Advertisement
২০ জুলাই ২০২৪

আকাশে বিমানের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে নয়া নজরদারি

কখনও আকাশপথে মুখোমুখি চলে আসা, কখনও বা নামা-ওঠার সময়ে সংঘর্ষের পরিস্থিতি বিমান চলাচলে এখন নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে এই ধরনের বিপদের আশঙ্কা। সোমবারও একটি বিমানের পাইলট কলকাতা এটিসি-র বার্তা বুঝতে ভুল করায় দু’টি বিমানের উচ্চতার ফারাক বিপজ্জনক ভাবে কমে সংঘর্ষের আশঙ্কা তৈরি হয়। এই পরিস্থিতিতেই এমন বিপদ এড়াতে সুরক্ষা ব্যবস্থা আরও জোরদার করছে কলকাতা বিমানবন্দর।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ১৩ অগস্ট ২০১৪ ০২:০৬
Share: Save:

কখনও আকাশপথে মুখোমুখি চলে আসা, কখনও বা নামা-ওঠার সময়ে সংঘর্ষের পরিস্থিতি বিমান চলাচলে এখন নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে এই ধরনের বিপদের আশঙ্কা। সোমবারও একটি বিমানের পাইলট কলকাতা এটিসি-র বার্তা বুঝতে ভুল করায় দু’টি বিমানের উচ্চতার ফারাক বিপজ্জনক ভাবে কমে সংঘর্ষের আশঙ্কা তৈরি হয়। এই পরিস্থিতিতেই এমন বিপদ এড়াতে সুরক্ষা ব্যবস্থা আরও জোরদার করছে কলকাতা বিমানবন্দর।

বিমানবন্দর সূত্রে খবর, নজরদারি আরও বাড়াতে সোমবার রাত থেকে এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলে শুরু হয়েছে ‘অটোমেশন’ ব্যবস্থা। কলকাতায় এয়ার ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট-এর জেনারেল ম্যানেজার চন্দন সেন জানান, পুরনো ব্যবস্থার সমান্তরালে নতুন ব্যবস্থায় বিমানের গতিবিধির উপরে নজর রাখা হবে।

এত দিন কলকাতায় এটিসি-তে মাত্র দু’টি রেডারের (একটি কলকাতার, অন্যটি ব্রহ্মপুরের) ছবি পাওয়া যেত। নতুন ব্যবস্থায় ৯টি রেডারের ছবি ফুটে উঠবে কলকাতা বিমানবন্দরের মনিটরে। সঙ্গে থাকবে ৮টি অটোম্যাটিক ডিপেন্ডেন্স সার্ভিল্যান্স ব্রডকাস্টার (এডিএসবি)-এর ছবিও। এত দিন কলকাতাকে কেন্দ্র করে ২৮০ কিমি আকাশসীমার ছবি দেখা যেত মনিটরে। এ বার দিল্লির রুটে ১০০০ কিমি, মুম্বইয়ের পথে ১১০০ কিমি দেখা যাবে। কলকাতায় বসে দেখা যাবে কাঠমান্ডুতে বিমান ওঠানামা।

নতুন ব্যবস্থায় আকাশ আরও নিরাপদ হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। এটিসি মাঝ আকাশে কোনও বিমানকে বার্তা পাঠালে, ২০০ নটিক্যাল মাইলের মধ্যে থাকা সমস্ত বিমানের পাইলট তা শুনতে পান। কোনও পাইলট বার্তা বুঝতে ভুল করলে কিংবা বিমানের উচ্চতা বা গতি বদল করলে নতুন ব্যবস্থায় সঙ্গে সঙ্গে বুঝতে পারবেন এটিসি-র অফিসারেরা।

বাড়ছে বিপদ রোখার সুযোগও। মাঝ আকাশে দু’টি বিমান কাছাকাছি চলে এলে বিমানের ককপিটে বিপদসঙ্কেত বাজার ব্যবস্থা রয়েছে প্রতিটি আধুনিক বিমানে। ককপিটে বসে পাইলট সেই সঙ্কেত পান দুর্ঘটনার মাত্র ৩৫ সেকেন্ড আগে। ওইটুকু সময়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে অন্য উচ্চতায় গিয়ে দুর্ঘটনা এড়াতে হত। তা ছাড়া, একটানা পাইলটদের সঙ্গে বার্তা আদানপ্রদানের সময়ে মাঝ আকাশে দু’টি বিমান কাছাকাছি চলে এলে তার সঠিক অবস্থান বুঝতে অসুবিধা হত এটিসি-র। নতুন পদ্ধতিতে এটিসি-র মনিটরে ফুটে উঠবে প্রত্যেকটি বিমানের সঠিক অবস্থান। দু’টি বিমান কাছাকাছি চলে এলে, বিপদ-সঙ্কেতও ফুটে উঠবে দুর্ঘটনার প্রায় দু’মিনিট আগে।

সোমবার সকালে যেমন এটিসি থেকে এমিরেট্স-এর ঢাকাগামী বিমানের (ই কে ৫৮২) পাইলটকে উচ্চতা কমানোর বার্তা পাঠানো হয়। তার পিছনে আসা ঢাকাগামী ইউনাইটেড বাংলাদেশ-এর বিমানের (ইউ বি ৫৮৪) পাইলট ভেবেছিলেন বার্তাটি তাঁর জন্য। তাই বিমানের উচ্চতা কমাতে শুরু করেন। তখন তার নীচ দিয়ে উল্টোপথে আসছিল হংকং থেকে রিয়াধগামী একটি বিমান। দু’টির উচ্চতার ফারাক ছিল মাত্র হাজার ফুট, যা দু’টি বিমানের উচ্চতার ন্যূনতম ফারাক। ঢাকাগামী বিমানটি উচ্চতা কমাতে থাকলে, সেই ফারাক কমতে থাকে। দুই বিমানের ককপিটে বিপদ সঙ্কেত বেজে উঠলে পাইলটেরা খবর পাঠান এটিসি-তে। এটিসি-র নির্দেশে ইউনাইটেড বাংলাদেশ বিমান আগের উচ্চতায় ফেরায় দুর্ঘটনা এড়ানো যায়।

চন্দনবাবু জানান, অটোমেশন ব্যবস্থায় পাইলটের এমন ভুলভ্রান্তি সহজেই ধরা পড়বে। কারণ, নতুন ব্যবস্থায় বিমানের সঠিক অবস্থানের পাশাপাশি গতি ও উচ্চতার ব্যাপারেও যাবতীয় তথ্য থাকবে এটিসি-তে। পাইলট এটিসি-র বার্তার বাইরে বিমানের গতিবিধিতে সামান্যতম কোনও পরিবর্তন করলে সঙ্গে সঙ্গে ধরে ফেলতে পারবেন এটিসি-র অফিসারেরা। তবু যদি দু’টি বিমান কাছাকাছি চলে আসে, এটিসি আগে থেকেই পাইলটকে সতর্ক করে দিতে পারবে। নতুন ব্যবস্থায় দরকারে সময় ও জ্বালানি বাঁচাতে বিমানের রুটও বদল করা যাবে।

চন্দনবাবু বলেন, “নতুন ব্যবস্থায় নজরদারি ভাল ভাবেই চলছে। এই পদ্ধতিতে বিমান আরও নিরাপদে উড়তে পারবে।”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE