Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০১ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

এস-৪০০: ভারতের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি নিয়ে মতবিরোধ ট্রাম্প প্রশাসনে

রাশিয়ার কাছ থেকে সর্বাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী ব্যবস্থা ‘এস-৪০০’ কেনার চুক্তিতে সই করার পর ভারতের বিরুদ্ধে আমেরিকা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা

সংবাদ সংস্থা
ওয়াশিংটন ০৭ অক্টোবর ২০১৮ ১৪:৪৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
দোটানায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প? ছবি- সংগৃহীত।

দোটানায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প? ছবি- সংগৃহীত।

Popup Close

রুশ অস্ত্রে ভরসা রেখে ভারত কার্যত, ফাটল ধরিয়ে দিয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনের অন্দরেই! রাশিয়ার কাছ থেকে সর্বাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী ব্যবস্থা ‘এস-৪০০’ কেনার চুক্তিতে সই করার পর ভারতের বিরুদ্ধে আমেরিকা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারি করবে কি না, তা নিয়ে মতবিরোধ দেখা দিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব জিম ম্যাটিস ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের মধ্যে।

তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের ‘চাবি’টা রয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্টের হাতেই। সেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে বোঝানোর ক্ষেত্রে কে বেশি সফল হল, ম্যাটিস না বোল্ট, তার ওপরেই নির্ভর করছে ভারতের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারির প্রশ্নটি। মার্কিন পণ্যে শুল্ক চাপানোর ব্যাপারে দিল্লির উৎসাহ দেখে হালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অবশ্য ভারতকে কিছুটা কটাক্ষ করে ‘টারিফ কিং’-এর তকমা দিয়েছেন।

মার্কিন কংগ্রেস সূত্রের খবর, ম্যাটিস চাইছেন, ভারতকে ‘নরম চোখে’ দেখা হোক। রাশিয়ার কাছ থেকে ‘এস-৪০০’ কেনার চুক্তি সই করার দায়ে ভারতের বিরুদ্ধে মার্কিন অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারি না হওয়াটাই শ্রেয়। পক্ষান্তরে, বোল্টন চাইছেন, ভারতের বিরুদ্ধে এখনই ওই নিষেধাজ্ঞা জারি হোক। বোল্টনের বক্তব্য, গত মাসেই যখন রুশ ‘এস-৪০০’ কেনার জন্য চিনের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে, তখন ভারতই বা ছাড় পাবে কেন? ম্যাটিসের সুবিধা, তুলনায় সুর ‘নরম’ হলেও, এ ব্যাপারে তাঁর পাশে রয়েছেন বিদেশসচিব মাইক পম্পায়োও।

Advertisement

আরও পড়ুন- ক্ষেপণাস্ত্রে বাধা নয় আমেরিকা, আশায় ভারত​

আরও পড়ুন- ভারতে রাজনৈতিক দলের ভোট-প্রচার খতিয়ে দেখবে ফেসবুক​

মার্কিন কংগ্রেসের এক রিপাবলিকান সদস্যের বক্তব্য, ম্যাটিস ভারতকে ছাড় দেওয়ার জন্য একটি অর্থনৈতিক যুক্তিও খাড়া করেছেন। সেটা হল, দিল্লিকে এ ব্যাপারে ছাড় দিয়ে মার্কিন পণ্য আমদানিতে ভারতকে শুল্ক-হ্রাসে বাধ্য করা হোক। তাতে আমেরিকার লাভ বই ক্ষতি হবে না। চিনের বাজার হারানোর ক্ষতি বরং ভারতের বাজার হাতে রেখে অনেকটাই পুষিয়ে নেওয়া যাবে।

মাসখানেক আগেই ভারত ও আমেরিকার বিদেশ ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের মধ্যে ‘টু প্লাস টু’ বৈঠকে স্বাক্ষরিত হয় ‘কাউন্টারিং আমেরিকা’জ অ্যাডভারসারিজ থ্রু স্যাংশানস্‌ অ্যাক্ট বা ‘ক্যাটসা’। যে চুক্তির অন্যতম শর্তই হল, ওই চুক্তি স্বাক্ষরকারীরা রাশিয়ার কাছ থেকে ‘এস-৪০০’ কিনতে পারবে না।

‘ক্যাটসা’য় সই করার ফলে সর্বাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র ও প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম পাওয়ার ক্ষেত্রে আমেরিকার কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি সুবিধা পায় যে দেশগুলি, ভারত তাদের তালিকায় চলে এল। যার মাধ্যমে ভারত ও আমেরিকা দু’টি দেশই বার্তা দিল চিনকে। সেই বার্তা আরও জোরালো হল রুশ ‘এস-৪০০’ কেনার জন্য চিনের বিরুদ্ধে আমেরিকা সেপ্টেম্বরে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারি করায়।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Tags:
S 400 Russia USএস ৪০০
Something isn't right! Please refresh.

Advertisement