Advertisement
০৫ মার্চ ২০২৪

তদন্তে অসন্তুষ্ট দৃষ্টিহীন পড়ুয়ারা

রবিবার রেল পুলিশের তরফে জানানো হয়, জীবনের অভিযোগের সত্যতা যাচাই করতে গিয়ে সিসিটিভির ফুটেজে দেখা গিয়েছে, স্টেশনের ভিতরে কিছু ঘটেনি। কারণ ওই দৃষ্টিহীন যুবককে স্টেশনের বাইরে বেরিয়ে যেতে দেখা গিয়েছে ফুটেজে।

প্রতিবন্ধী-বিক্ষোভ: হাওড়ার জিআরপি থানায়। ফাইল চিত্র।

প্রতিবন্ধী-বিক্ষোভ: হাওড়ার জিআরপি থানায়। ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ০৩ এপ্রিল ২০১৮ ০৩:১৬
Share: Save:

দৃষ্টিহীন ছাত্র জীবন রক্ষিতকে মারধর ও লুঠপাটের ঘটনা হাওড়া স্টেশনের বাইরে হয়েছে বলে রেল পুলিশ যে দাবি করছে, তা সম্পূর্ণ অসত্য বলে অভিযোগ উঠল রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের দৃষ্টিহীন ছাত্রছাত্রীদের তরফে। মূলত এ কথা প্রতিষ্ঠা করে রেল পুলিশ দায়িত্ব এড়াতে চাইছে বলে দাবি তাঁদের।

রবিবার রেল পুলিশের তরফে জানানো হয়, জীবনের অভিযোগের সত্যতা যাচাই করতে গিয়ে সিসিটিভির ফুটেজে দেখা গিয়েছে, স্টেশনের ভিতরে কিছু ঘটেনি। কারণ ওই দৃষ্টিহীন যুবককে স্টেশনের বাইরে বেরিয়ে যেতে দেখা গিয়েছে ফুটেজে। পুলিশের এই বক্তব্যের বিরোধিতা করে এ দিন ওই ছাত্রছাত্রীরা জানান, রেল পুলিশ এ রকম এড়িয়ে যাওয়া মনোভাব ত্যাগ করে সহৃদয়তার সঙ্গে তদন্ত না করলে ফের থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখানো হবে।

রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের ছাত্র জীবনের অভিযোগ, গত শনিবার হাওড়া স্টেশনের ১৯ নম্বর প্ল্যাটফর্মে নামার পর সাহায্যের অছিলায় তাঁকে মারধর করে অজ্ঞান করার পর টাকা পয়সা-সহ ব্যাগ ও মোবাইল ছিনতাই করে দুষ্কৃতীরা। এর আগেও আরও তিন-চার জন দৃষ্টিহীন ছাত্রের একই ভাবে ছিনতাইয়ের ঘটনা স্টেশন চত্বরে হওয়ার প্রতিবাদে ওই দিন বিকেলে জিআরপি থানার গেটের সামনে বসে পক্ষে দীর্ঘ ক্ষণ বিক্ষোভ দেখান কয়েক জন দৃষ্টিহীন ছাত্রছাত্রী। পরে সিসিটিভির ফুটেজ দেখার পর রেল পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, ঘটনাটা স্টেশনের বাইরে ঘটেছে। তাই বিক্ষোভকারীদের হাওড়া সিটি পুলিশের গোলাবাড়ি থানায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখানেই অভিযোগ দায়ের করেন ছাত্রছাত্রীরা। গোলাবাড়ি থানা ঘটনার তদন্ত শুরু করে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE