Advertisement
০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Kolkata Metro

সাড়ে তিন বছর পরে পরীক্ষা শেষ চিনে তৈরি মেট্রো রেকের

২০১৯ সালের প্রথম রেক এসে পৌঁছনোর পরে তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হয়। কিন্তু কিছু দিনের মধ্যে অতিমারির কারণে যাবতীয় তৎপরতা থমকে যায়। চিনের সংস্থার আধিকারিকেরাও দেশে ফিরে যান।

শেষ হল চিনা রেকের পরীক্ষা-নিরীক্ষা।

শেষ হল চিনা রেকের পরীক্ষা-নিরীক্ষা। — ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০২২ ০৭:১০
Share: Save:

‘ডালিয়ান’ সংস্থার তৈরি মেট্রো রেক চিন থেকে শহরে প্রথম এসেছিল ২০১৯ সালের মার্চে। সেই রেকের যাবতীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা পর্ব মিটল সোমবার, প্রায় সাড়ে তিন বছর পরে। এ বার সেই পরীক্ষার ফলাফল খতিয়ে দেখে রেলের গবেষণা তথা মানক সংস্থা আরডিএসও (রিসার্চ ডিজ়াইন অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ডস অর্গানাইজ়েশন) প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র দিলেই চিন থেকে ওই রেক আসা শুরু হবে।

Advertisement

২০১৯ সালের মার্চে প্রথম রেক এসে পৌঁছনোর পরে তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হয়। কিন্তু কিছু দিনের মধ্যে অতিমারির কারণে যাবতীয় তৎপরতা থমকে যায়। চিনের সংস্থার আধিকারিকেরাও দেশে ফিরে যান। শেষে বছরখানেক আগে অতিমারি পরিস্থিতির উন্নতি হলে ফের রেকের পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ শুরু হয়।

মেট্রো সূত্রের খবর, প্রায় ৩২ ধরনের পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে ওই রেককে। গতি, দুলুনি এবং ভার বহন ক্ষমতা যাচাই করারপরীক্ষা আগেই হয়েছিল। রবিবার রাতে ওই রেকের আপৎকালীন ব্রেকের কয়েকটি পরীক্ষা ছাড়াও রেডিয়ো ফ্রিকোয়েন্সি ইন্টারফেয়ারেন্স পরীক্ষা হয়েছে। সাধারণ আবহাওয়ায় যাত্রী-শূন্য এবং যাত্রী-সহ অবস্থায় ট্রেনের ভর হিসাব করে তার ব্রেক কষতে কত শক্তির প্রয়োজন হচ্ছে, তা দেখা হয়েছে ওই পরীক্ষায়। পাশাপাশি, ব্রেক কষার পরে ট্রেনটির পুরোপুরি থামতে কতটা দূরত্ব প্রয়োজন, তা-ও খতিয়ে দেখা হয়েছে।বর্ষাকালে বৃষ্টির মধ্যে কতটা সময় এবং দূরত্ব লাগে, তা পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে। রেডিয়ো ফ্রিকোয়েন্সি ইন্টারফেয়ারেন্স পরীক্ষায় ট্রেনের বিভিন্ন বৈদ্যুতিন যন্ত্রপাতি থেকে নির্গত তরঙ্গের প্রভাবে সিগন্যালিং এবং অন্যান্য ব্যবস্থায় আবেশজনিত কোনও প্রভাব তৈরি হচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হয়। একই ভাবে থার্ড রেলের বিদ্যুৎ এবং ট্র্যাক সংলগ্ন বিভিন্ন যন্ত্রপাতি থেকে নির্গত বৈদ্যুতিক তরঙ্গ ট্রেনের বিভিন্ন দূর-নিয়ন্ত্রিত যন্ত্রের উপরে প্রভাব ফেলছে কি না, তা-ও দেখা হয়। এ ক্ষেত্রে প্রভাব ফেললে ট্রেনের সিগন্যাল-বিভ্রাট ছাড়াও একাধিক বিপত্তির আশঙ্কা থাকে। তাই অতি সতর্কতার সঙ্গে ওই পরীক্ষা করা হয়। এই পরীক্ষাগুলির ফলাফল আশানুরূপ হলে রেক আসার ছাড়পত্র মিলবে বলে মেট্রোকর্তাদের আশা।

মেট্রো সূত্রের খবর, চিনের ডালিয়ান সংস্থা থেকে মোট ১৩টি রেক আসার কথা। এর মধ্যে প্রথম রেকটির পরে আরও আটটি রেক চিনের কারখানায় তৈরি অবস্থায় রয়েছে। প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র পেলেই ওই রেকগুলি জলপথে চিন থেকে কলকাতায় আসবে।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.