Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৬ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

আশ্বাস কই? তোপ কংগ্রেসের

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ১২ অক্টোবর ২০১৯ ০১:৪৫
—ফাইল চিত্র।

—ফাইল চিত্র।

আর্থিক প্রতারণার শিকার পঞ্জাব অ্যান্ড মহারাষ্ট্র কোঅপারেটিভ (পিএমসি) ব্যাঙ্কের ক্ষুব্ধ গ্রাহকদের সঙ্গে গতকালই দেখা করেছিলেন অর্থমন্ত্রী। কিন্তু তাঁদের ব্যাঙ্কের টাকা ফেরত পাওয়া নিয়ে পুরোপুরি আশ্বস্ত করতে পারেননি। আজ সেই গ্রাহকদের পাশে দাঁড়িয়েই মোদী সরকারকে বিঁধল কংগ্রেস। টুইটে সরব হলেন প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরা।

কংগ্রেসের অভিযোগ, ‘‘অর্থমন্ত্রী হিসেবে নির্মলা সীতারামন গ্রাহকদের আশ্বস্ত করে বলতে পারলেন না, সরকার পাশে আছে। কারও এক পয়সা ডুববে না। বরং কেন্দ্রের পুরো দায় ঝেড়ে তা চাপালেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের উপর। গভর্নরের সঙ্গে কথা বলবেন বলেই ক্ষান্ত হলেন।’’ দিল্লিতে এআইসিসি দফতরে কংগ্রেসের মুখপাত্র গৌরব বল্লভ বিজেপির সঙ্গে যুক্ত পিএমসি ব্যাঙ্কের ১২ জন ডিরেক্টরের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। দাবি করেন, টাকা তোলার সীমা তুলতে হবে। কোনও অভিযুক্ত যাতে বিদেশে পালাতে না পারেন, নিশ্চিত করতে হবে তা-ও। ওই ব্যাঙ্ক থেকে গ্রাহকদের টাকার তোলার ঊর্ধ্বসীমা ছ’মাসে ২৫,০০০ টাকায় বেঁধেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক।

প্রিয়ঙ্কাও গ্রাহক ভোগান্তির ভিডিয়ো পোস্ট করে টুইট করেছেন, ‘‘এ হল সাধারণ মানুষের যন্ত্রণা। পিএমসি ব্যাঙ্কে মেহনতের টাকা ডুবে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন এঁরা। এক দিকে কেন্দ্র ধনীদের ৭৬ হাজার কোটি টাকা ঋণ মাফ করছে, অন্য দিকে পিএমসি গ্রাহককে নিজের অর্থ পেতেই রাস্তায় দৌড়তে হচ্ছে। জালিয়াতরা আরামে, আমজনতা পরিশ্রান্ত।’’ গত মার্চের হিসেবে, স্টেট ব্যাঙ্ক ঋণ খেলাপীদের মোট ৭৬ হাজার কোটি টাকার অনাদায়ি ঋণ হিসেবের খাতা থেকে মুছে ফেলেছে বলে জানিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক।

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement