Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

মুসৌরিতে গণধর্ষণ শিলিগুড়ির তরুণীকে

নিজস্ব প্রতিবেদন
২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ ১৬:১৩

উত্তরাখণ্ডের মুসৌরিতে বন্ধুর খোঁজে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হলেন শিলিগুড়ির এক তরুণী। অভিযুক্ত ছয় জনের মধ্যে দু’জন রাজ্য পুলিশের হোমগার্ড। তাদেরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, গত বৃহস্পতিবার মুসৌরিতে যান শিলিগুড়ির বাসিন্দা বছর ছাব্বিশের এক তরুণী। স্থানীয় সুয়াকোলি এলাকার এক বেসরকারি গেস্ট হাউজে ওঠেন তিনি। পুলিশকে নির্যাতিতা তরুণী জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে মুসৌরিতে পৌঁছন তিনি। যে বন্ধুর খোঁজে তিনি সেখানে যান তাঁর সঙ্গে কোনও ভাবে যোগাযোগ করতে পারেননি ওই তরুণী। কিছু ক্ষণ মুসৌরির হাওয়া ঘরে বসে থাকেন ওই তরুণী। তখনই তাঁর কাছে এসে এক ব্যক্তি জানতে চান কেন তিনি সেখানে একা বসে আছেন। কিছু ক্ষণ পর তাঁর কাছে আসে খাকি পোশাক পরা এক ব্যক্তি। শিলিগুড়ির তরুণীকে ওই ব্যক্তিকে বলে তার সঙ্গে গাড়ি আছে, সে তাঁকে দেহরাদূন পৌঁছে দেবে। গাড়িতে উঠে পড়েন তরুণী। কিছু ক্ষণ পর গাড়িতে তাঁদের সঙ্গে যোগ দেয় আরও তিন যুবক। দেহরাদূনের বদলে গাড়িটি সুয়াকোলি হয়ে চলতে শুরু করে ধনৌল্টির দিকে। পথে একটি লজে নিয়ে গিয়ে তোলা হয় তরুণীকে। তাঁর অভিযোগ, যাতে তিনি কারোর সঙ্গে যোগাযোগ না করতে পারেন সে জন্য তাঁর ফোন কেড়ে নেওয়া হয়। হাতিয়ে নেওয়া হয় সঙ্গে থাকা হাজার বিশেক টাকাও।
খেপে খেপে তাঁর উপর নির্যাতন চালায় অভিযুক্তেরা। লজে ওই যুবকদের সঙ্গে যোগ দেয় আরও দুই যুবক। এর পর এক এক করে তাঁকে ধর্ষণ করে জনা ছয়েক যুবক। বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত চলে নারকীয়

এই নির্যাতন। ভোরের আলো ফুটতে কোনও ক্রমে অভিযুক্তদের হাত ছাড়িয়ে লজ থেকে বেরিয়ে আসেন ওই তরুণী। বিধ্বস্ত অবস্থায় বেরিয়ে আসেন তিনি। সেই সময় লজটির কাছেই গভীর খাদে উল্টে যায় একটি গাড়ি। গাড়ির চার আরোহীকে উদ্ধার করার জন্য ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে ছিলেন এক যুবক। তাঁর কাছে দৌড়ে যান ওই তরুণী। ওই যুবকের প্রচেষ্টাতেই মুসৌরি থানায় যোগাযোগ করেন তরুণী।

Advertisement

দেহরাদূনের ডিআইজি পুষ্পক জ্যোতি জানিয়েছেন, ‘তদন্ত শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই দু’জন হোমগার্ডকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি চার অভিযুক্তের খোঁজ চলছে। গণধর্ষণ এবং ডাকাতির অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন

Advertisement