Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

রাতে ১২ ঘণ্টা খোলা থাকুক পাইকারি বাজার, চিঠি ব্যবসায়ীদের

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৪ মে ২০২১ ০৬:২৬
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

শহরের পাইকারি বাজার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরের দিন সকাল ৬টা পর্যন্ত খুলে রাখার দাবি জানিয়ে রাজ্য সরকারকে চিঠি দিল পাইকারি বাজারগুলির ব্যবসায়ীদের সংগঠন ‘চাষি ভেন্ডর অ্যাসোসিয়েশন’। সংক্রমণ ঠেকাতে সম্প্রতি রাজ্য সরকার নির্দেশ দিয়েছে, জরুরি পরিষেবা ছাড়া সমস্ত বাজার-দোকান সকাল ৭টা থেকে ১০টা এবং বিকেল ৩টে থেকে ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। শহরের অন্যতম বড় পাইকারি বাজার কোলে মার্কেটের ব্যবসায়ীদের মতে, সকালে তিন ঘণ্টা এবং বিকেলে মাত্র দু’ঘণ্টা বাজার খোলা থাকলে চাষিরা আনাজপাতি বিক্রি করার সুযোগই পাবেন না। এর ফলে পাইকারি বাজার থেকে আনাজ যে সব খুচরো বাজারে পৌঁছয়, সেই প্রক্রিয়া ব্যাহত হবে। খুচরো বাজারে আনাজের জোগান কমে গেলে ফের দাম বাড়ার আশঙ্কা থাকছে।

চাষি ভেন্ডর অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট তথা কোলে মার্কেটের জনসংযোগ আধিকারিক কমল দে জানান, রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে এই বাজারে কৃষকেরা আনাজ বিক্রি করতে আসেন। সকালে ১০টা ও বিকেলে ৫টার পরে বাজার বন্ধ হয়ে যাওয়ার নির্দেশ শুনে তাঁরা অনেকেই চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। কমলবাবু বলেন, “কোলে মার্কেটে কেনাবেচার মূল কাজটাই হয় রাতে। সারা রাত ধরে পাইকারি বিক্রেতারা তাঁদের আনাজ নিয়ে আসেন বাজারে। ভোরে খুচরো ব্যবসায়ীরা পাইকারি বিক্রেতাদের কাছ থেকে আনাজ নিয়ে গিয়ে বিক্রি করেন। সকাল ৭টা থেকে ১০টা—মাত্র তিন ঘণ্টা বাজার খোলা থাকলে কী ভাবে এই বিপুল বিক্রিবাটা সম্পন্ন হবে?”

তিনি জানান, এখনও কোলে মার্কেট বিকেল ৫টার পরে খোলা থাকছে ঠিকই। কিন্তু সরকারি নির্দেশের কথা শুনে অনেক পাইকারি বিক্রেতাই রাতে বা ভোরে আসতে চাইছেন না। কমলবাবুর আশঙ্কা, এমন চললে আস্তে আস্তে কোলে মার্কেটে আনাজ বিক্রেতার সংখ্যা কমবে। তখন আনাজের জোগানে টান পড়তে বাধ্য। কোলে মার্কেটের এক আনাজ বিক্রেতা বলেন, “এখন গরমে পটল, ঝিঙে, করলা, ঢেঁড়স থেকে শুরু করে অন্যান্য আনাজের দাম মধ্যবিত্তের নাগালের মধ্যে রয়েছে। জোগানও রয়েছে পর্যাপ্ত। তাই এখনই হয়তো দাম বাড়বে না। কিন্তু পাইকারি জোগান কমে গেলে খুচরো বাজারে টান পড়লে দাম বাড়তেই পারে।”

Advertisement

কমলবাবুর দাবি, সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরের দিন সকাল ৬টা পর্যন্ত শহরের পাইকারি বাজারগুলি খোলা থাকলে ভিড়ও কম হবে। কোলে মার্কেটের আর এক পাইকারি বিক্রেতা অজয় মুন্সি বলেন, “রাতে শুধু পাইকারি বিক্রেতারা বাজারে থাকবেন আর ভোরে খুচরো বিক্রেতারা আসবেন। দিনের বেলার মতো ভিড় হবে না। এই করোনার সময়ে ভিড় যত কম হয়, ততই ভাল।’’ কমলবাবু বলেন, “পাইকারি বাজারগুলি সন্ধ্যা ৬টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত খুলে রাখার আবেদন জানিয়ে মুখ্যসচিব-সহ কৃষি দফতরের শীর্ষ আধিকারিককে চিঠি লিখেছি।”

আরও পড়ুন

Advertisement