×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জুন ২০২১ ই-পেপার

ইয়েমেন নিয়ে সৌদি রাজার সঙ্গে কথা মোদীর

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ও সানা ৩১ মার্চ ২০১৫ ০৩:৩২

ইয়েমেনে আটকে পড়া ভারতীয়দের উদ্ধার করতে সৌদি আরবের সঙ্গে শীর্ষ স্তরে যোগাযোগ করলেন নরেন্দ্র মোদী। আজ সৌদি রাজা সলমনের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর দফতর জানিয়েছে, ভারতীয়দের উদ্ধারের ব্যাপারে সব রকম সাহায্যের আশ্বাস দেন সলমন। ইয়েমেনে শিয়া হুথি জঙ্গিদের বিরুদ্ধে বিমান হানা চালাচ্ছে সৌদি আরব-সহ ১০টি দেশ।

আজ থেকে উদ্ধারকাজেও নতুন গতি আনার চেষ্টা করছে বিদেশ মন্ত্রক। এ দিনই জিবুতির দিকে দু’টি যাত্রীবাহী জাহাজ পাঠায় ভারত। সকালে কোচি বন্দর থেকে রওনা দেয় তারা। দু’টি জাহাজে সব মিলিয়ে অন্তত ১৫০০ যাত্রীর জায়গা হওয়ার কথা। পাশাপাশি আকাশপথে উদ্ধারের কাজ চালাতে এ দিন সানার দিকে রওনা দিয়েছিল এয়ার ইন্ডিয়ার দু’টি বিমান। তবে সেখানে প্রবল বোমাবর্ষণ চলতে থাকায় মাসকট বিমানবন্দরেই আটকে রয়েছে ওই বিমান দু’টি। আজ ফেরি পরিষেবার মাধ্যমে প্রায় ৪০০ ভারতীয়কে ইয়েমেনের আ়ডেন থেকে জিবুতিতে নিয়ে আসা গিয়েছে।

লক্ষদ্বীপ প্রশাসনের যে দু’টি জাহাজ এ দিন জিবুতির দিকে রওনা দিয়েছে, তাদের নাম এম ভি কাভারাত্তি ও এম ভি কোরালস। জিবুতিতে পৌঁছতে তাদের পাঁচ থেকে সাত দিন লাগার কথা। ওই দু’টি জাহাজকে সাহায্য করার জন্য ভারতীয় নৌবাহিনীর তিনটি জাহাজও গিয়েছে। গোটা উদ্ধার অভিযানের দায়িত্বে থাকা কোচি পোর্ট ট্রাস্ট জানিয়েছে, জাহাজে ডাক্তার, স্বাস্থ্য কর্মী সব মিলিয়ে প্রায় দেড়শো জনকে পাঠানো হয়েছে। যথেষ্ট পরিমাণ খাবার, ওষুধ ও জলও মজুত করা রয়েছে। এখনও পর্যন্ত তাদের গন্তব্য জিবুতি হলেও প্রয়োজন অনুযায়ী অন্য বন্দরেও নোঙর ফেলতে পারে তারা। আজ সকালেই এয়ার ইন্ডিয়ার প্রথম বিমানটি সানার দিকে রওনা দেয়। ১৮০ জন যাত্রী বহনে সক্ষম ওই বিমানের বিকেলের মধ্যে ফিরে আসার কথা ছিল। কিন্তু ইয়েমেনের পরিস্থিতি খারাপ হওয়ায় সানা পর্যন্ত পৌঁছতেই পারেনি সেটি। দ্বিতীয়টিরও একই হাল। এ দিন সকালে অবশ্য ইয়েমেনে কর্মরত কেরলের কিছু বাসিন্দা কোচি ফিরেছেন। তাঁদের মুখ থেকে ফের এক বার ভয়ঙ্কর ছবিটা উঠে এসেছে।

Advertisement

বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র সৈয়দ আকবরউদ্দিন ফের আশ্বস্ত করেন, ইয়েমেনে আটকে থাকা প্রায় চার হাজার ভারতীয়কে উদ্ধারের সব রকম চেষ্টা করছে সরকার। তবে আডেন দখলের লড়াই যে ভাবে বাড়ছে, তাতে সে জায়গা থেকে ভারতীয়দের দ্রুত সরানো জরুরি। তা নিয়ে আলোচনা করতেই তড়িঘড়ি সব মন্ত্রকের বৈঠক ডাকেন সুষমা স্বরাজ।

কূটনীতিকদের মতে, বিদেশ মন্ত্রক স্তরের পাশাপাশি সরাসরি সৌদি আরবের রাজার সঙ্গে কথা বলে ঠিক পদক্ষেপ করেছেন মোদী। কারণ, হুথি জঙ্গিদের উপরে বিমান হানার মাত্রা লাগাতার বা়ড়িয়ে যাচ্ছে আরব দেশগুলি। এ দিনও বিমানহানায় উত্তর-পশ্চিম ইয়েমেনের এক ক্যাম্পে প্রায় ৪৫ জন নিহত হয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে এক মাত্র রাজা সলমনই আশ্বাস দিতে পারেন।

Advertisement