×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৪ জুন ২০২১ ই-পেপার

লড়াই শুরু আদালতেই

নিজস্ব প্রতিবেদন
২১ ডিসেম্বর ২০১৬ ০২:৫৮

যুদ্ধের দামামা বেজেছিল গত ২৪ অক্টোবর, সাইরাস মিস্ত্রিকে টাটা সন্স তার মাথা থেকে সরিয়ে দেওয়ার দিনেই। আর, মিস্ত্রি টাটা গোষ্ঠীর সব পদ ছেড়ে ‘বড় লড়াইয়ে’ নামার কথা বলার একদিনের মধ্যেই আদালতের দরজায় পা দিল তাঁর পরিবার নিয়ন্ত্রিত দু’টি বিনিয়োগ সংস্থা।

লড়াইয়ে নামতে তারা যে তৈরি, তা পাল্টা বিবৃতিতে জানিয়ে দিয়েছে টাটা সন্স-ও। তাদের অভিযোগ, কর্ণধার হিসেবে ফিরে আসা রতন টাটার বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত ‘শত্রুতা’রই জের এই মামলা।

শেয়ার বাজারে নথিভুক্ত টাটা গোষ্ঠীর ছ’টি সংস্থার পর্ষদ থেকে সোমবারই সরে দাঁড়িয়েছেন মিস্ত্রি। এর জেরে টিসিএস, ইন্ডিয়ান হোটেলস, টাটা স্টিল, টাটা মোটরস, টাটা পাওয়ার ও টাটা কেমিক্যালস পর্ষদে ডিরেক্টর পদ ছেড়ে দিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবারই তাঁর পরিবার পরিচালিত দু’টি লগ্নি সংস্থা সাইরাস ইনভেস্টমেন্টস প্রাইভেট লিমিটেড এবং স্টার্লিং ইনভেস্টমেন্টস কর্পোরেশন। মুম্বইয়ে জাতীয় কোম্পানি আইন ট্রাইব্যুনাল (এনসিএলটি)-এ মামলা দায়ের করেছে শাপুরজি-পালোনজি গোষ্ঠীর এই দুই সংস্থা। বিপক্ষে রয়েছেন টাটা ট্রাস্টস-এর ট্রাস্টি-রা ও টাটা সন্সের ডিরেক্টররা।

Advertisement

২০১৩-র কোম্পানি আইনের ২৪১ ও ২৪২ ধারায় আনা মামলায় মিস্ত্রির পরিবারের হাতে থাকা সংস্থাগুলির মূল অভিযোগ: টাটা গোষ্ঠীতে বাইরের হস্তক্ষেপ, খারাপ পরিচালনা, বিভিন্ন পক্ষের মতামত গ্রাহ্য না-করা ও ছোট শেয়ারহোল্ডারদের স্বার্থ না-দেখা। ট্রাইব্যুনালের কাছে মিস্ত্রির দাবি:

১) টাটা সন্সে এখন ক্ষমতায় থাকা পরিচালন পর্ষদ ভেঙে দেওয়া হোক।

২) তার বদলে তাদের প্রতিদিনের কাজকর্ম দেখভালের জন্য নিয়োগ করা হোক প্রশাসক।

৩) সুপ্রিম কোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিকে নন-এগ্‌জিকিউটিভ চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হোক।

৪) অন্তর্বর্তী চেয়ারম্যান রতন টাটার পর্ষদের বৈঠকে যোগ দেওয়া বন্ধ হোক।

৫) টাটা সন্সে টাটা ট্রাস্টস-এর ট্রাস্টিদের ভুমিকা নিয়ে তদন্ত চলুক।

৬) ফরেনসিক অডিটের জন্য স্বাধীন অডিটর নিয়োগ।

৭) মিস্ত্রির জায়গায় নতুন চেয়ারম্যান খুঁজতে যে-কমিটি গড়া হয়েছে, সেটিকে অকোজো করে নতুন কমিটি গড়া, যাতে সিলমোহর দেবে ট্রাইব্যুনাল।

• টাটা সন্সের বিরুদ্ধে মামলা জাতীয় কোম্পানি আইন ট্রাইব্যুনালে • অভিযোগ দায়ের মিস্ত্রির পরিবার নিয়ন্ত্রিত দু’টি লগ্নি সংস্থার • মিস্ত্রির দাবি, ট্রাইব্যুনাল টাটা সন্সের পর্ষদ ভেঙে প্রশাসক নিয়োগ করুক • সব বৈঠকে রতন টাটার আসা বন্ধ হোক • লড়াইয়ে কোমর বাঁধছে টাটা সন্স • প্রথম শুনানি আগামী কাল

পাশাপাশি, টাটা সন্স জানিয়েছে, এই মামলায় সামিল হতে তারা আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ শুরু করেছে। পরিচালনায় অদক্ষতা নিয়ে মিস্ত্রির অভিযোগের বিপক্ষে তাদের দাবি, এ ব্যাপারে উঁচু মানের আদর্শের পথেই হাঁটে টাটারা। টাটা গোষ্ঠী ও তার প্রতিষ্ঠাতা জামশেদজি টাটার পরম্পরা যে-মিস্ত্রি পুরোপুরি অগ্রাহ্য করেছেন, এই মামলা তারই দুর্ভাগ্যজনক পরিণতি।

মামলার প্রথম শুনানি বৃহস্পতিবার। এনসিএলটি একটি আধা বিচারবিভাগীয় প্রতিষ্ঠান, যাদের কাজ ভারতে শিল্প সংস্থাগুলির অভিযোগ খতিয়ে দেখা।

মিস্ত্রির আগেই অবশ্য আইনি পথে হেঁটেছেন গোষ্ঠীর বিভিন্ন সংস্থায় স্বাধীন ডিরেক্টর হিসেবে থাকা শিল্পপতি নুসলি ওয়াদিয়া। নিজের থেকে গোষ্ঠী ছাড়ছেন না মিস্ত্রি ‘সমর্থক’ ওয়াদিয়া। তিনি ইতিমধ্যেই ৩ হাজার কোটি টাকার মানহানির মামলা করেছেন রতন টাটা, টাটা সন্স ও কিছু ডিরেক্টরের বিরুদ্ধে।

Advertisement