×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৯ মে ২০২১ ই-পেপার

বিদায়বেলায় মেলানিয়া-স্পর্শ

বড়দিনের সাজে হোয়াইট হাউস

সংবাদ সংস্থা
ওয়াশিংটন ০২ ডিসেম্বর ২০২০ ০৬:২০
হোয়াইট হাউসে নিজের এই ছবি টুইট করেছেন মেলানিয়া।

হোয়াইট হাউসে নিজের এই ছবি টুইট করেছেন মেলানিয়া।

স্বামীকে হার মেনে নেওয়ার পরামর্শ আগেই দিয়েছিলেন আমেরিকান ফার্স্ট লেডি। বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তবু নাছোড়বান্দাই। এ দিকে একের পর এক মামলায় ‘ভোট চুরি’ নিয়ে তাঁর অভিযোগ খারিজ হয়ে যাচ্ছে আদালতে। লাগাতার এই টানাপড়েনের মধ্যেই তবু আসন্ন বড়দিন উপলক্ষে শেষ বারের মতো হোয়াইট হাউস সাজালেন ট্রাম্প-পত্নী মেলানিয়া। কোথাও আলো-আঁধারি, কোথাও ঝলমলে। গত কাল তাঁরই ভিডিয়ো-টুইট থেকে হোয়াইট হাউসের নয়া সাজ দেখল গোটা দুনিয়া।

বিদায়বেলায় মেলানিয়া থিম বাছলেন— ‘আমেরিকা দ্য বিউটিফুল’। ট্রাম্পের ‘মেক আমেরিকা গ্রেট’ স্লোগানের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই তাতে জাতীয়তাবোধের ছাপ স্পষ্ট। ইস্ট রুম থেকে থেকে শুরু করে রোজ় গার্ডেন, সব হলঘর থেকে বারান্দা— ১২৫ জন স্বেচ্ছাসেবীকে দিয়ে নিজের মনের মতো করে সাজালেন ফার্স্ট লেডি। করোনা-মোকাবিলা নিয়ে ভোটের আগে-পরে বারবার কাঠগড়ায় উঠেছে ট্রাম্প প্রশাসন। অভিযোগ, নিজে সংক্রমিত হওয়ার আগে পর্যন্ত করোনাকে সে ভাবে পাত্তা দেননি প্রেসিডেন্ট। মাস্ক পরাতেও তাঁর তীব্র অনীহা। মেলানিয়ার মস্তিষ্কপ্রসূত রেড রুমের সাজে কিন্তু উঠে এল প্রথম সারির করোনা-যোদ্ধাদের কথা। নজরে এল, এক কোণে বরফে মোড়া হাসপাতালের আদল। ভিডিয়োর সঙ্গেই মেলানিয়া লিখলেন, ‘‘বছরের এই সময়টা একেবারেই অন্য রকম। আসুন আমরা সবাই দেশের জন্য গর্ব বোধ করে উৎসবে মেতে উঠি।’’

২০ জানুয়ারি শপথ নিয়ে হোয়াইট হাউসে আসার কথা বাইডেনদের। তার আগে এ বার কেমন উৎসব হবে বড়দিনে? ভোটের ঠিক মুখে রোজ় গার্ডেনের এক অনুষ্ঠানে বেপরোয়া ভিড়ের কারণেই একাধিক সংক্রমণের খবর মিলেছিল হোয়াইট হাউসে। আক্রান্ত হয়েছিল খোদ প্রেসিডেন্টের পরিবারও। তবে এ বার বড় জমায়েত হবে না বলেই জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। সূত্রের খবর, আমন্ত্রিতের তালিকায় অনেক কাটছাঁট করা হয়েছে। অনুষ্ঠানের দিন জায়গায় জায়গায় থাকবে স্যানিটাইজ়ার। অতিথি আপ্যায়ণে স্বাস্থ্যবিধির দিকেও থাকবে বিশেষ নজর। তবে বিদায়ী প্রেসিডেন্ট এবং ফার্স্ট লেডি এ বার দু’টি আলাদা পার্টির আয়োজন করছেন বলে জানা গিয়েছে। আলাদা পার্টি কেন? তা নিয়েও প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। তা হলে কি হোয়াইট হাউস ছাড়ার পরে ট্রাম্প-মেলানিয়ার বিচ্ছেদই ভবিতব্য— ফের শুরু হয়েছে জল্পনা।

Advertisement

অন্যান্য বার বড়দিনে হোয়াইট হাউস সাজাতে অংশ নেন ২০০-রও বেশি স্বেচ্ছাসেবী। এ বার সংক্রমণের কথা মাথায় রেখেই সংখ্যাটা কমানো হয়েছিল। তাতে অবশ্য আয়োজনে ঘাটতি নেই। মেলানিয়ার অফিস সূত্রের খবর, ছোট-বড় মিলিয়ে মোট ৬২টি ক্রিসমাস ট্রি, ১২০০ ফুটের মালা, ৩২০০ আলোয় সাজানো হয়েছে হোয়াইট হাউস। একটি ঘর সাজানো হয়েছে কেনেডি-থিমে।

সাড়ে আঠারো ফুটের মূল ক্রিসমাস ট্রি মেলানিয়ার অর্ডারে গত সপ্তাহেই ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া থেকে এসে গিয়েছিল হোয়াইট হাউসে। সেটি স্থান পেয়েছে ব্লু রুমে। সাজানো হয়েছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের শিশুদের হাতে তৈরি শিল্পকলা দিয়ে। মজার সাজ নজরে এল ইস্ট রুমেও। শূন্যে ঝুলছে প্লেন, অটোমোবাইল আর ‘হোয়াইট হাউস এক্সপ্রেস’ ট্রেন।

Advertisement