কোনও মোবাইল আইনি ভাবে তৈরি নাকি অবৈধ, কেনার আগে তা বোঝার উপায় কয়েক দিন আগে পর্যন্তও ক্রেতার হাতে ছিল না। সম্প্রতি নতুন মোবাইলটির ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি (আইএমইআই) নম্বর ব্যবহার করে তার পরিচয় যাচাইয়ের সুবিধা এনেছে টেলিকম দফতর (ডট)। অন্য যে কোনও মোবাইল থেকে এসএমএস করে বা অ্যাপের মাধ্যমে তা করা যাবে বলে জানিয়েছে তারা। 

ডটের ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল (টেলিকম সুরক্ষা) মণীশ দাশ জানান, ইতিমধ্যেই ওই ব্যবস্থা চালু হয়ে গিয়েছে। তিনি বলেন, ‘‘মোবাইল ফোন কেনার সময়ে সতর্ক হওয়া দরকার। সেটি চোরাই বা বেআইনি ফোন কি না, কেনার আগেই তা পরীক্ষা করে দেখে নেওয়া উচিত।’’ তাঁর বক্তব্য, শুধু নতুন ফোন নয়, এখন যাঁরা মোবাইল ফোন ব্যবহার করছেন তাঁরাও নিজেদের ফোনটি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পেতে পারেন আইএমইআই নম্বর ব্যবহার করে। বিষয়টি সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে কলকাতা ও পশ্চিমবঙ্গ সার্কেলের গ্রাহকদের এসএমএস বার্তা দেওয়ার জন্য টেলিকম সংস্থাগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে তাঁর দফতর। 

সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর, ডটের তদন্তে দেখা গিয়েছে অনেক সময়ে চোরাই বা অবৈধ ভাবে তৈরি মোবাইলে স্বীকৃত কোনও ফোনের আইএমইআই নম্বর ব্যবহার করা হয়। ডটের নিয়মে, তা জাল করা ও জেনেবুঝে সেই বেআইনি ফোন ব্যবহার করা দু’টিই শাস্তিযোগ্য অপরাধ। ফলে ধরা পড়লে সংশ্লিষ্ট সংস্থা ও ক্রেতা উভয়েরই শাস্তি হবে। অনেক সময়ে সস্তার ফোন কিনতে গিয়ে কোনও ক্রেতা অজান্তে এ ধরনের ফোন কিনে ফেলেন। ডটের দাবি, নতুন ব্যবস্থায় ক্রেতা ফোন কেনার আগে আইএমইআই নম্বর দিয়ে সেটির পরিচয় যাচাই করতে পারবেন।