বিএসএনএল পুনরুজ্জীবনের কথা কেন্দ্র গুরুত্ব দিয়েই ভাবছে। রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম সংস্থাটির ঝাঁপ বন্ধ করা নিয়ে সম্প্রতি ছড়ানো জল্পনার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার এই আশ্বাস বিএসএনএল কর্তৃপক্ষের। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের নেতৃত্বাধীন মন্ত্রিগোষ্ঠীর সুপারিশের পরেও সংস্থার পুনরুজ্জীবন নিয়ে একগুচ্ছ আপত্তি তুলেছে অর্থ মন্ত্রক। প্রধানমন্ত্রীর দফতরও ভারপ্রাপ্ত উচ্চ পর্যায়ের কমিটির কাছে জানতে চেয়েছে আর্থিক সঙ্কটে জর্জরিত বিএসএনএল এবং এমটিএনএলকে চাঙ্গা করা আদৌ সম্ভব কি না। আর এ সবের জেরে বাজারে জল্পনা ছড়িয়েছে, কেন্দ্র বিএসএনএল বন্ধ করার কথা ভাবছে। তার পরেই কর্মী ও অফিসারদের সংগঠনগুলি বিষয়টি তাঁদের কাছে খোলসা করার দাবি তোলে। বিএসএনএল এ দিন এক বিবৃতিতে বলেছে, স্বেচ্ছাবসর প্রকল্প (ভিআরএস), ৪জি স্পেকট্রাম দেওয়া, সম্পত্তি থেকে আয়ের ক্ষেত্রে অনুমোদন-সহ সংস্থাকে চাঙ্গা করার কথাও বিবেচনা করছে সরকার। 

পুনরুজ্জীবনের জন্য কেন্দ্রীয় অর্থ সাহায্যের দাবি জানিয়েছে সিটুর রাজ্য কমিটি। অভিযোগ, বিএসএনএলের পরিকাঠামো থাকা সত্ত্বেও বেসরকারি সংস্থাগুলিকে সুবিধা পাইয়ে দিতে তাদের ৪জি পরিষেবা চালু করতে দেওয়া হয়নি। সংস্থাটির ঠিকা কর্মীদের বকেয়া বেতনও অবিলম্বে মেটানোর দাবি জানিয়েছে তারা।