• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মার্চ থেকে নয়া বিধি কেব্‌ল-ডিটিএইচে, দাবি চ্যানেল বাছাই, খরচে স্বচ্ছতা বৃদ্ধির

DTH
ছবি: সংগৃহীত

গ্রাহকদের পছন্দের চ্যানেল বেছে নেওয়ার সুযোগ বাড়াতে এক বছর আগে কেব্‌ল ও ডিটিএইচ পরিষেবায় নতুন নিয়ম চালু করেছিল নিয়ন্ত্রক ট্রাই। শুরুতে এ নিয়ে নানা বিভ্রান্তি ও আপত্তি জেরে শেষ পর্যন্ত তা কার্যকর হয় গত বছর ফেব্রুয়ারিতে। কিন্তু তার পরেও পছন্দের চ্যানেল দেখার সুযোগ পাওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বুধবার সেই নিয়মই সংশোধন করে ট্রাইয়ের দাবি, ১ মার্চ থেকে পছন্দের চ্যানেল বেছে নেওয়ার সুবিধা আরও বাড়বে। সস্তা হবে টিভি দেখার খরচও। 

এ দিন বর্তমান বিধিই ফের কিছুটা সংশোধন করে বিভিন্ন ধরনের মাসুল সংক্রান্ত নতুন নিয়ম ঘোষণা করেছে ট্রাই। তাতে চ্যানেল দেখার পরিসর (নেটওয়ার্ক ক্যাপাসিটি বাড়ানো হয়েছে। কমছে সেই খরচও। সংশোধিত বিধিতে এক বাড়িতে একজনের নামে একাধিক সংযোগ থাকলে দ্বিতীয় সংযোগের ক্ষেত্রে সেই খরচেও রাশ টানা হয়েছে। গুচ্ছ বা প্যাকেজের (বোকে) মাসুল নির্ধারণের ক্ষেত্রে এমন ভাবে হিসেব কষার কথা 

বলা হয়েছে যাতে, চ্যানেলের দাম কমবে বলেই ইঙ্গিত। চ্যানেল সংস্থাগুলির খরচ কমাতে গ্রাহকের কাছে পৌঁছোনোর জন্য এমএসও-সহ সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলিকে তারা যে মাসুল (ক্যারেজ ফি) দেয়, তা-ও বেঁধেছে ট্রাই। 

টিভি দেখতে

• গত বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হয়েছিল নতুন নিয়ম। 
• লক্ষ্য ছিল, কম খরচে পছন্দের চ্যানেল দেখার সুবিধাকে অগ্রাধিকার দেওয়া। 
• চ্যানেল দেখার বিভিন্ন খরচ বেঁধে দেয় ট্রাই। 
• আনা হয়েছিল 
প্রতিটি চ্যানেল আলাদা করে (আ-লা-কার্ট) বা গুচ্ছ (বোকে) হিসেবে দেখার সুবিধা।

অভিযোগ

• অনেক ক্ষেত্রে বাছা যায়নি পছন্দের চ্যানেল। 
• অপছন্দের চ্যানেল-সহ কার্যত বোকে নিতেই বাধ্য হয়েছেন গ্রাহকেরা।
• মাসুল নিয়েও অসন্তোষ। 
• পরিষেবার খরচ সব ক্ষেত্রে সস্তা হয়নি। 

ট্রাইয়ের নতুন পদক্ষেপ

•নিয়ম সরল করে ১ মার্চ থেকে কিছু ক্ষেত্রে চ্যানেলের দাম কমানোর পথ সহজ করা হল। 
•কমবে চ্যানেল দেখার অধিকারের খরচ (এনসিএফ)। 
•দূরদর্শনের ২৫টি ছাড়াও ২০০টি এসডি চ্যানেল দেখতে সর্বাধিক ১৩০ টাকা (জিএসটি বাদে) লাগবে। 
•এখন দূরদর্শনের চ্যানেলগুলি নিয়ে ১০০টি চ্যানেল দেখতে দিতে হয় সর্বাধিক ১৩০ টাকা। 
•নতুন নিয়মে ২০০টির বেশি 
যত খুশি বাড়তি চ্যানেল দেখা হোক না-কেন, সর্বোচ্চ ১৬০ টাকা লাগবে। 
•চাইলে কেব্‌ল অপারেটর ও এমএসও আরও কম টাকা নিতে পারেন। 
•এখন প্রথম ১০০টির পরের প্রতি ২০টি চ্যানেল দেখতে লাগে ২৫ টাকা করে।
•গ্রাহকের তালিকায় (আ-লা-কার্ট) পে চ্যানেল থাকলে এখনকার মতোই তার মাসুল আলাদা। 
•একটি এইচডি চ্যানেলকে আগামী দিনেও দু’টি এসডি চ্যানেলের সমান ধরা হবে। 
•বোকেতে অপছন্দের চ্যানেল রাখার প্রবণতা ঠেকাতে বোকের চ্যানেলের দাম নির্ধারণের নতুন নিয়ম।
•চ্যানেলের দাম ১২ টাকা বা তার কম হলে তবেই তা বোকের মধ্যে রাখা যাবে। 
•চ্যানেল সংস্থার আর্থিক চাপ কমাতে ‘ক্যারেজ ফি’ বাঁধার নির্দেশ।

 

বিধি কার্যকরের সময়সীমা 

• চ্যানেল সংস্থাগুলি নতুন দাম জানাবে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে। এমএসও-সহ চ্যানেল প্রদর্শনকারী সংস্থাগুলি সেই দর জানাবে ৩০ জানুয়ারির মধ্যে।
• সংশোধিত দামে চ্যানেল দেখার সুবিধা ১ মার্চ থেকে।

আগেও গ্রাহক হয় পছন্দের চ্যানেল আলাদা করে বাছতে পারতেন (আ-লা-কার্ট) বা একাধিক চ্যানেলের বোকে দেখার সুবিধা পেতেন। কিন্তু নিয়মের জটিলতায় কার্যত প্যাকেজ বা বোকে দেখতেই বাধ্য হতেন অনেকে। গ্রাহক স্বার্থ আরও সুরক্ষিত করতে বছর দুয়েক আগে নতুন বিধি তৈরি করে ট্রাই। কিন্তু তা নিয়ে বিভিন্ন মামলার জেরে বিধি কার্যকর করা যায়নি। জট কাটিয়ে গত বছরের গোড়ায় সেটি কার্যকর হয়। কিন্তু নিয়ম মেনে পরিষেবা চালু হতে মার্চ গড়িয়ে যায়। তার পরেও অনেক গ্রাহকের অভিযোগ ছিল, ‘আ-লা-কার্ট’ ভিত্তিতে পছন্দের চ্যানেলের তালিকা দিলেও তা সহজে মেলেনি। পরোক্ষে প্যাকেজ নেওয়ার পথেই হাঁটতে বাধ্য হন তাঁরা। যার মধ্যে ‘কৌশলে’ কিছু অপছন্দের চ্যানেলও ঢোকানো হয়। কোনও ক্ষেত্রে তা ‘পে-চ্যানেল’ হলে, তার মাসুলও গুনতে হয়। এর মধ্যে অবশ্য উৎসবের মরসুমে কিছু পে-চ্যানেলের দাম কমানো হয়েছিল।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন