Advertisement
৩০ জানুয়ারি ২০২৩

ফের ডুবল লাঘাটা সেতু, মরসুমে দু’বার

ফের জলের তলায় চলে গেল লাভপুরের লা’ঘাটা সেতু। তার জেরে সিউড়ি-কাটোয়া সহ বিভিন্ন রুটের যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ! দুর্ভোগের মুখে স্থানীয় বাসিন্দা থেকে ওই পথের যাত্রীরা। কার্যত প্রাণ হাতে নিয়ে নদী পারপার করে গন্তব্যে পৌঁছতে হচ্ছে তাঁদের।

এখন ভরসা নৌকা। লাঘাটায় সোমনাথ মুস্তাফির তোলা ছবি।

এখন ভরসা নৌকা। লাঘাটায় সোমনাথ মুস্তাফির তোলা ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
লাভপুর শেষ আপডেট: ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬ ০১:২৭
Share: Save:

ফের জলের তলায় চলে গেল লাভপুরের লা’ঘাটা সেতু। তার জেরে সিউড়ি-কাটোয়া সহ বিভিন্ন রুটের যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ! দুর্ভোগের মুখে স্থানীয় বাসিন্দা থেকে ওই পথের যাত্রীরা। কার্যত প্রাণ হাতে নিয়ে নদী পারপার করে গন্তব্যে পৌঁছতে হচ্ছে তাঁদের।

Advertisement

এই দুর্ভোগ অবশ্য ওই এলাকার বাসিন্দাদের নতুন নয়। দীর্ঘ দিন ধরেই ফি বর্ষায় এক বা একাধিক বার ওই দুর্ভোগ পোহাতে হয় তাদের। কারণ কুঁয়ে নদীর উপরে নির্মিত সেতুটি এতই নিচু যে নদীতে জল বাড়লেই তা ডুবে যায়। তখন নৌকাই একমাত্র ভরসা। এ ভাবে পারপার হতে গিয়ে হতাহতেরও ঘটনা ঘটেছে। এই মরসুমে ইতিমধ্যেই দু’বার তলিয়েছে সেতু। মঙ্গলবার রাতে নদী জল বাড়ায় ফের একই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

বুধবার সকালে গিয়ে দেখা গেল চারটি নৌকায় চলছে পারাপার। নৌকা ধরার জন্যে বসেছিলেন লাভপুরের চৌহাট্টা হাইস্কুলের শিক্ষক নানুরের সজলেন্দু সাহা, বর্ধমানের মাসুন্দির বাসিন্দা সাঁইথিয়ার কেন্দুয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নারায়ণ চৌধুরীরা। তাঁদের প্রশ্ন, ‘‘প্রতি বছরই প্রাণ হাতে নিয়ে নদী পারাপার করতে হয়। কবে এই ভোগান্তি ঘুচবে বলতে পারেন?’’ একই প্রশ্ন লাভপুর কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী কীর্ণাহারের দেবযানী চক্রবর্তী, পারমিতা মুখোপাধ্যায়দেরও। এ দিন নদীতে জলের স্রোত এঁদের অনেকেরই নদী পার হতে সাহস হয়নি। অগত্যা ফিরতে হয়েছে বাড়ি। দেবযানীর কথায়, ‘‘এর আগেও দু’দিন নদীঘাট পর্যন্ত এসে ফিরে গিয়েছি। জানি না এর কত দিন এ ভাবে ফিরে যেতে হবে?’’ একই কারণে নদী-ঘাট পর্যন্ত পৌঁচ্ছেও বাড়ি ফিরতে হয়েছে নানুরের পাটনীলের মহম্মদ ইয়াসিন, গোপালনগরের আশিস মণ্ডলদের। সিউড়ি ডাক্তার দেখাতে যাওয়ার কথা ছিল তাঁদের। ফেরার পথে বললেন, ‘‘না ফিরে উপায় কি! কখন ফিরব তার কোনও ঠিক নেই। রাত হয়ে গেলে তো নদী সাঁতরে ফিরতে হবে!’’

এই এলাকায় সেতু নির্মাণের দাবি দীর্ঘ দিনের। ২০১০ সালে সেতুর শিলান্যাস করেন তদানীন্তন পূর্তমন্ত্রী ক্ষিতি গোস্বামী। পরে শাসকদলের নেতারাও বারবার সেতু নির্মাণের আশ্বাস দিয়েছেন বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি। সম্প্রতি বোলপুরে প্রশাসনিক বৈঠকে জেলার জন্যে একগুচ্ছ প্রকল্প ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এলাকার মানুষজনের আশা ছিল— সেই তালিকায় ঠাঁই পাবে লা’ঘাটার সেতুর কথা। কিন্তু কোথায় কি! হতাশ হয়েছিলেন অনেকেই। তৃণমূলেরই স্থানীয় দুই কর্মীর আক্ষেপ, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী এমন কিছু প্রকল্প ঘোষণা করেছেন, যার মধ্যে কয়েক’টির গুরুত্ব লা’ঘাটার সেতুর থেকে কম। সেগুলি পরেও করা যেত। কিন্তু কেন যে এটা উপেক্ষিতই থেকে গেল, কে জানে!’’

Advertisement

সভাধিপতি বিকাশ রায়চৌধুরী জানিয়েছেন, ওই সেতু নির্মাণের প্রস্তাব রাজ্যস্তরে পাঠানো হয়েছে। দ্রুত সাড়া মিলবে বলে তিনি আশাবাদী।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.