Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

এক বার অনুমতি দিন মমতা, রথের দড়ি-চাকা কিছুই থাকবে না, বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ অভিষেকের

নিজস্ব সংবাদদাতা
০২ নভেম্বর ২০১৮ ১৮:৩৬
ধিক্কার মিছিলে হাঁটছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্ররা। ছবি: পিটিআই

ধিক্কার মিছিলে হাঁটছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্ররা। ছবি: পিটিআই

অসমের গণহত্যায় সরাসরি বিজেপির দিকেই অভিযোগের আঙুল তুললেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যয়। দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিংহ, মুকুল রায়রা হাত জোড় করে বাঙালিদের কাছে ক্ষমা না চাইলে নড়তে দেওয়া হবে না বিজেপির রথের চাকা। হাজরা মোড়ের বিক্ষোভ মঞ্চ থেকে শুক্রবার এমনই চ্যালেঞ্জ ছুড়লেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি। মঞ্চ থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি অভিষেকের অনুরোধ, ‘‘এক বার অনুমতি দিন, রথের ‘র’-ও থাকবে না, দড়িও থাকবে না, চাকাও থাকবে না।’’

তিনসুকিয়ায় পাঁচ জনের হত্যার ঘটনার পর শুক্রবার কলকাতা-সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিবাদ মিছিল করে তৃণমূল কংগ্রেস। যাদবপুর ৮-বি বাসস্ট্যান্ড থেকে মিছিল শুরু করে শেষ হয় হাজরা মোড়ে। সেখানেই সমাবেশ মঞ্চ থেকে বিজেপিকে নিশানা করে একের পর এক তোপ দাগেন অভিষেক। তিনি বলেন, ‘‘এখানে আমাদের দলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি রয়েছেন। তাঁর কাছে হাত জোড় করে অনুরোধ করছি। আমাদের নেত্রী আজ ফিরছেন। দরকার হলে তাঁর পায়ে গিয়ে পড়ব। অনুরোধ করব, আমাদের আর আটকে রাখবেন না। অসমে এই গণহত্যার জন্য দিলীপ ঘোষ, রাহুল সিংহরা যদি বাঙালিদের কাছে হাত জোড় করে ক্ষমা না চান, তা হলে আমরা বিজেপির রথের চাকা নড়তে দেব না।’’

আগামী মাসের গোড়াতেই রাজ্য জুড়ে রথযাত্রা শুরু করছে বিজেপি। সেই কর্মসূচি নিয়ে রাজনৈতিক উত্তেজনার পারদ চড়ছে। এই প্রসঙ্গে এ দিন অভিষেকের হুঁশিয়ারি, ‘‘আমাদের সৌজন্যকে ওরা দুর্বলতা ভাবছে। অনেক হয়েছে, আর সহ্য করা যাবে না।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসে সহদেবের একটাই প্রশ্ন,এবার তো বেঁচে গেলাম, এর পর...

এগিয়ে আসছে লোকসভা ভোট। তা নিয়ে তৃণমূল-বিজেপি চাপানউতোরও শুরু হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই। এ রাজ্য থেকে বিজেপির হেভিওয়েটরা প্রার্থী হতে পারেন, এমন জল্পনাও ছড়িয়েছে। সেই প্রসঙ্গে অভিষেকের কটাক্ষ, ‘‘তোরা যাঁকে খুশি নিয়ে আয়, নরেন্দ্র মোদীকে ধরে আন, অমিত শাহকে ধরে আন, রাজনাথকে আন, জেটলিকে আন, যদি জামানত জব্দ করতে না পারি, রাজনীতিতে আর থাকব না।’’

আরও পড়ুন: বাঙালি হত্যার প্রতিবাদে তিনসুকিয়ায় বন্‌ধ, চলছে সেনা অভিযান

অসমের ঘটনা নিয়ে অভিষেক বলেন, ‘‘আলফার দিকে আঙুল তোলা হচ্ছিল। কিন্তু তারা আজ প্রেস বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, এই নৃশংস বর্বরোচিত ঘটনার সঙ্গে তাদের যোগ নেই। আমি মনে করছি, এই ঘটনার পিছনে বিজেপির হাত আছে। কারা এই ঘটনা ঘটাল, তার তদন্ত হোক। সুপ্রিম কোর্টের নজরদারিতে তদন্ত হোক।’’

আরও পড়ুন: ‘তিনসুকিয়ার ঘটনায় আমাদের রক্তে ঠান্ডা স্রোত বয়ে যাচ্ছে’

সাম্প্রতিক সংঘাত-অস্থিরতা নিয়ে সিবিআই-এর উপর যে আর ভরসা নেই, তা-ও এ দিন বুঝিয়ে দিয়েছেন সাংসদ অভিষেক। মঞ্চে এ দিন বক্তব্য পেশ করেন ফিরহাদ হাকিম, পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত বক্সি, ডেরেক ও’ব্রায়েনরা। তাঁদের বক্তব্যেরও মূল সুর, এনআরসি এবং বিজেপির উস্কানিতেই তিনসুকিয়া কাণ্ড ঘটেছে।

আরও পড়ুন

Advertisement