×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ জুন ২০২১ ই-পেপার

হাসপাতালে পদ হারিয়ে মানস চুপ, ক্ষোভ দিলীপের

নিজস্ব সংবাদদাতা
মেদিনীপুর ও খড়্গপুর ১৫ মার্চ ২০১৭ ০০:০৮

গত বিধানসভা নির্বাচনে যিনি মানস ভুঁইয়ার বিরুদ্ধে লড়ে হেরেছিলেন, সেই তৃণমূল নেতা নির্মল ঘোষকেই সবং গ্রামীণ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান করল রাজ্য সরকার। ইতিমধ্যে এই নির্দেশিকা জেলায় এসে পৌঁছেছে। তা ব্লকেও পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

খড়্গপুরের হিজলি গ্রামীণ হাসপাতালের সভাপতির পদ থেকে স্থানীয় বিধায়ক, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকেও সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেখানে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে খড়্গপুর গ্রামীণের তৃণমূল বিধায়ক দীনেন রায়কে। এতে ক্ষুব্ধ দিলীপবাবু বলেন, “একেবারে দলীয় গণতন্ত্র চলছে। এই সরকার বুঝিয়ে দিচ্ছে তৃণমূলে যোগ না দিলে বিরোধীদের কোনও মর্যাদা দেওয়া হবে না। আর মানসবাবু তো তৃণমূলে গিয়েও কংগ্রেসের বেঞ্চে বসে কথা বলেন তাই হয়তো এই সিদ্ধান্ত।”

আরও পড়ুন: বিজয় হোলিতে বদলের বার্তা

Advertisement

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা জুড়েই গ্রামীণ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির নতুন চেয়ারম্যানের নাম ঘোষিত হয়েছে। গড়বেতা গ্রামীণ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান হয়েছেন বিধায়ক আশিস চক্রবর্তী, কেওয়াকোলে বিধায়ক শ্রীকান্ত মাহাতো, কেশিয়াড়িতে পরেশ মুর্মু, বেলদায় বিধায়ক প্রদ্যোত ঘোষ, দাঁতনে বিক্রম প্রধান, ডেবরায় বিধায়ক সেলিমা খাতুন, পিংলায় বিধায়ক সৌমেন মহাপাত্র, দাসপুরে বিধায়ক মমতা ভুঁইয়া, চন্দ্রকোনায় বিধায়ক ছায়া দোলুই, মেদিনীপুর সদরের দে-পাড়ায় বিধায়ক মৃগেন মাইতি। পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক গিরীশচন্দ্র বেরা বলেন, ‘‘রাজ্যের নির্দেশিকা সংশ্লিষ্ট ব্লকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।’’

Advertisement