Advertisement
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

নির্জন পথে ছিনতাই ছাত্রীর অ্যাডমিট কার্ড

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শান্তিনিকেতন থানার অন্তর্গত প্রান্তিক টাউনশিপের কাছে ছিনতাইয়ের ঘটনাটি ঘটে। বোনডাঙার বাসিন্দা সাথী শীল এ বার মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মাধ্যমিকের প্রথম দিনের বাংলা পরীক্ষা দিয়ে টিউশন নিয়ে একাই সাইকেলে বাড়ি ফিরছিল সাথী।

স্বস্তি: অ্যাডমিট কার্ড ফেরত পাওয়ার পরে মায়ের সঙ্গে সাথী। নিজস্ব

স্বস্তি: অ্যাডমিট কার্ড ফেরত পাওয়ার পরে মায়ের সঙ্গে সাথী। নিজস্ব

নিজস্ব সংবাদদাতা
বোলপুর শেষ আপডেট: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ০০:৪৩
Share: Save:

ফের ছিনতাই। এ বার খোয়া গেল অ্যাডমিট কার্ড। তবে বুধবার ওই ছাত্রী ইংরেজি পরীক্ষা দিতে পেরেছে। তাতে স্বস্তিতে পরীক্ষার্থী ও তার পরিবার। এ জন্য পর্ষদ ও প্রশাসনকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তাঁরা।

Advertisement

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শান্তিনিকেতন থানার অন্তর্গত প্রান্তিক টাউনশিপের কাছে ছিনতাইয়ের ঘটনাটি ঘটে। বোনডাঙার বাসিন্দা সাথী শীল এ বার মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মাধ্যমিকের প্রথম দিনের বাংলা পরীক্ষা দিয়ে টিউশন নিয়ে একাই সাইকেলে বাড়ি ফিরছিল সাথী। রাত সাতটাতেই নির্জন ছিল রাস্তা। হঠাৎ পিছন দিক থেকে দ্রুত গতিতে একটি মোটরবাইক এসে সাইকেলের সামনে থাকা স্কুল ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে চলে যায়। চিৎকার করলেও নির্জন রাস্তায় কারও সাহায্য মেলেনি। ওই ব্যাগের মধ্যে ছিল মাধ্যমিক পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড।

সাথী শিক্ষা নিকেতন আশ্রম কন্যা বিদ্যালয়ের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। সিট পড়েছে শৈলবালা বালিকা বিদ্যালয়ে। অ্যাডমিট কার্ড ছিনতাই হতেই আর দেরি করেনি তার পরিবার। শান্তিনিকেতন থানায় ব্যাগ এবং ব্যাগে থাকা মাধ্যমিকের অ্যাডমিট ছিনতাইয়ের কথা জানিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। পুরো বিষয়টি জানানো হয় স্কুলেও। শিক্ষা নিকেতন আশ্রম কন্যা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা অনিন্দিতা চন্দ্র সব শুনে তড়িঘড়ি বীরভূম জেলা মাধ্যমিক পরিদর্শক প্রলয় নায়েককে বিষয়টি জানান। প্রলয়বাবু পর্ষদের সঙ্গে কথা বলেন। তার পরেই সাথীর বাকি পরীক্ষাগুলি দেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। অ্যাডমিট হারানোর কোনও ব্যাপারে সঙ্গে সঙ্গে থানায় অভিযোগ জানানো, স্কুলকে জানানোর পরামর্শও দিয়েছেন তিনি। মেয়ে পরীক্ষা দিতে পারবে শুনে খুশি সাথীর মা জ্যোৎস্না শীল। জ্যোৎস্নাদেবীর কথায়, ‘‘আমি তো ভেবেছিলাম মেয়ে আর পরীক্ষাই দিতে পারবে না। ওর স্কুল, মধ্যশিক্ষা পর্ষদকে ধন্যবাদ জানাই।’’

এ দিকে, ছিনতাইয়ের ঘটনায় কোনও ভাবে রাশ টানা না যাওয়ায় স্থানীয় বাসিন্দাদের অনেকেই ক্ষুব্ধ। তাঁদের অভিযোগ, বারবার এই রাস্তায় ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এর পরেও পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না। সন্ধ্যার পর থেকেই ওই রাস্তায় কোনও পুলিশের পাহারা চোখে পড়ে না। যার জেরে আবারও এমন ছিনতাইয়ের ঘটনা। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মেয়েটির ব্যাগ বা স্কুল ব্যাগে থাকা অ্যাডমিট কার্ড, রেজিস্ট্রেশন কার্ড, বই, ঘড়ি কিছুই উদ্ধার হয়নি। তবে দ্রুত কিনারা করা যাবে বলে আশায় পুলিশ।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.