সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

লেনদেনের হাতিয়ার ভীম ইউপিআই

UPI

লকডাউনে জীবন ঘরবন্দি। তাই ডিজিটাল লেনদেনে সাবলীল হওয়ার চেষ্টা করছেন বহু মানুষ। তা সে বিদ্যুতের বিল মেটানো হোক বা বিমার প্রিমিয়াম দেওয়া। কিন্তু সমস্যায় পড়েছেন বয়স্কদের একাংশ। তাই মূলত তাঁদের কথা মাথায় রেখেই কিছু ক্ষেত্রে ডিজিটাল লেনদেনের পদ্ধতি তুলে ধরার চেষ্টা করছে আনন্দবাজার পত্রিকা। যতটা সম্ভব সহজ ভাবে। আজকের পর্বে রইল ইউপিআই পরিষেবার ভীম অ্যাপের সুলুকসন্ধান।

ভীম

ইউপিআই কী

কোনও সংস্থার বিল মেটাতে সেটির ওয়েবসাইট বা অ্যাপ ব্যবহার করতে হয়। প্রতিটি সংস্থার ক্ষেত্রে তা আলাদা। আবার কাউকে অনলাইনে টাকা পাঠাতে হলে মূলত নেট ব্যাঙ্কিং ভরসা। না-হলে আলাদা ওয়ালেট বা পেমেন্টস ব্যাঙ্কের পৃথক অ্যাপ। কিন্তু সবই একটি অ্যাপ থেকে করার সুযোগ দিতে ইউপিআই পরিষেবা চালু করেছে ন্যাশনাল পেমেন্টস কর্পোরেশন অব ইন্ডিয়া (এনপিসিআই)। তাদের ইউপিআই অ্যাপের নাম ভীম। বিভিন্ন ব্যাঙ্ক, লেনদেন সংস্থারও নিজস্ব ইউপিআই পরিষেবা আছে। এখানে কথা বলব ভীম নিয়ে।

 

 অ্যাকাউন্ট চালু

• স্মার্ট ফোনে ভীম (BHIM) অ্যাপ ডাউনলোড করুন। অ্যান্ড্রয়েড ফোনে সেটি মিলবে গুগ্‌ল প্লে স্টোরে। আর আইফোন হলে অ্যাপল অ্যাপ স্টোরে।

• বাছুন পছন্দের ভাষা (ইংরেজি, বাংলা ইত্যাদি)।

• যে ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টটি এই ভীম অ্যাপের সঙ্গে যুক্ত করতে চান, সেই ব্যাঙ্কটি এনপিসিআইয়ের ইউপিআই পরিষেবার তালিকায় থাকতে হবে।

• যে অ্যাকাউন্ট ইউপিআইয়ে ব্যবহার করবেন, তার সঙ্গে মোবাইল নম্বরও যুক্ত থাকতে হবে। থাকতে হবে ডেবিট কার্ডও।

• যে ফোন নম্বর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে যুক্ত, সেটি ভীম অ্যাপে নথিভুক্ত করতে হবে। ফোন নম্বরটি যাচাইয়ের জন্য সেই নম্বরে একটি এসএমএস আসবে।  

• ভীম অ্যাপে অ্যাকাউন্ট তৈরির জন্য চার সংখ্যার পাসওয়ার্ড তৈরি করুন। তা পরে প্রতিবার অ্যাপের অ্যাকাউন্ট খুলতে লাগবে।

• এ বার ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টটি ভীমের অ্যাকাউন্টের সঙ্গে লিঙ্ক করতে হবে। 

• লেনদেনের সুরক্ষার জন্য অ্যাপের (ইউপিআই) আরও একটি চার সংখ্যার পিন তৈরি করুন। এটি তৈরির সময়ে ডেবিট কার্ড সম্পর্কে কিছু তথ্য দিতে হয়।

• লেনদেনের আগে ই-মেলের ধাঁচে তৈরি করে নিন ‘ভার্চুয়াল পেমেন্টস অ্যাড্রেস’ (ভিপিএ)। এটিকে লেনদেনের পরিভাষায় ‘ইউপিআই আইডি’ বলা হয়। এটি মোবাইল নম্বর দিয়ে (যেমন, 1234567890@upi) বা অক্ষর ও সংখ্যা দিয়ে (a1b2@upi) তৈরি হয়। 

 

কী ভাবে লেনদেন

• চার সংখ্যার অ্যাপ-অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড দিয়ে ভীম অ্যাপে অ্যাকাউন্টটি খুলুন।

• যে ব্যক্তি বা সংস্থাকে টাকা পাঠাচ্ছেন তাদের ভীম অ্যাপ অ্যাকাউন্ট এব‌ং ‘ইউপিআই আইডি’ থাকলে সেটি নিজের ভীম অ্যাপের অ্যাকাউন্টে জুড়ুন। এ জন্য অ্যাকাউন্টের ‘ম্যানেজ’ অপশনে যান। সেখানে ‘অ্যাড ইউপিআই আইডি’-তে ক্লিক করে জুড়ে নিন সেটি। ওই ব্যক্তি বা সংস্থার ‘ইউপিআই আইডি’  না-থাকলে তাদের ব্যাঙ্কের নাম, অ্যাকাউন্ট নম্বর এবং আইএফএসসি কোড জুড়তে হবে। ওই ‘ম্যানেজ’ অপশনে গিয়ে এ বার ‘অ্যাড অ্যাকাউন্ট+আইএফএসসি’- ক্লিক করে।

• পরিবারের সদস্য, আত্মীয় বা বন্ধু, কেব্‌ল অপারেটর, দোকানদার বা শেয়ার-ফান্ড ব্রোকার, যাঁদের থেকে পণ্য  বা পরিষেবা কেনেন তাদের তথ্য আপনার অ্যাকাউন্টে জুড়ে নিয়ে টাকা পাঠাতে বা বকেয়া মেটাতে পারেন। তা দু’ভাবে করা যায়।

• সাধারণত ‘সেন্ড’ অপশনে গিয়ে টাকা পাঠাতে হয়। অথবা যাঁর বা যে সব সংস্থার সঙ্গে নিয়মিত লেনদেন করেন, তাদের নাম ‘ফেভারিট’ বলে আলাদা তালিকায় রাখতে পারেন।

• বিভিন্ন বিল মেটাতে সেই সব পরিষেবা ও সংস্থার তালিকা নিজের ভীম অ্যাকাউন্টের ‘ভারত বিল পে’ অংশে গিয়ে ‘পে বিলস’ অপশনে ক্লিক করে দেখতে পাবেন। সিইএসসি, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিদ্যুৎ বণ্টন সংস্থা, একাধিক ডিটিএইচ সংস্থা, ভারত ও এইচপি গ্যাসের পাশাপাশি মোবাইল সংস্থার পোস্ট-পেড বিল মেটাতে পারবেন।

• যে পরিষেবার বিল মেটাতে চান, তার গ্রাহক নম্বর (আইডি) বা সেই সংক্রান্ত তথ্য দিলেই বিল দেখতে পাবেন। তার পরে নিজের ইচ্ছেমতো টাকা মেটাতে পারেন সেখান থেকেই।

• কারও থেকে টাকা চাওয়াও যাবে ভীমে। ‘রিকোয়েস্ট মানি’তে গিয়ে তালিকায় থাকা প্রাপককে টাকার অঙ্ক লিখে আর্জি জানাতে হবে। অন্যদের থেকে চাইতে হলে তাঁদের ইউপিআই আইডি উপরের সার্চ অংশে লিখুন।

• লেনদেন শেষে অবশ্যই লগআউট করতে হবে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন