×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

‘আক্রান্ত’ বিজেপি, কর্মীরা ঘরছাড়াও 

নিজস্ব সংবাদদাতা
মারিশদা০৩ ডিসেম্বর ২০২০ ০২:২৯
—ফাইল চিত্র

—ফাইল চিত্র

কাল খেজুরি তো আজ কাঁথি! তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়ের শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক অবস্থান নিয়ে মন্তব্যের রাতেই ফের তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষের অভিযোগ উঠল জেলায়।  

মঙ্গলবারই বিধায়ক তথা তৃণমূল নেতা শুভেন্দু অধিকারী এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বৈঠক হয়েছে। এর পরে রাতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠে কাঁথি-৩ ব্লকের ভাজাচাউলি এবং পার্শ্ববর্তী ভগবানপুর-২ ব্লকের অর্জুননগরের ভসলাগেড়িয়া। মঙ্গলবার রাতে ওই এলাকায় বিজেপি কর্মীদের বাড়ি, দোকান এবং বেশ কয়েকটি মোটরবাইক ভেঙে দেওয়া হয় অভিযোগ। ঘটনায় শাসকদলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন বিজেপি নেতৃত্ব। অভিযোগ, সারারাত ধরে বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মীর বাড়ি ভাঙচুর করা হয়। তৃণমূলের আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। কাঁথি-৩ ব্লক লাগোয়া  ভসলাগেড়িয়া গ্রামেও ওই কাণ্ড ঘটেছে। 

এ বিষয়ে বিজেপির কাঁথি সাংগঠনিক জেলা সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী বলেন, ‘‘তৃণমূলের ব্লক সভাপতি এবং তাঁর অনুগামীরা মিলে গোটা এলাকায় সন্ত্রাস রাজ  করতে চাইছেন। ওঁরাই রাতের অন্ধকারে বাড়ি বাড়ি গিয়ে হামলা চালিয়েছেন। দলীয় কর্মীদের বাড়ি থেকে প্রচুর জিনিসপত্র লুট করেছেন। আমাদের কয়েকটি কর্মীর পরিবার আতঙ্কে এলাকাছাড়া।’’ তবে এই ঘটনায় মারিশদা থানায় কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি বলে পুলিশ সূত্রে খবর। 

Advertisement

উল্লেখ্য, শুভেন্দুর মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরে তাঁর বিজেপি’তে যোগের জল্পনা ছড়ায়। এর পরে গত কয়েকদিনে খেজুরিতে তৃণমূলের উপরে বিজপি কর্মীদের হামলার অভিযোগ ওঠে। আক্রান্ত হন জেলা পরিষদের স্বাস্থ্য কর্মাধ্যক্ষ পার্থপ্রতিম দাস। পাল্টা অভিযোগ করেছিল বিজেপিও। যদিও সে সময় তৃণমূলের একাংশের অভিযোগ ছিল, বিজেপি নিয়, শুভেন্দু অনুগামীদের মদতেই এ ধরনের কাণ্ড ঘটানো হচ্ছে। মঙ্গলবার রাতে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছিলেন যে, শুভেন্দু তৃণমূলেই থাকছেন। ওই মন্তব্যের কয়েক ঘণ্টা পরেই গভীর রাতে বিজেপি কর্মীদের উপরে হামলার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। 

খেজুরির উত্তেজনা প্রসঙ্গে বিজেপি’র রাজ্য সভাপতি দীলিপ ঘোষ বলেন, ‘‘খেজুরিতে ঝগড়াটা নতুন নয়, পুরনো। লোকসভা ভোটের সময় ওখানে একই দিনে দু’বার আমার গাড়ি ভাঙা হয়েছিল। স্থানীয় বিধায়ক দাঁড়িয়ে থেকে গণ্ডগোল করেছিলেন। আমাদের লোকসভার দু’জন প্রার্থীকেই আক্রমণ করা হয়েছিল। এখন আমাদের কর্মীরা উত্তর দিচ্ছেন। ওঁদের লোকেরা ঠিকঠাক না হলে আমরা ঠিক করে নেব। পশ্চিমবঙ্গে দাদাগিরি করে কাউকে রাজনীতি করতে দেব না।’’   

মঙ্গলবারের ভাজাচাউলির ঘটনা অস্বীকার করে কাঁথি-৩ ব্লক তৃণমূলের সভাপতি নন্দ মাইতির দাবি, ‘‘বিজেপির নব্য এবং পুরাতন কর্মীদের গোষ্ঠী দ্বন্দ্বে এই অশান্তি।’’ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গ্রামীণ) বিদিত রাজ ভুনদেশ বলেন, ‘‘ভাজাচাউলি তে ঠিক কী ঘটেছে তা জানি না। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে পুলিশকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে বলব।’’

Advertisement