়া শেষ আপডেট: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ০৭:১১
Share: Save:

নিকাশি সমস্যার সমাধানে পাম্প হাউসের জন্য রাস্তা খুঁড়ে পাইপ বসানো হয়েছিল কয়েক মাস আগে। অভিযোগ, উত্তর হাওড়ার সীতানাথ বসু লেনের সেই খোঁড়া অংশ আর মেরামত হয়নি। ওই রাস্তায় জমা জল নিয়ে ক্ষোভ জমছিলই এলাকাবাসীর। তারই বহিঃপ্রকাশ ঘটল মঙ্গলবার সকালে। প্রায় দেড় ঘণ্টা রাস্তা অবরোধ করলেন বাসিন্দারা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, উত্তর হাওড়ার বেহাল সীতানাথ বসু লেনের খোঁড়া অংশ সারাই না হওয়ায় এক দিকে যেমন ঘটছে দুর্ঘটনা, তেমনই জমা জলে বাড়ছে ডেঙ্গি-ম্যালেরিয়ার মশা। হাওড়া পুরসভাকে বার বার জানিয়েও ফল হয়নি, এই অভিযোগ তুলে এ দিন সকাল সাড়ে ৯টা থেকে সীতানাথ বসু লেন সংলগ্ন বেনারস রোড অবরোধ করেন স্থানীয়েরা। দেড় ঘণ্টা পরে মালিপাঁচঘরা থানার পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ ওঠে।

স্থানীয় বাসিন্দা সমর দাসের অভিযোগ, ‘‘প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে বেহাল। ওই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করাটাই দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। বর্ষায় ওই ভাঙা রাস্তায় জল জমার সমস্যায় অতিষ্ঠ বাসিন্দারা। প্রশাসনকে বার বার বলেও কাজ না হওয়ায় বাধ্য হয়ে এই পথে যেতে হল।’’

হাওড়ায় বিজেপির নেতা তথা দলের রাজ্য কমিটির সম্পাদক উমেশ রাই বলেন, ‘‘প্রতি বছর কয়েক কোটি টাকা খরচ করেও নিকাশির বেহাল অবস্থা পাল্টায় না। আসলে পুরসভা দিশাহীন। শহরের উন্নয়নের ব্লু প্রিন্ট তাদের কাছে নেই।’’ হাওড়া পুরসভার চেয়ারপার্সন সুজয় চক্রবর্তী বলেন, ‘‘উত্তর হাওড়ায় পাম্পিং স্টেশন করার কাজের জন্য সীতানাথ বসু লেনের ওই অংশটি খারাপ হয়েছে। দ্রুত মেরামত করা হবে। বিরোধীরা উন্নয়ন দেখতে পান না, তাই এ ধরনের কথা বলেন।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE