Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

ভোটের দিন সন্ত্রাসের আশঙ্কা মৌসমের

পুরভোটের দিন যত এগিয়ে আসছে, রাজ্যের শাসক দল ততই ক্ষমতা দখলের জন্য বেপরোয়া হয়ে উঠছে বলে অভিযোগ করলেন উত্তর মালদহের কংগ্রেস সাংসদ মৌসম বেনজির

নিজস্ব সংবাদদাতা
শিলিগুড়ি ১৮ এপ্রিল ২০১৫ ০২:৩২
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

পুরভোটের দিন যত এগিয়ে আসছে, রাজ্যের শাসক দল ততই ক্ষমতা দখলের জন্য বেপরোয়া হয়ে উঠছে বলে অভিযোগ করলেন উত্তর মালদহের কংগ্রেস সাংসদ মৌসম বেনজির নূর। শুক্রবার সকালে শিলিগুড়িতে দলের প্রা‌র্থীদের হয়ে প্রচারে এসে এমনই অভিযোগ করেছেন মৌসম। তাঁর বক্তব্য, ‘‘মালদহ থেকে শিলিগুড়ি সর্বত্র তৃণমূল ক্ষমতা দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। সর্বত্র সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করা হচ্ছে। আমাদের আশঙ্কা, ভোটের দিন তৃণমূল গোলমাল পাকাতে পারে।’’

সাংসদ জানান, মালদহে সন্ত্রাসের একাধিক অভিযোগ মিলেছে। জেলার পুলিশ সুপারের কাছে ও নির্বাচন কমিশনে জানানো হয়েছে। শিলিগুড়ির বিষয়গুলিও জেলা কংগ্রেস নেতারা দেখছেন। তিনি বলেন, ‘‘পুরভোট অবাধ ও শান্তিপূর্ণ হবে কি না তা নিয়ে আমাদের সন্দেহ রয়েছে। প্রার্থী, নেতারা প্রায় দিনই নানা অভিযোগ জানাচ্ছেন। তবে মানুষ নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারলে, কংগ্রেস সব জায়গায় ভাল ফল করবে। এখনও আমাদের রাজ্য নির্বাচন কমিশনের উপর ভরসা রয়েছে। তবে শেষ পর্যন্ত কমিশন কতটা সুষ্টুভাবে ভোট করতে পারবে তা নিয়ে সংশয়ও থেকেই যাচ্ছে। আর সর্বত্র পুলিশের একাংশের ভূমিকা পক্ষপাতমূলক। শাসক দলের কথায় পুলি‌শের কিছু অফিসার চলছেন।’’ তবে শিলিগুড়ির কোথায় কোথায় শাসক দল সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করছে, তা নিয়ে অবশ্য স্পষ্ট করে কিছু বলেননি কংগ্রেস সাংসদ।

এদিন দুপুর নাগাদ পুরসভার ৬ এবং ৭ নম্বর ওয়ার্ডে রোডশো করেন মৌসম। হুডখোলা জিপে ব্যান্ড পার্টি নিয়ে জেলা কংগ্রেস সভাপতি শঙ্কর মালাকার, জেলার সাধারণ সম্পাদক কুন্তল গোস্বামী এবং প্রার্থীদের নিয়ে তিনি কয়েক ঘন্টা প্রচার করেন। ডাঙিপাড়া, অহরিটোলা, মহানন্দাপাড়া, বিবেকানন্দ রোড, স্বামীনগর, কয়লাডিপো এলাকায় তিনি প্রচার চালান। কয়েক জায়গায় সাংসদকে দলীয় নেতাকর্মীরা ফুল ছিটিয়ে স্বাগত জানান। বিকালে ৩, ৪, ৩৯, ৪০ ওয়ার্ডেও তিনি একইভাবে রোডশো এবং জনসভা করেন। সাংসদ জানান, বিভিন্ন জায়গা থেকে বলা হচ্ছে শিলিগুডিতে না কি লড়াই তৃণমূলের সঙ্গে বামেদের হচ্ছে। এটা ঠিক নয়। আমি প্রচারে বার হয়ে মানুষের যা সাড়া পেয়েছি, তাতে কংগ্রেস এবার যথেষ্ট ভাল ফল করবে।

Advertisement

সম্প্রতি কংগ্রেসের মতই তৃণমূলের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ তুলেছেন বাম নেতারাও। সিপিএম নেতা তথা বামেদের মেয়র পদপ্রা‌র্থী অশোক ভট্টাচার্যের অভিযোগ, ‘‘শহরের বাইরে থেকে লোক এনে ভোটাদের ভয় দেখানো শুরু হয়ে গিয়েছে। তৃণমূল না করলে এনজেপিতে গাড়ির ব্যবসা করা যাবে না। ব্যবসায়ীদের সেলস ট্যাক্সের ভয়, সরকারি কর্মীদের বদলি এবং বেতন বৃদ্ধির ভয় দেখানো হচ্ছে। এসবই সন্ত্রাস।’’ অশোকবাবু জানান, ২৮ এবং ৪ নম্বর ওয়ার্ডেও ভয়, ভীতি, হুমকির রাজনীতি চলছে। ফ্লেক্স ছেঁড়া, পার্টি অফিস ভাঙচুরের ঘটনাও বন্ধ নেই। প্রয়োজনে আমরা মানুষকে নিয়ে গণপ্রতিরোধ করব।

কংগ্রেস এবং সিপিএমের অভিযোগ প্রসঙ্গে তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী গৌতম দেব পাল্টা বিরোধীদের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। তিনি বলেন ‘‘আসলে বিরোধীরা প্রচারে নেমেই হার নিশ্চিত তা বুঝে গিয়েছেন। তাই মিথ্যা, ভিত্তিহীন অভিযোগ করে বাজার গরম করতে চাইছেন।’’



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement