উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে ভারত বেশ কিছু পণ্য বিনা শুল্কে আমেরিকায় রফতানির সুযোগ পেত। যে ব্যবস্থার পোশাকি নাম জেনারালাইজড সিস্টেম অব প্রেফারেন্সেস (জিএসপি)। গত জুনে ভারতের উপর থেকে সেই সুবিধা প্রত্যাহার করে আমেরিকা। ট্রাম্প প্রশাসনের এই পদক্ষেপ নিয়ে আপত্তির সুর চড়ছিল আমেরিকার বিভিন্ন মহলেই। এ বার খাস মার্কিন কংগ্রেসের ৪৪ জন সদস্য প্রশাসনের কাছে আর্জি জানালেন, ভারতের সেই সুবিধা পুনর্বহাল করা হোক। দু’দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কের উন্নতির জন্যই এই পদক্ষেপ প্রয়োজন। 

জিএসপির ফলে আমেরিকার বাজারে প্রায় ২,০০০ পণ্য বিনা শুল্কে রফতানির সুবিধা পেত ভারত। সুবিধা প্রত্যাহারের পরে ভারতও ২৮টি মার্কিন পণ্যে আমদানি শুল্ক বাড়িয়েছে। মার্কিন শিল্পের বক্তব্য, এর ফলে অতিরিক্ত দাম আদতে গুনতে হচ্ছে সে দেশের ক্রেতাদেরই।

আমেরিকা সফরে গিয়ে সে দেশের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শিল্প মহলের আশা, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য নিয়েও দু’দেশের মধ্যে কথা হবে। বৈঠকের বিষয়বস্তু নিয়ে দু’দেশের প্রশাসনিক কর্তাদের মধ্যে প্রাথমিক আলোচনাও হয়েছে। এই প্রেক্ষিতেই মার্কিন কংগ্রেস প্রতিনিধিদের চিঠি তাৎপর্যপূর্ণ। 

এ দিকে, চিনের সঙ্গে বাণিজ্য চুক্তির ব্যাপারে আশাবাদী ট্রাম্প। তাঁর বক্তব্য, পরের বছর আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে কিংবা তার ঠিক পরেই সেই চুক্তি হতে পারে। আর নির্বাচনের পরে হলে সেই চুক্তি আমেরিকার স্বার্থ রক্ষার দিক থেকে অন্য মাত্রার হবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। অক্টোবরেই আলোচনায় বসতে চলেছেন দু’দেশের প্রতিনিধিরা।