×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

হোয়াইট হাউস ছেড়ে দেবেন জানালেন ডোনাল্ড ট্রাম্প, তবে দিলেন শর্তও

সংবাদ সংস্থা
ওয়াশিংটন২৭ নভেম্বর ২০২০ ১১:৪৭
বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প। ছবি: রয়টার্স।

বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প। ছবি: রয়টার্স।

ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু করতে বললেও এখনও পর্যন্ত পরাজয় স্বীকার করতে নারাজ আমেরিকার বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ইলেক্টরাল কলেজ যদি জো বাইডেনকে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিজয়ী ঘোষণা করে, তবেই হোয়াইট হাউস ছাড়বেন বলে জানিয়ে দিলেন তিনি। তবে জো বাইডেনকে আমেরিকার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে বেছে নেওয়া ভুল হবে বলেও জানাতে ভোলেননি ট্রাম্প।

ইলেক্টরাল ভোটের নিরিখে ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে বাইডেন। ডোনাল্ড ট্রাম্প যেখানে ২৩২ ইলেক্টরাল ভোট পেয়েছেন, সেখানে ৩০৬ ইলেক্টরাল ভোট রয়েছে বাইডেনের ঝুলিতে, যা জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ২৭০ ইলেক্টরাল ভোটের চেয়ে ঢের বেশি। শুধু তাই নয়, ট্রাম্পের চেয়ে প্রায় ৬০ লক্ষ বেশি পপুলার ভোটও পেয়েছেন তিনি।

কিন্তু এই সব হিসেব নিকেশ মানতে নারাজ ট্রাম্প। নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে, তার জন্যই বাইডেন এত ভোট পেয়েছেন বলে এখনও নিজের দাবিতেই অনড় তিনি। বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তা ফের এক বার নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে দেন তিনি। ট্রাম্প বলেন, ‘‘হার স্বীকার করা সত্যিই কঠিন। কারণ আমি জানি ভোটে ব্যাপক কারচুপি হয়েছে।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: কনকনে ঠান্ডায় জলকামান সহ্য করে দিল্লির কাছে কৃষকরা, রুখতে তৈরি পুলিশও​

তবে এখনও পর্যন্ত কারচুপির সপক্ষে কোনও প্রমাণ দিতে পারেননি ট্রাম্প বা তাঁর নির্বাচনী প্রচারের দায়িত্বে থাকা সংস্থা। আইনি পদক্ষেপ করতে গিয়েও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই খালি হাতে ফিরতে হয়েছে তাঁদের। তবে এ মাসেই আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রেসিডেন্ট বেছে নেবে ইলেক্টরাল কলেজ। সেখানে যদি আমেরিকার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাইডেনকে বেছে নেওয়া হয়, তা হলে কি হোয়াইট হাউস ছেড়ে দেবেন তিনি? উত্তরে ট্রাম্প বলেন, ‘‘অবশ্যই ছেড়ে দেব। আপনারা তা ভাল করেই জানেন। তবে ২০ জানুয়ারির মধ্যে অনেক কিছুই ঘটতে পারে।’’

আরও পড়ুন: আরব সাগরে ভেঙে পড়ল নৌসেনার মিগ ২৯-কে, খোঁজ চলছে পাইলটের

কিন্তু কোনও প্রমাণ ছাড়া বার বার কারচুপির অভিযোগ তোলা কতটা যুক্তিযুক্তি? এক সাংবাদিকের এই প্রশ্নে চটে যান ট্রাম্প। ওই সাংবাদিককে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘‘এ ভাবে কথা বলবেন না আমার সঙ্গে। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট আমি। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কখনও এ ভাবে কথা বলবেন না।’’ বাইডেনের শপথগ্রহণে তিনি যোগ দেবেন কি না, তা নিয়েও ধোঁয়াশা বজায় রেখেছেন ট্রাম্প। ২০২৪ সালের নির্বাচনে ফের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন কি না, এখনই তা নিয়ে ভাবছেন না বলে জানিয়েছেন।

Advertisement