ক্রেতাদের মতে এসইউভি গাড়ির মধ্যে অন্যতম সেরা হল রেনো কোম্পানির এসইউভিগুলি। ক্রেতাদের চাহিদার সঙ্গে তাল মেলাতে রেনো ডাস্টার সিরিজের নতুন ৭-সিটের গাড়ি  বাজারে আসছে আজ।

গাড়ির কর্মক্ষমতা পরীক্ষা করতে জম্মু-কাশ্মীরের জো-জিলা পাসের কাছে টেস্ট ড্রাইভ করতেও দেখা গিয়েছিল রেনোর এই নতুন এসইউভি-র। নতুন রূপের এই ডাস্টারের মধ্যে পরিবর্তন হয়েছে অনেক। ব্যাহিক পরিবর্তনের মধ্যে সামনের নতুন গ্রিল গাড়িটিকে দিয়েছে এক ‘বোল্ড লুক’। হেডল্যাম্পে তেমন বিশেষ কোনও পরিবর্তন না হলেও প্রোজেক্টর ল্যাম্পে এলইডি লাইট ব্যবহার করা হয়েছে। সামনের ও পিছনের বাম্পারও নতুন ডিজাইনে তৈরি করা হয়েছে। চাকায় ব্যবহার হয়েছে নতুন ‘মাল্টি-স্পোক’ অ্যালয় হুইলসের।

ডাস্টারে অভ্যন্তরীণ পরিবর্তনের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হল এর ইঞ্জিন। আপাত ভাবে তিনটি ইঞ্জিনের অপশন পাওয়া যাবে এই গাড়িতে। প্রথমটি হল চার সিলিন্ডারের, ১.৫লিটারের এইচ৪কে পেট্রোল মোটরযুক্ত ইঞ্জিন যা ৫-স্পিড ম্যানুয়াল গিয়ারবক্স যুক্ত হবে ও ১৪২ নিউটন-মিটার টর্ক উৎপন্ন করতে পারবে । সঙ্গে থাকবে ‘সিটিভি’ও যা বিনা বাধায় সহজে গতি পরিবর্তনে সাহায্য করবে। চার সিলিন্ডারের ডিজেল ইঞ্জিনে ৬-স্পিড ও ৫-স্পিড ম্যনুয়াল গিয়ারবক্স পাওয়া যাবে। টর্ক হবে ২৪৫ ও ২০০ নিউটন মিটার যথাক্রমে।

আরও পড়ুন: বাজেটে মুখভার শেয়ার বাজারের 

নতুন আরামদায়ক সিটের সঙ্গে থাকবে নতুন ড্যাশবোর্ডও, যা গাড়িটিকে এক ‘ক্লাসি লুক’ দেবে। এতে থাকবে ১৭.৬৪সেমি টাচ স্ক্রিন মিডিয়া নেভিগেশনের সঙ্গে, যা ‘অ্যাপল কার প্লে’ ও ‘অ্যান্ড্রয়েড অটো’ ফিচার সম্পন্ন। এ ছাড়াও এতে স্বয়ংক্রিয় জলবায়ু সেন্সরের সুবিধাও পাওয়া যাবে যা জলবায়ুর সামান্য পরিবর্তনও জানিয়ে দেবে চালককে।

গ্লোবাল ওয়ার্মিং ও পরিবেশ দূষণের কথা মাথায় রেখে নতুন রেনো ডাস্টার  আসছে বিএস ৬ ইঞ্জিন নিয়ে, যেখানে বাকি সব গাড়িই এখনও বিএস ৪ ইঞ্জিন ব্যবহার করছে। গাড়ির দূষণের মাত্রা পরিমাপের জন্য ভারত স্টেজ নিয়মাবলী মেনে চলতে হয় সমস্ত গাড়িকে, ডাস্টারের এই গাড়ি কার্বন নির্গমনের নিয়মগুলি মেনে এই নতুন বিএস ৬ ইঞ্জিনের ব্যবহার শুরু করবে।

এসইউভি ক্রেতাদের কাছে দাম একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তবে রেনো গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে দামের ক্ষেত্রে তেমন কোনও পরিবর্তন আনেনি। বাকি রেনো ডাস্টারের মতই এর দামও শুরু হবে আনুমানিক ৭.৯৯ লক্ষ টাকা থেকে। হুন্ডাই কোম্পানির ক্রেটা, ফোর্ড ইকোস্পোর্ট ও নিসান কিকের সঙ্গে পাল্লা দিতে রেনোর ‘ডাস্টার ২০১৯’ বাকি এসইউভিগুলির মতই যে সফল হবে তা নিয়ে আশাবাদী রেনো কোম্পানি।

আরও পড়ুন: দুই হাজারের বেশি কর্মসংস্থান, টাটা অধিকৃত জাগুয়ার ল্যান্ড রোভারের নয়া উদ্যোগ