Advertisement
০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

চার বছর স্বেচ্ছায় ঘরবন্দি মা-ছেলে

বুধবার গৃহবন্দি থাকা ওই কিশোরকে উদ্ধার করতে এসে ব্যর্থ হলেন চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটি এবং পুলিশ আধিকারিকেরা। বন্ধ ঘরেই ফিরে গেলেন মা-ছেলে।

আদর: মায়ের সঙ্গে পৃথ্বীরাজ। বুধবার। নিজস্ব চিত্র

আদর: মায়ের সঙ্গে পৃথ্বীরাজ। বুধবার। নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
শিলিগুড়ি শেষ আপডেট: ০৭ জুন ২০১৮ ০২:৩৬
Share: Save:

ছেলেটি পড়াশোনায় ভাল ছিল। পাড়ার আঁকা প্রতিযোগিতায় পুরস্কারও পেয়েছে। বুধবার গৃহবন্দি থাকা ওই কিশোরকে উদ্ধার করতে এসে ব্যর্থ হলেন চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটি এবং পুলিশ আধিকারিকেরা। বন্ধ ঘরেই ফিরে গেলেন মা-ছেলে।

Advertisement

শিলিগুড়ির ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের ঘটনা। মেঘনাদ সরণির জ্ঞানেন্দ্র ভানু ভবনে প্রায় চার বছর ধরে মায়ের সঙ্গে ঘরবন্দি ১৩ বছরের কিশোর পৃথ্বীরাজ ভৌমিক। জানা গিয়েছে, ৮ বছর আগে জামাই ষষ্ঠীতে জলপাইগুড়ি থেকে স্বামীর সঙ্গে শিলিগুড়িতে নিজের বাড়িতে আসছিলেন অনিন্দিতা ভৌমিক। হিলকার্ট রোডে পথ দুর্ঘটনায় মারা যান তাঁর স্বামী। তার পর থেকে শ্বশুরবাড়িতে ফিরে যাননি তিনি। শিলিগুড়িতে ছেলেকে নিয়ে মা-বাবার সঙ্গে থাকতে শুরু করেন। কয়েক বছরে মধ্যে মা-বাবাও গত হয়েছেন। বোনের বিয়ে হয় আগেই। তার পরে প্রায় চার বছর থেকে নিজের সন্তানকে নিয়ে স্বেচ্ছাবন্দি হয়ে আছেন অনিন্দিতাদেবী। জানা গিয়েছে, মহিলা দীর্ঘদিন ছেলেকে বন্দি করে রেখেছেন। ছেলেকে স্কুলেও যেতে দেন না। আত্মীয়েরা খবর নিতে এলে দরজা খোলেন না। চেনা কেউ বাড়িতে দেখা করতে গেলে ভিতর থেকেই কথা বলেন। তার পর থেকেই আত্মীয়-সহ স্থানীয়দের সন্দেহ হয়, অনিন্দিতাদেবী মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছেন।

খবর যায় চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটিতে। জলপাইগুড়ি চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটির এক আধিকারিক জানান, গত মাসে ওই মহিলাকে চিঠি দিয়ে সমস্যার কথা জানাতে বলেছিলেন। পুলিশকেও ঘটনার নজর রাখতে আধিকারিকেরা চিঠি দিয়েছেন বলে খবর। বুধবার চাইল্ড ওয়েল ফেয়ার আধিকারিকেরা পুলিশ-সহ স্থানীয় কয়েকজনকে নিয়ে ওই মহিলার বাড়িতে যান। অন্য দিনের মতোই দরজা খোলেননি অনিন্দিতাদেবী। আধিকারিকেরা দরজা ভেঙে দেওয়ার কথা বললে দরজা খোলেন। আধিকারিকেরা পৃথ্বীরাজকে কোরক হোমে পাঠানোর জন্য নিয়ে যেতে চাইলে মা অনিন্দিতা ছেলের সঙ্গে যেতে চান। পুলিশ মা এবং ছেলেকে বন্ধ ঘর থকে রাস্তায় নিয়ে এলেও হোমে পাঠাতে পারেনি।

পুলিশের দাবি, পৃথ্বীরাজকে হোমে পাঠানোর দায়িত্ব চাইল্ড ওয়েল ফেয়ারের। ওই কিশোরকে তাঁর মা ছাড়তে না চাওয়ায় পুলিশ নিয়ে যেতে অস্বীকার করে। রাস্তায় মা এবং ছেলে দোটানায় পরে গেলে স্থানীয়েরা ক্ষিপ্ত হন। তাঁরা মা ও ছেলেকে ঘরে ফিরে যেতে বললে তাঁরা ফিরে যান। জলপাইগুড়ি চাইল্ড ওয়েলফেয়ার আধিকারিক সোমনাথ ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘স্থানীয়েরাই গৃহবন্দি থাকার কথা জানিয়েছেন। পুলিশকে লিখিত ভাবে ওই কিশোরকে হোমে পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পুলিশ না নিয়ে গেলে আমরা আইনত ব্যবস্থা নেব।’’ পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই কিশোর এবং মা যেহেতু কেউ কাউকে ছেড়ে যাবে না। তাই মা’কে নিয়ে যেতে চাইছে না পুলিশ। স্থানীয় সমাজসেবী সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় জানান, ১৩ বছরের পৃথ্বীরাজ ভাল ছবি আঁকতো। দীর্ঘদিন থেকে মা ছেলেকে গৃহবন্দি করে রেখেছেন। আমরা সার্বিক উন্নতি চাই।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.