Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৬ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

‘বহিরাগত’ তত্ত্বে সুর আরও চড়া তৃণমূলের, আক্রমণে চন্দ্রিমা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৯ নভেম্বর ২০২০ ১৮:৪৮
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

‘বহিরাগত’ ইস্যু যে স্রেফ কথার কথা নয়, তা বুঝিয়ে দিতে শুরু করল রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল। বুধবার দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো মুখ খুলেইছিলেন। সাংবাদিক সম্মেলন করে সুর চড়িয়েছিলেন দলের সাংসদ তথা মুখপাত্র সুখেন্দুশেখর রায়ও। বৃহস্পতিবার ফের একই ইস্যুতে তোপ দাগলেন রাজ্যের মন্ত্রীর চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। তিনি সাফ জানাচ্ছেন, বহিরাগতদের এনে লালচোখ দেখিয়ে যদি বিজেপি নিজেদের দিবাস্বপ্ন পূরণ করার চেষ্টা করে, তা হলে তা মেনে নেওয়া হবে না!

ভিনরাজ্য থেকে ৫ বিজেপি নেতাকে বাংলায় এনে ভোট প্রস্তুতি তদারকির দায়িত্ব দিয়েছেন বিজেপি নেতৃত্ব। দলের ৫টি সাংগঠনিক জোনের পর্যবেক্ষক হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে ওই ৫ জনকে। বিজেপির ওই সিদ্ধান্তের পর থেকেই ‘বহিরাগত’ তত্ত্বকে জোর দিয়ে সামনে আনতে শুরু করেছে তৃণমূল। নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ বা শিবপ্রকাশ-কৈলাস বিজয়বর্গীয়দের উপরে রাজ্য বিজেপি-র নির্ভরশীলতাকেও এক সময়ে এ ভাবেই আক্রমণ করা হত। বিজেপি-কে বহিরাগতদের উপরে নির্ভরশীল দল হিসেবে তখন থেকেই চিহ্নিত করার চেষ্টা শুরু করেছিল তৃণমূল। সেই প্রচারকেই এ বার তুঙ্গে তুলছে রাজ্যের শাসকদল। বৃহস্পতিবার চন্দ্রিমা বলেন, ‘‘বাংলা সব ধরনের মানুষকে স্বাগত জানায়। কিন্তু বহিরাগতরা যদি তাঁদের অদ্ভুত স্বপ্ন কে বাস্তবায়িত করবে বলে লালচোখ দেখান, তা হলে বাংলার মানুষ মেনে নেবেন না।’’ বিজেপি-র কেন্দ্রীয় নেতাদের নিশানা করে চন্দ্রিমার মন্তব্য, ‘‘বাংলার সংস্কৃতি-ঐতিহ্য সম্পর্কে তাঁদের কোন জ্ঞান নেই। বাংলার গ্রাম বা বাংলার মানুষ— কিছুই তাঁরা চেনেন না।’’

রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমার আরও বক্তব্য, ‘‘তাঁরা যদি এখানে শিক্ষার্থী হয়ে আসেন, অসুবিধা নেই। যদি এই তীর্থস্থানে তীর্থযাত্রী হিসেবে আসতে চান, আমাদের আপত্তি নেই। কিন্তু নিজেদের দিবাস্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার লোভ নিয়ে যদি বাংলায় আসেন, তা হলে মেনে নেওয়া হবে না।’’ বিজেপি-র বাংলা জয়ের স্বপ্নকেই ‘দিবাস্বপ্ন’ আখ্যা দিচ্ছে তৃণমূল। বুধবার সুখেন্দুশেখরও প্রায় একই সুরে বলেছিলেন, লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় ১৮টা আসন পেয়ে যাঁরা ভাবছেন ওই সাফল্য বিধানসভা নির্বাচনেও ধরে রাখা যাবে, তাঁর ভুল করছেন। বুধবার সন্ধ্যায় পোস্তায় জগদ্ধাত্রী পুজোর উদ্বোধনে গিয়ে তৃণমূল চেয়ারপার্সন তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেছিলেন, ‘‘বাইরে থেকে এসে অনেকে ভয় দেখাচ্ছেন। বাইরের কারও হুমকিতে ভয় পাবেন না।’’ যা থেকে স্পষ্ট, ২০২১-এর বিধানসভা ভোটের লড়াইয়ের আগে বিজেপি-কে ‘বহিরাগতদের দল’ হিসেবে চিহ্নিত করে দেওয়ার রাজনৈতিক লাইন নিয়েছে তৃণমূল।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement