সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নেটে হেঁটে বিদ্যুতের বিল

1

লকডাউনে জীবন ঘরবন্দি। ডিজিটাল লেনদেনে সাবলীল হওয়ার চেষ্টা করছেন বহু মানুষ। তা সে বিদ্যুৎ বা মোবাইলের বিল মেটানো হোক বা কোথাও টাকা পাঠানো। কিন্তু বিপদে পড়েছেন বয়স্কদের একাংশ। তাই মূলত তাঁদের কথা মাথায় রেখেই কিছু ক্ষেত্রে ডিজিটাল লেনদেনের পদ্ধতি তুলে ধরার চেষ্টা করল আনন্দবাজার পত্রিকা। যতটা সম্ভব সহজ ভাবে। আজকের পর্বে 

সিইএসসি

 

• www.cesc.co.i• সাইটে গিয়ে হোম পেজের ডান দিকে ‘কুইক বিল পে’-তে ক্লিক করতে হবে। 
• এলটি কনজ়িউমার লেখাটিতে ক্লিক করে, তার তলায় মান্থলি বিল সিলেক্ট করতে হবে। 
• পরবর্তী ধাপে দিতে হবে কাস্টমার আইডি নম্বর। যা বিদ্যুৎ বিলে নাম-ঠিকানার নীচেই দেওয়া থাকে।
• তা দেওয়ার পরে দিতে হবে পেজের স্ক্রিনে ফুটে ওঠা ক্যাপচা কোড। সেটা দেখে ও বুঝে ওই কোডের নীচে একটা চৌকো বক্সে লিখতে হবে। তার পর ‘প্রসিড’-এ গিয়ে ক্লিক করতে হবে।
• বিলের বিস্তারিত স্ক্রিনে এলে তা দেখে নিয়ে টিক দিয়ে কনফার্ম করতে হবে। এর পরে ‘পে বিলে’ গিয়ে আবার ক্লিক করতে হবে।
• ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড নাকি নেট ব্যাঙ্কিং— কীসের মাধ্যমে বিল দেবেন, তা চিহ্নিত করার পরে টাকা মেটাতে অনেকগুলি পেমেন্ট গেটওয়ে স্ক্রিনে দেখাবে। তার মধ্যে যে কোনও একটিকে সিলেক্ট করে ‘পে নাউ’-তে ক্লিক করতে হবে। 
• পেমেন্ট গেটওয়েটি বাছাই করার পরে যদি কার্ডের মাধ্যমে বিল দিতে চান, তা হলে কার্ডের নম্বর, নাম, কার্ডটির মেয়াদ ইত্যাদি তথ্য ফাঁকা জায়গাগুলিতে লিখে ‘পে’-তে ক্লিক করতে হবে।
• সব তথ্য সঠিক দিলে যে অ্যাকাউন্ট থেকে পেমেন্ট করতে চাইছেন তা নিশ্চিত হতে মোবাইলে একটি ওটিপি নম্বর দিয়ে মেসেজ আসবে। সেই নম্বরটি দিলেই অ্যাকাউন্ট থেকে বিলের টাকা কেটে জমা হয়ে যাবে।
• চাইলে টাকা দিতে পারেন নেট ব্যাঙ্কিংয়ের মাধ্যমেও। সে ক্ষেত্রেও ওটিপি আসবে মোবাইলে।
• পেমেন্ট করা হয়ে গেলেই সিইএসসি-র ওয়েবসাইটে গিয়ে পেমেন্টর রসিদ ডাউনলোড করে নিতে হবে।
• নেট ছাড়াও সংস্থার নিজস্ব অ্যাপের মাধ্যমে বিদ্যুতের বিল মেটানো যায়। চাইলে ব্যবহার করা যায় অন্য সংস্থার মোবাইল ওয়ালেট।
• এ ছাড়াও, বিদ্যুতের বিলের ক্ষেত্রে অটো পে করে রাখা যায়। এতে প্রতি মাসে নির্দিষ্ট দিনে আপনা থেকেই টাকা কেটে নেবে সংস্থা। ভুলে গেলেও ঝক্কি নেই।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন