জিএসটি চালু হওয়ার পরে মাত্র এক বার কর সংগ্রহের অঙ্ক ১ লক্ষ কোটি টাকা পেরিয়েছিল। তার পর থেকে তা ৯০,০০০ কোটির আশেপাশেই ঘোরাফেরা করেছে। এ বার উৎসবের মরসুমে কেনাবেচার উপরে ভর করে নভেম্বর ও ডিসেম্বরের জিএসটি সংগ্রহ ফের ১ লক্ষ কোটি ছাড়াবে বলে আশা অর্থ মন্ত্রকের। কর খেলাপিদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের জেরেও জিএসটি সংগ্রহ বাড়তে পারে বলে মত মন্ত্রক কর্তাদের।

সেপ্টেম্বরে জিএসটি আদায় হয়েছে ৯৪,৪৪২ কোটি। প্রথম ধাপ হিসেবে একে ১ লক্ষ কোটির উপরে নিয়ে যেতে চায় কেন্দ্র। অর্থ মন্ত্রকের এক কর্তার ব্যাখ্যা, গণেশ চতুর্থী থেকে দেশে উৎসবের মরসুম শুরু হয়। তার আগে পর্যন্ত মানুষ হাতে টাকা ধরে রাখতে চান। কেনাকাটা শুরু করেন তার পরে। সংস্থাগুলিও সেই সময়ে বিভিন্ন ছাড় দেয়। এ বছর গণেশ চতুর্থী পড়েছিল সেপ্টেম্বরে। সেই অর্থে অক্টোবর থেকে বিক্রিবাটা বাড়ার কথা। তবে তার প্রভাব বোঝা যাবে নভেম্বরের জিএসটি সংগ্রহে।

এ দিকে, প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ত্রাণ তহবিল সংগ্রহের জন্য জিএসটির উপরে সেস বসানো হলে ভুল নজির তৈরি হবে বলে মন্তব্য করেছে ব্যবসায়ীদের সংগঠন সিএআইটি।