Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

কাল শহরে মোদী, বিক্ষোভের আশঙ্কায় যাতায়াতের রুট নিয়ে চিন্তায় এসপিজি

কলকাতা এবং বেলুড়ে মোদীর কর্মসূচির মাঝে বিক্ষোভের আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১০ জানুয়ারি ২০২০ ১৬:১৪
Save
Something isn't right! Please refresh.
এসপিজি নিরাপত্তায় নরেন্দ্র মোদী। ফাইল চিত্র।

এসপিজি নিরাপত্তায় নরেন্দ্র মোদী। ফাইল চিত্র।

Popup Close

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ)-সহ একাধিক ইস্যুতে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ, আন্দোলন চলেছে। উত্তেজনার এই আবহে শনিবার বিকেলে শহরে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কলকাতা এবং বেলুড়ে মোদীর কর্মসূচির মাঝে বিক্ষোভের আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। মোদীকে কালো পতাকাও দেখানো হতে পারে বলে গোয়েন্দা সূত্রে খবর। প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ (এসপিজি) সে কারণে প্রধানমন্ত্রীর সফরের নানা বিকল্প পথ তৈরি রেখেছে বলেই সূত্রের খবর।

কয়েক দিন আগেই শহরে পৌঁছে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা অফিসারেরা। প্রধানমন্ত্রীর সম্ভাব্য ‘রুট’ ঠিক করতে কলকাতা পুলিশের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক সেরেছেন তাঁরা। সেই সব সম্ভাব্য কয়েকটি পথে বিক্ষোভের আশঙ্কাও রয়েছে। সে কারণে প্রধানমন্ত্রীর যাত্রাপথের মধ্যে নদীপথের কথাও ভাবা হয়েছে। শুক্রবার সকাল থেকেই মিলেনিয়াম পার্ক এবং বেলুড় মঠের মধ্যে গঙ্গাবক্ষে চলছে নজরদারি। আঁটোসাঁটো করা হচ্ছে নিরাপত্তার বিষয়টি। কলকাতা পুলিশের অফিসারেরা ‘জেড স্কি’ নিয়ে টহল দিচ্ছেন। মিলেনিয়াম পার্কের অনুষ্ঠানের পর বেলুড় মঠে যদি প্রধানমন্ত্রী নদীপথে যান শনিবার, তা হলে ফেরি চলাচল নিয়ন্ত্রিত করা হবে। তবে সব কিছুই নির্ভর করছে আবহাওয়ার উপরে।

গোয়েন্দা সূত্রে খবর, শনিবার বিকেলে কলকাতা বিমানবন্দরে পৌঁছবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে ভিআইপি রোডে হয়ে মা উড়ালপুর দিয়ে বিবাদীবাগে আসতে পারেন তিনি। আবার বিমানবন্দর থেকে রেসকোর্সে হেলিকপ্টারে চেপেও আসার সম্ভাবনা রয়েছে তাঁর। গোয়েন্দাদের আশঙ্কা, সড়কপথে এলে যে কোনও জায়গায় বিক্ষোভের মুখে পড়তে পারেন তিনি। ফলে, রাস্তার দু’ধারে কলকাতা এবং বিধাননগর পুলিশের কড়া নজরদারি থাকবে। বিকেল সাড়ে ৫টা নাগাদ বিবাদীবাগ চত্বরে কারেন্সি বিল্ডিংয়ে পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের একটি প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে মিলেনিয়াম পার্কে হাওড়া সেতুর ‘লাইট অ্যান্ড সাউন্ড’ সূচনা করবেন। তার মাঝেও বিক্ষোভের আশঙ্কা রয়েছে। এসপিজি ছাড়াও, কলকাতা পুলিশের কমান্ডো বাহিনী-সহ পদস্থ কর্তারাও থাকবেন বলে সূত্রের খবর।

Advertisement

ওই অনুষ্ঠানের পর মোদী বেলুড় মঠে কী ভাবে যাবেন, তা নিয়েও বিশেষ পরিকল্পনা রয়েছে এসপিজি-র। হয়, মিলেনিয়াম পার্ক থেকে তিনি সড়ক পথে বেলুড় যাবেন। নয়তো, তাঁর জন্য থাকতে পারে বিকল্প জলপথও। সড়কপথে গেলে ঘিঞ্জি রাস্তা পেরিয়ে বালি ব্রিজ হয়ে যেতে হবে। তবে, মিলেনিয়াম পার্কের অনুষ্ঠান শেষ হতে রাত হয়ে যাবে। তাই নিরাপত্তার কথা ভেবে রাতে প্রধানমন্ত্রীকে জলপথে নিয়ে যাওয়া হবে কি না, তা নিয়ে চিন্তাভাবনা চলছে। বেলুড় থেকে রাতেই রাজভবনে ফিরবেন নরেন্দ্র মোদী।

শনিবার রাতে বিশ্রাম নিয়ে রবিবার বেলা ১১টা নাগাদ নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামের একটি অনুষ্ঠানে তাঁর যোগ দেওয়ার কথা। তার পর হয়তো প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টারে চেপে কলকাতা বিমানবন্দরে পৌঁছবেন। সড়কপথে যাওয়ার থেকে আকাশপথই বেশি নিরাপদ বলে মনে করছেন প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্ব থাকা এসপিজি। তবে, পরিস্থিতির উপর সব কিছু নির্ভর করবে।

এ দিন গুয়াহাটিতে ‘খেলো ইন্ডিয়া ইয়ুথ গেমস ২০২০’-র উদ্বোধন করার কথা ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। প্রধানমন্ত্রী অসম সফরে আসতে পারেন, এই খবর পেয়েই তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখানোর কথা ঘোষণা করেছিল অল অসম স্টুডেন্টস ইউনিয়ন(আসু)। পরে খেলো ইন্ডিয়া গেমসের চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার অবিনাশ জোশি জানিয়েছিলেন, তাঁরা প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানান। কিন্তু, তাঁদের মৌখিক ভাবে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী আসছেন না। এর আগে গত বছরের ১৫ থেকে ১৭ ডিসেম্বর গুয়াহাটিতে ইন্দো-জাপান শীর্ষ সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল। তা-ও শেষ পর্যন্ত এড়িয়ে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। বাতিল করে দেওয়া হয় ওই সম্মেলন।

ফলে কলকাতায় প্রধানমন্ত্রীর যাতায়াতের রুট নিয়ে এসপিজি-র চিন্তার কারণে তাঁর যাত্রাপথ সম্পূর্ণ ওলোটপালোটও হয়ে যেতে পারে।



Tags:
SPG Narendra Modi Kolkataএসপিজিনরেন্দ্র মোদী
Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement