বছর চারেক আগে আমেরিকা, ইউরোপ, এশিয়ার বিভিন্ন দেশে কিছু ডিজেল গাড়ির দূষণ কেলেঙ্কারির দায়ে পড়েছিল জার্মান বহুজাতিক ফোক্সভাগেন। অভিযোগ মেনে বিপুল অঙ্কের ক্ষতিপূরণ দেয় তারা। পদ খোয়ান সংস্থার শীর্ষ কর্তাও। এ বার ভারতেও একই অভিযোগে সংস্থাটিকে ৫০০ কোটি টাকার জরিমানা করল জাতীয় পরিবেশ আদালত (এনজিটি)। 

ফোক্সভাগেনের অবশ্য দাবি, তারা এ দেশে বিএস৪ মাপকাঠির দূষণ বিধি ভাঙেনি। ওই গাড়িগুলিকে রাস্তায় পরীক্ষা করা হয়েছিল। 

বৃহস্পতিবার এনজিটির চেয়ারম্যান বিচারপতি আদর্শ কুমার গোয়েলের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ দু’মাসের মধ্যে সংস্থাটিকে জরিমানা জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছে। এনজিটির বক্তব্য, ভারতে তাদের ডিজেল গাড়িতে ব্যবহৃত সফটওয়্যারের মাধ্যমে সংস্থাটি বাস্তবের চেয়ে দূষণ কমিয়ে দেখিয়েছে। ফলে পরিবেশের ক্ষতি হয়েছে। এর আগে এনজিটি নিযুক্ত বিশেষ কমিটি ১৭১.৩৪ কোটি টাকা জরিমানার সুপারিশ করেছিল। 

কমিটির দাবি ছিল, দিল্লিতে ফোক্সভাগেনের গাড়িগুলি দূষণ মাত্রার চেয়ে বাড়তি নাইট্রোজেন অক্সাইড ছড়িয়ে দূষণ বাড়িয়েছে। পাশাপাশি অটোমোবাইল রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া রাস্তায় চলাকালীন গাড়িগুলি পরীক্ষা করে বলেছিল, তারা বিএস৪ মাপকাঠির চেয়ে ১.২ থেকে ২.৬ গুণ বেশি দূষণ ছড়িয়েছে। এর পর সংস্থাটি ৩.২৩ লক্ষ গাড়ি স্বেচ্ছায় ফিরিয়ে সফটওয়্যারের প্রয়োজনীয় সংশোধন করে। যদিও তখনও তারা দাবি করেছিল, মার্কিন মুলুকে অভিযুক্ত গাড়িতে ব্যবহৃত প্রযুক্তি এ দেশে ব্যবহার করলেও ভারতে দূষণ বিধি ভাঙেনি তারা।