জেট এয়ারওয়েজ বন্ধের পরে মাস দুয়েক গড়াতে না গড়াতেই ফের অশান্ত হল বিমান পরিবহণ শিল্প। সৌজন্যে ইন্ডিগো। বাজার দখলের নিরিখে এই মুহূর্তে যেটি দেশের বৃহত্তম বিমান সংস্থা। দুই প্রতিষ্ঠাতা রাকেশ গঙ্গোয়াল ও রাহুল ভাটিয়ার বিরোধের জেরে বুধবার সেটির মূল সংস্থা ইন্টারগ্লোবের শেয়ার দর বিএসই-তে পড়ে গিয়েছে ১০.৭৩%। এনএসই-তে ১১.১২%। সংস্থার শেয়ারহোল্ডাররা খুইয়েছেন ১৭০ কোটি ডলার (প্রায় ১১,৬৫৮ কোটি টাকা) মূল্যের শেয়ার সম্পদ।

সংশ্লিষ্ট মহলের দাবি, জেট ডানা গোটানোর পরে ফাঁকা জায়গার সুবিধা অনেকটাই ঘরে তুলেছে ইন্ডিগো। কিন্তু শীর্ষ দুই প্রোমোটারের কাজিয়া এ বার কম খরচের বিমান সংস্থাটির ব্যবসার পথে বাধা হতে পারে। আর এই পরিস্থিতির ফায়দা তুলে এগিয়ে যেতে পারে আর এক কম খরচের সংস্থা স্পাইসজেট। এ দিন স্পাইসের শেয়ার দর বেড়েওছে প্রায় ৯%। 

কর্মীদের মনোবল অটুট রাখতে ইন্ডিগোর সিইও রণজয় দত্ত অবশ্য তাঁদের এক চিঠিতে জানান যে, প্রোমোটারদের বিরোধের সঙ্গে সংস্থার কোনও যোগ নেই। বরং কর্মীরা যেন সংস্থা চালানোয় মন দেন। তাঁর আশা, বিরোধ শীঘ্রই মিটবে। এর জন্য সংস্থার ব্যবসার দিশা, ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা বা বৃদ্ধির কৌশলেও পরিবর্তন হবে না। 

সম্প্রতি গঙ্গোয়াল সেবির কাছে অভিযোগ করেন, সংস্থা পরিচালনার নীতি মানছেন না ভাটিয়া। বিষয়টিতে শেয়ার বাজার নিয়ন্ত্রকের হস্তক্ষেপও দাবি করেন তিনি। অভিযোগের কপি প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী এবং বিমানমন্ত্রীর কাছেও পাঠান। ১৯ জুলাইয়ের মধ্যে ইন্ডিগোকে অভিযোগের জবাব দিতে নির্দেশ দিয়েছে সেবি। 

ইন্ডিগোয় গঙ্গোয়াল ও তাঁর সহযোগীদের ৩৭% এবং ভাটিয়া ও তাঁর সহযোগীদের ৩৮% অংশীদারি। অনেকের আশঙ্কা, তাঁদের বিরোধ আরও বাড়তে পারে। সে ক্ষেত্রে ভুগবেন সংখ্যালঘু লগ্নিকারীরাই।