Advertisement
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২
Fire

ঘুমন্ত পুত্রবধূর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিলেন শ্বশুর-শাশুড়ি! অভিযোগ মুর্শিদাবাদে

আক্রান্ত তরুণীর বাড়ির লোকের অভিযোগ, সন্তান হওয়ায় তাঁর উপর শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন করতেন মেরিনার শ্বশুর লুৎফর শেখ এবং শাশুড়ি ফিরোজা বিবি। বৃহস্পতিবার রাতে তা চরমে ওঠে।

বৌমাকে পুড়িয়ে খুনের চেষ্টা।

বৌমাকে পুড়িয়ে খুনের চেষ্টা। প্রতীকী চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
বহরমপুর শেষ আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৮:৪৪
Share: Save:

সন্তান না হওয়ায় বৌমার গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগ উঠল শ্বশুর-শাশুড়ির বিরুদ্ধে। এই ঘটনা মুর্শিদাবাদের সাগরপাড়া এলাকার। স্ত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে জখম হয়েছেন স্বামীও। ডোমকল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই তরুণী। ঘটনার পর থেকে খোঁজ মিলছে না ওই তরুণীর শ্বশুর-শাশুড়ির।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বছর ছয়েক আগে সাগরপাড়ার খয়রামারি এলাকার বাসিন্দা লতিফ শেখের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল ডোমকলের মেহেদিপাড়ার বাসিন্দা মেরিনা বিবির। তাঁদের একটি সন্তান হয়েছিল। কিন্তু বছর দেড়েক আগে মৃত্যু হয় ওই সন্তানের। মেরিনার বাড়ির লোকের অভিযোগ, এর পর আর সন্তান না-হওয়ায় তাঁর উপর শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন করতেন মেরিনার শ্বশুর লুৎফর শেখ এবং শাশুড়ি ফিরোজা বিবি। বৃহস্পতিবার রাতে তা চরমে ওঠে বলে অভিযোগ।

মেরিনা বিবির বাবা আসমত আলির অভিযোগ, ‘‘আমার মেয়ের প্রথম সন্তান মারা যাওয়ার পর আর সন্তান না হয়নি। তা নিয়ে ওর উপর শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন করা হত। বৃহস্পতিবার রাতে মেরিনা যখন ঘরে শুয়েছিল তখন ওর শ্বশুর-শ্বাশুড়ি শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। চিৎকার শুনে পাশের ঘর থেকে ছুটে যান মেরিনার স্বামী লতিফ। লতিফ তাঁর স্ত্রীকে বাঁচানোর চেষ্টা করায় বাঁশ দিয়ে মেরে ফাটিয়ে দেওয়া হয় তাঁর মাথাও। স্থানীয়েরা ছুটে এসে উদ্ধার করে দু’জনকে।’’

লতিফকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। মেরিনাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় ডোমকল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। এর পর অভিযুক্ত লুৎফর এবং ফিরোজার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে পরিবার। মুর্শিদাবাদের জেলা পুলিশসুপার কে শবরী রাজকুমার জানিয়েছেন, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু চালাচ্ছে পুলিশ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.