Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

ফেলে দেওয়া প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি হল রাস্তা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৩ মার্চ ২০২০ ০১:৪৫
ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকের এমন টুকরো (পাশে) দিয়েই চলছে রাস্তা তৈরি। সোমবার, হাওড়া পুরসভা চত্বরে। ছবি: দীপঙ্কর মজুমদার

ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকের এমন টুকরো (পাশে) দিয়েই চলছে রাস্তা তৈরি। সোমবার, হাওড়া পুরসভা চত্বরে। ছবি: দীপঙ্কর মজুমদার

ফেলে দেওয়া প্লাস্টিক ফের ব্যবহার করে এ বার রাস্তা তৈরি হল খাস হাওড়া পুরসভার ভিতরের চত্বরে। পাথরকুচির সঙ্গে প্লাস্টিকের ছাঁট মিশিয়ে তার উপরে বিটুমিনের আস্তরণ দিয়ে তৈরি হয়েছে এই নতুন রাস্তা। সোমবার পুর কমিশনার বিজিন কৃষ্ণের উপস্থিতিতে সেই কাজ শুরু হয় টাউন হলের সামনে। পুর কমিশনার জানান, আইআইইএসটি-র গবেষক-অধ্যাপক তাপস রায়ের নেতৃত্বে এবং ইন্ডিয়ান রোড কংগ্রেসের নির্দেশিকা মেনে পরীক্ষামূলক ভাবে এই রাস্তা তৈরি হল। তাঁর দাবি, প্লাস্টিক পুনর্ব্যবহারের জন্য নতুন রাস্তার স্থায়িত্ব যেমন বাড়বে, তেমন কমবে রাস্তা তৈরির খরচও।

নতুন বোর্ড গঠনের আগেই পূর্ববর্তী বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পুরসভা চত্বর ও পুর ভবনে সৌন্দর্যায়নের কাজ চলছে। ইতিমধ্যেই পুরসভার সামনে থাকা সব ঘর ভেঙে দেওয়া হয়েছে। সেই জায়গায় তৈরি হয়েছে বাগান। ১ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা খরচ করে তৈরি হয়েছে সুসজ্জিত মূল প্রবেশপথ, পার্কিং লট, হেল্পডেস্ক কাউন্টার এবং রাস্তা। পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, পুরসভা চত্বরে যে ৪০৩ মিটার বিটুমিনের রাস্তা ছিল, তার উপরেই প্লাস্টিকের এই নতুন রাস্তা তৈরি করা হয়েছে। মোট ৪০৩ মিটার রাস্তায় প্রতি মিটারে লেগেছে ৪০ কেজি ফেলে দেওয়া প্লাস্টিক।

পুর কমিশনার আরও বলেন, ‘‘হাওড়ায় প্লাস্টিককে পুনর্ব্যবহারযোগ্য করে তোলার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এর জন্য মেশিন বসানো হয়েছে বেলিলিয়াস পার্কে। আগামী দিনে হাওড়ার সব ওয়ার্ডে এই ভাবে প্লাস্টিকের মতো অপচনশীল এবং আনাজের মতো পচনশীল আবর্জনা আলাদা করে তা পুনর্ব্যবহারযোগ্য করে তোলা হবে।’’

Advertisement

পুরসভা সূত্রের খবর, এ দিন প্লাস্টিকের যে রাস্তা তৈরি হয়েছে, সেটি কত দিন স্থায়ী হয় দেখে শহরের রাস্তাগুলিও একই ভাবে সংস্কার করার পরিকল্পনা রয়েছে। পুর প্রশাসনের দাবি, বিটুমিনের মধ্যে প্লাস্টিক থাকায় পাথরের সঙ্গে তা জেলির মতো আটকে থাকবে। বর্ষাকালে পিচ উঠে গর্ত হওয়ার আশঙ্কাও থাকবে না।

আরও পড়ুন

Advertisement