Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০২ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

যুবক অপহরণের অভিযোগ কুখ্যাত দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে

নিজস্ব সংবাদদাতা
চুঁচুড়া ১৪ অক্টোবর ২০২০ ০৪:৩৮
বিষ্ণু মাল। —নিজস্ব চিত্র

বিষ্ণু মাল। —নিজস্ব চিত্র

দু’দিন পেরিয়ে গেলেও চুঁচুড়ার রায়বেড়ের নিখোঁজ যুবক বিষ্ণু মালের সন্ধান মেলেনি। চুঁচুড়ার কুখ্যাত সমাজবিরোধী বিশাল দাস তাঁকে অপহরণ করেছে বলে মঙ্গলবার চুঁচুড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তাঁর বাড়ির লোকেরা।

পুলিশ জানিয়েছে, বিশাল এবং তার দলবলের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। অভিযুক্তরা পলাতক। তদন্তকারীদের ধারণা, এক তরুণীকে বিয়ে করতে চেয়ে প্রত্যাখ্যাত হয় বিশাল। বিষ্ণুর সঙ্গে ওই তরুণীর সম্পর্ক রয়েছে। প্রত্যাখ্যানের বদলা নিতেই সে ওই কাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে। চন্দননগরের সিপি হুমায়ুন কবীর বলেন, ‘‘নিখোঁজ যুবকের সন্ধান চলছে। আশা করছি, বিশাল-সহ অন্য অভিযুক্তরা শীঘ্রই ধরা পড়বে।’’

পুলিশ জানায়, রবিবার রাত ৮টা নাগাদ বছর তেইশের বিষ্ণু বাড়ির সামনে মোবাইলে কথা বলছিলেন। অভিযোগ, তখনই দুষ্কৃতীরা তাঁকে মোটরবাইকে তুলে নিয়ে যায়। আত্মীয়েরা জানতে পারেন, দুই যুবকের সঙ্গে বাইকে চেপে তাঁকে শহরের ষাণ্ডেশ্বরতলার দিকে যেতে দেখা গিয়েছে। তবে, অনেক খুঁজেও তাঁর হদিশ মেলেনি।

Advertisement

ওই রাতেই বিষ্ণুর আত্মীয়েরা চুঁচুড়ার মার্কণ্ডগলিতে তাঁর বান্ধবীর বাড়িতে গিয়ে দেখেন, পুলিশ উপস্থিত। ওই তরুণী তাঁদের জানান, বিষ্ণু তাঁকে ফোন করেছিলেন। কথাবার্তায় মনে হয়, কয়েক জন তাঁকে জোর করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। বিশালকে তিনি চিনতেন। ফোনে বিশালের গলাও পেয়েছেন। দুষ্কৃতীরা বিষ্ণুর মোবাইল বন্ধ করে দেয় বলেও তাঁর ধারণা। বিষ্ণু বিপদে পড়েছেন ভেবেই তরুণীর পরিবার থানায় জানায়।

তদন্তকারীরা জেনেছেন, মার্কণ্ডগলিতে দিদির বাড়িতে যাতায়াতের সূত্রে ওই তরুণীর সঙ্গে বিশালের আলাপ হয়েছিল। বিশাল তাঁকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল। বিশালের বিরুদ্ধে দুষ্কৃতীমূলক কাজকর্মের অভিযোগ শুনে তরুণীর পরিবার প্রস্তাব নাকচ করে। এর মধ্যেই খুনে জড়িত অভিযোগে বিশালকে জেলে যেতে হয়। এ দিকে, তরুণীর সঙ্গে বিষ্ণুর ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। বিশালের কানে সেই খবর পৌঁছলে বিষ্ণুর উপরে সে ক্ষেপে ওঠে। সম্প্রতি বিশাল জেল থেকে ছাড়া পায়।

বিশালের বিরুদ্ধে একাধিক খুন, বোমাবাজি, তোলাবাজি-সহ নানা অভিযোগ রয়েছে পুলিশের খাতায়। বিষ্ণুর দিদি কাজল মাল বলেন, ‘‘ওই তরুণীর সাথে পরিচয়ের পরে ভাই হয়তো গোপন কিছু জানতে পেরেছিল। ভয়ে থাকত। ওদের বাড়িতে গিয়ে বিশালের কথা জানতে পারি। ও-ই ভাইকে অপহরণ করেছে!’’ বিষ্ণুর বাবা গোপালবাবু রাজমিস্ত্রি। তিনি বলেন, ‘‘ছেলেটাকে ওরা কোথায় নিয়ে গেল, পুলিশ খুঁজে দিক।’’

আরও পড়ুন

Advertisement