• নিজস্ব প্রতিবেদন 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চন্দাকে জিজ্ঞাসাবাদ ভোর চারটে পর্যন্ত

Chanda Kochhar
চাপে: শনিবার মুম্বইয়ে ইডির দফতরে ঢোকার আগে চন্দা। ছবি: রয়টার্স।

Advertisement

শুক্রবার মহারাষ্ট্রের পাঁচটি জায়গায় তল্লাশির পরে শুরু হয়েছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) জিজ্ঞাসাবাদ। সূত্রের খবর, সেই জিজ্ঞাসাবাদ চলে রাতভর। শনিবার ভোর ৪টে নাগাদ নাকি মুম্বইয়ে ইডির দফতর থেকে বেরিয়ে আসেন আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের প্রাক্তন সিইও চন্দা কোছর। এর কয়েক ঘণ্টা পরে এ দিন দুপুরের দিকে ফের চন্দাকে ডেকে পাঠায় ইডি। চলে আরও এক দফা জিজ্ঞাসাবাদ। চন্দার পাশাপাশি জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় তাঁর স্বামী দীপক কোছরকেও। আধ ঘণ্টা পরে চন্দা বেরিয়ে গেলেও দীপক তখনও ছিলেন ইডির দফতরে। সূত্রের খবর, একই সময়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলে ভিডিয়োকন গোষ্ঠীর অন্যতম প্রোমোটার বেণুগোপাল ধুতেরও। যিনি আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের ঋণ-কাণ্ডের অপর অভিযুক্ত।

স্টেট ব্যাঙ্কের নেতৃত্বাধীন ঋণদাতাদের একটি গোষ্ঠী প্রায় ৪০,০০০ কোটি টাকা ঋণ দিয়েছিল ভিডিয়োকন গোষ্ঠীকে। এর একটি অংশ অনুৎপাদক সম্পদে পরিণত হয়। এর মধ্যে আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের ৩,২৫০ কোটি টাকা অনাদায়ি ঋণ নিয়েই যাবতীয় বিতর্ক। অভিযোগ, দীপকের সংস্থাকে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার বিনিময়ে ভিডিয়োকন গোষ্ঠীকে ওই ঋণ পেতে সাহায্য করেছিলেন চন্দা।

ঋণের একটি কিস্তি (২০০ কোটি টাকা) মঞ্জুরের পর দিনই দীপকের সংস্থা নিউপাওয়ার রিনিওয়েবেলসে ৬৪ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন ধুত। তদন্তে নেমে এ বছরের গোড়ায় চন্দা, দীপক, ধুত-সহ কয়েক জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ইডি। সম্প্রতি লুক আউট নোটিস জারি হয়েছে প্রধান তিন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে। 

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন