Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

মাসির বাড়িতে ধর্ষণ, নালিশ চাইল্ড লাইনে

শুক্রবার হুগলির চণ্ডীতলায় মাসির বাড়ি থেকে বছর ষোলোর ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে চাইল্ড লাইন। মেয়েটি প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ জানায়। গ্রেফতার

প্রকাশ পাল
চণ্ডীতল‌া ১৬ জুলাই ২০১৭ ০২:০৫
—প্রতীকী ছবি

—প্রতীকী ছবি

বাবা অন্যত্র বিয়ে করে চলে যাওয়ায় মা-মরা মেয়েটি আশ্রয় পেয়েছিল মাসির বাড়িতে। কিন্তু দিনের পর দিন সেখানে মাসতুতো দুই দাদা তাকে ধর্ষণ করে এবং মাসি সব জেনেও বাধা না-দিয়ে তাকে মারধর করছিল বলে অভিযোগ তুলল সে।

শুক্রবার হুগলির চণ্ডীতলায় মাসির বাড়ি থেকে বছর ষোলোর ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে চাইল্ড লাইন। মেয়েটি প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ জানায়। গ্রেফতার হয় মেয়েটির মাসি ও তার এক ছেলে। অন্য ছেলে দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছে। চচাইল্ড লাইনের এক আধিকারিক বলেন, ‘‘মেয়েটার শরীরে মারধরের চিহ্ন ছিল। কয়েক দিন খেতেও দেওয়া হয়নি। অন্য এক কিশোরী লুকিয়ে জানলা দিয়ে খাবার দিয়ে গিয়েছে।’’

১৬ বছরের মেয়েটির জন্ম ভদ্রেশ্বরে। মা মারা যাওয়ার পর থেকে সে মাসির বাড়িতে থাকে। সে জানায়, বছর দুয়েক আগে থেকে নির্যাতন শুরু করে দুই মাসতুতো দাদা। সপ্তম শ্রেণিতে পড়ার সময় সে গর্ভবতীও হয়ে পড়ে। সব জেনে মাসি এবং মামা তাঁর গর্ভপাত করিয়ে আনেন। পরে স্কুলের এক শিক্ষিকাকেও মেয়েটি বিষয়টি জানায়। কিন্তু তিনি বিষয়টি চেপে যেতে বলেন।

Advertisement

বছর দেড়েক আগে এক মাসতুতো দাদা দুর্ঘটনায় মারা যান। তার পরেও নির্যাতন বন্ধ হয়নি। চলতি বছরে সে নবম শ্রেণিতে উঠলে স্কুল ছাড়িয়ে দেওয়া হয়। দাদার পছন্দের যুবককে বিয়েতে রাজি না-হওয়ায় বুধবার মেয়েটিকে মারধর করা হয়। বৃহস্পতিবার ফোনে সব জানতে পারে চাইল্ড লাইন। শুক্রবার ব্লক ওয়েলফেয়ার অফিসার বিপ্লব বিশ্বাস এবং চাইল্ড লাইনের আধিকারিক সুস্মিতা কোলে মেয়েটিকে উদ্ধার করেন। তাকে হোমে পাঠানো হয়। পুলিশ জানায়, ব্লক প্রশাসনের কাছে দায়ের করা মেয়েটির অভিযোগপত্রই এফআইআর হিসেবে বিবেচনা করে ধর্ষণ এবং ‘পকসো’ আইনের ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। শনিবার শ্রীরামপুর আদালতে মেয়েটি গোপন জবানবন্দি দেয়। ধৃতদের ১৪ দিন জেল হাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

আরও পড়ুন

Advertisement