×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৫ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

গাড়ির বাজারে নতুন প্রতিযোগী হিসেবে প্রবেশ ইলেকট্রিক গাড়ি হুন্ডাই ‘কোনা’র

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০৯ জুলাই ২০১৯ ১৭:৩২
মুক্তি পেল হুন্ডাইয়ের প্রথম ইলেকট্রিক গাড়ি 'কোনা'। ছবি: টুইটার

মুক্তি পেল হুন্ডাইয়ের প্রথম ইলেকট্রিক গাড়ি 'কোনা'। ছবি: টুইটার

ইলেকট্রিক গাড়ির জন্য অপেক্ষারত ব্যক্তিদের জন্য সুখবর, অবশেষে বাজারে এল হুন্ডাই কোম্পানির বিদ্যুৎ চালিত এসইউভি ‘কোনা’। আজ থেকেই ভারতের বাজারে পাওয়া যাবে ইলেকট্রিক গাড়িটি। এটি যেমন হুন্ডাইয়ের তৈরি প্রথম ইলেকট্রিক গাড়ি, তেমনই ভারতের বাজারে প্রথম ইলেকট্রিক এসইউভি। স্বাভাবিক ভাবেই এই গাড়ি নিয়ে বাজারে উন্মাদনা আকাশছোঁয়া।

আপাত ভাবে ১,০০০ ইউনিট গাড়ি ভারতের বাজারে নিয়ে আসা হবে, পাওয়া যাবে নির্দিষ্ট ২০টি শহরেই হুন্ডাই ডিলার শোরুমে। গ্রাহকদের চাহিদার উপর নির্ভর করে পরবর্তী সময়ে আরও গাড়ি আনা হবে কোরিয়া থেকে। সম্পূর্ণ ভাবে প্রস্তুত অবস্থাতেই গাড়িটি কোরিয়া থেকে এই গাড়ি ভারতে আসবে, তবে খরচ কমাতে ভবিষ্যতে হুন্ডাইয়ের চেন্নাই প্ল্যান্টে ইলেকট্রিক পার্টস তৈরি ও গাড়ির পার্টস লাগানোর ব্যবস্থা করা হবে বলে জানানো হয়েছে। দাম ধার্য করা হয়েছে ২৫.৩০ লক্ষ টাকা(এক্স-শো রুম), যা বাকি এসইউভি গাড়ির তুলনায় বেশ কম।

ইলেকট্রিক এসইউভি ‘কোনা’ বিশ্ববাজারে দু’টি পৃথক ব্যাটারির অপশনে পাওয়া যাবে-ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রিক লাইট যা ৬৪কিলোওয়াট এবং ৩৯.২কিলোওয়াট প্রতি ঘন্টার ক্ষমতসম্পন্ন লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারিযুক্ত। তবে ভারতে পাওয়া যাবে ৩৯.২ কিলোওয়াট প্রতি ঘন্টার ক্ষমতাযুক্ত ব্যাটারি গাড়িটি। এই গাড়িটি হবে ১৩৬ হর্সপাওয়ারের ক্ষমতা এবং ৩৯৫ নিউটন-মিটার টর্ক আউটপুটের ক্ষমতা সম্পন্ন। গাড়ির সর্বোচ্চ গতি হবে ১৫৫কিমি প্রতি ঘন্টায় এবং একবার চার্জ দিলে ৩১২ কিলোমিটার অবধি রাস্তা অতিক্রম করতে পারবে। গাড়ির ব্যাটারি চার্জ হতে সময় লাগবে ৬ ঘন্টা।

Advertisement

আরও পড়ুন: মিলবে ক্যাশব্যাক, করা যাবে যাবতীয় ডিজিটাল লেনদেন, বাজেটে নতুন উপহার ট্রাভেল কার্ড

এসইউভি গাড়ির অন্যতম বৈশিষ্ট্য হয় এর ‘অফ-রোড ড্রাইভিং’ ফিচার অর্থ্যাৎ খারাপ রাস্তা বা পার্বত্য অঞ্চলেও এই গাড়ি সহজেই চলতে পারবে। হুন্ডাইয়ের এই ইলেকট্রিক গাড়িতে “অল হুইল ড্রাইভ” ফিচার থাকবে না, টর্কের মাধ্যমে উৎপন্ন শক্তি সরাসরি সামনের চাকায় / ড্রাইভিং হুইলে পৌঁছবে। অন্যান্য বৈশিষ্টের মধ্যে ৭ইঞ্চির ডিজিটাল ইনফোটেইনমেন্ট স্ক্রিন থাকবে যেখানে অ্যাপল কার প্লে এবং অ্যান্ড্রয়েড অটো ব্যবহার করে নানা অ্যাপ ব্যবহার করা যাবে। থাকবে ‘হিটেড ও ভেন্টিলেটেড সিট’ যা চালকদের গাড়ি চালানোর সময় আরামের সুযোগ করে দেবে।


গাড়ি ও চালকের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেও অনেক ফিচার দেওয়া হয়েছে হুন্ডাই ‘কোনা’তে। এর মধ্যে অন্যতম বৈশিষ্ট্য হল এর ৬টি এয়ার ব্যাগ, যা প্রতিটি সিটের সঙ্গে লাগানো থাকবে। এ ছাড়া ‘অ্যান্টি লক-ব্রেক সিস্টেম’, ‘ব্লাইড স্পট ডিটেকশন’ ,‘হিল-স্টার্ট অ্যাসিস্ট’ রিভার্স ক্যামেরা থাকবে এই গাড়িতে। থাকবে ‘রিয়েল টাইম ট্রাফিক কন্ট্রোল’ এবং ‘অটোনোমাস ইমারজেন্সি ব্রেক সিস্টেম’ও যা ইলেকট্রিক গাড়িটিকে আরও বেশি ব্যবহার উপযোগী করে তুলবে।

দামের উপর ভিত্তি করে আপাত ভাবে প্রতি মাসে ৫০টি গাড়ি বিক্রির লক্ষ্য রেখেছে হুন্ডাই কোম্পানি। ইলেকট্রিক গাড়ির মাধ্যমে যানবাহনের দুনিয়ায় এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা হবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না, সেই ইতিহাসেই নাম লেখালো হুন্ডাই কোম্পানি।

আরও পড়ুন: এসইউভি-প্রেমীদের জন্য সুখবর, বাজারে এল নতুন রেনো ডাস্টার

Advertisement