×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৬ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

স্কুটারে মমতাকে দেখে গাড়ি থমকাল, যানজট

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০৫:০৫
স্কুটারে মমতা।

স্কুটারে মমতা।
ছবি: পিটিআই

ইলেকট্রিক স্কুটারে কখনও চালকের আসনে, কখনও আবার আরোহী হয়ে বৃহস্পতিবার সকাল-বিকেল নবান্নে যাতায়াত করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর এই সফর ছিল পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে। যার জেরে এ দিন মুখ্যমন্ত্রীর যাওয়ার রাস্তায় গাড়ির স্বাভাবিক গতি বাধা পেয়ে যানজট তৈরি হল। লালবাজারের যদিও দাবি, দক্ষিণ কলকাতার একাংশে মুখ্যমন্ত্রীর কনভয়ের রাস্তায় কিছু ক্ষণের জন্য যান নিয়ন্ত্রণ করা হলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিল।

এ দিন সকালে বাড়ি থেকে ইলেকট্রিক স্কুটারে চেপে হাজরা মোড়, শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি রোড, আশুতোষ মুখার্জি রোড, এক্সাইড মোড়, এ জে সি বসু রোড হয়ে নবান্নে গিয়েছিলেন তিনি। চালক ছিলেন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী তথা কলকাতা পুরসভার প্রশাসকমণ্ডলীর চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম। বিকেলে নবান্ন থেকে বাড়ি ফেরার পথে অবশ্য মুখ্যমন্ত্রীই বিদ্যাসাগর সেতুর টোল প্লাজ়ার কাছে সেই ইলেকট্রিক স্কুটার চালাতে শুরু করেন। হরিশ মুখার্জি রোডে এসে ফের চালকের আসনে বসেন তিনি।

পুলিশ সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রী ইলেকট্রিক স্কুটারে চেপে নবান্ন যাবেন এটা আগে ঠিক হলেও ট্র্যাফিক নিয়ন্ত্রণে আলাদা ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। যদিও স্থানীয়দের অভিযোগ, ভবানীপুর এলাকায় মুখ্যমন্ত্রী আসার অনেক আগেই তাঁর রুটের সংযোগকারী সব রাস্তায় যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করেছিল পুলিশ। পুলিশ সূত্রের দাবি, মুখ্যমন্ত্রী যে সব রাস্তা দিয়ে গিয়েছেন সেই পথে যান নিয়ন্ত্রণ করার ফলে সকাল-বিকেলের ব্যস্ত সময়ে গাড়ির স্বাভাবিক গতি বাধা পায়। বিকল্প রাস্তায় গাড়ি ঘুরিয়ে পরিস্থিতি সামলানো হয়। সকালে তাঁর যাওয়ার পথে হরিশ মুখার্জি রোড, আশুতোষ মুখার্জি রোড, এ জে সি বসু রোডের পূর্ব অংশে গাড়ির লম্বা লাইন ছিল। বিকেলে হেস্টিংসের দিক থেকে এজেসি বসু রোডের গাড়ি নিয়ন্ত্রণ করে পুলিশ। ফলে ফের বেলভেডিয়ার রোড, বিদ্যাসাগর সেতুতে গাড়ির গতি থমকায়। পুলিশের একটি সূত্রের খবর, সকালে মুখ্যমন্ত্রী যাওয়ার আগে বিজেপি সভাপতি জেপি নড্ডা এ জে সি বসু রোড উড়ালপুল দিয়ে নিউ টাউন থেকে হেস্টিংস যান। সে জন্য এক্সাইড মোড়-সহ কয়েকটি রাস্তায় গাড়ির গতি আটকায়। মুখ্যমন্ত্রীকে ইলেকট্রিক স্কুটার চালিয়ে আসতে দেখে বহু গাড়ি দাঁড়িয়ে পড়ে। ইলেকট্রিক স্কুটারের গতি কম থাকায় পিছনেও গাড়ি থমকে যায়। দ্রুত অবস্থা সামলে নেওয়া হয় বলে দাবি লালবাজারের।

Advertisement
Advertisement