• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কলকাতায় আইফোন ১২-র প্রি-বুকিং শুরু, কী ভাবে করবেন, জানুন বিস্তারিত

apple
অপেক্ষার অবসান। ছবি: অ্যাপেল ওয়েবসাইট

অনেক অপেক্ষা ছিল। তার অবসান হয়েছে মঙ্গলবার রাতেই। লঞ্চ করেছে আইফোন ১২। এক সঙ্গে চারটি ভার্সন বাজারে এনেছে অ্যাপল। সংস্থা জানিয়েছে, আগামী ৩০ অক্টোবর থেকে ভারতে পাওয়া সব কটি ভার্সানের আইফোন ১২। কলকাতাতেও একই দিনে মিলবে। ইতিমধ্যেই অ্যাপেল স্টোরে গিয়ে প্রি-বুকিং শুরু হয়ে গিয়েছে‌। অনলাইন বুকিং শুরু হবে ২৩ অক্টোবর।

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ভারতে চারটি ভার্সানের আইফোন ১২ এর দাম।

আইফোন ১২ (৬৪ জিবি)-র দাম ৭৯ হাজার ৯০০ টাকা।
আইফোন ১২ (১২৮ জিবি)-র দাম ৮৪ হাজার ৯০০ টাকা।
আইফোন ১২ (২৫৬ জিবি)-র দাম ৯৪ হাজার ৯০০ টাকা।

আইফোন ১২ মিনি (৬৪ জিবি)-র দাম ৬৯ হাজার ৯০০ টাকা।
আইফোন ১২ মিনি (১২৮ জিবি)-র দাম ৭৪ হাজার ৯০০ টাকা।
আইফোন ১২ মিনি (২৫৬ জিবি)-র দাম ৮৪ হাজার ৯০০ টাকা।

আইফোন ১২ প্রো (১২৮ জিবি)-র দাম ১ লাখ ১৯ হাজার ৯০০ টাকা।
আইফোন ১২ প্রো (২৫৬ জিবি)-র দাম ১ লাখ ২৯ হাজার ৯০০ টাকা।
আইফোন ১২ প্রো (৫১২ জিবি)-র দাম ১ লাখ ৪৯ হাজার ৯০০ টাকা।

আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স (১২৮ জিবি)-র দাম ১ লাখ ২৯ হাজার ৯০০ টাকা।
আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স (২৫৬ জিবি)-র দাম ১ লাখ ৩৯ হাজার ৯০০ টাকা।
আইফোন ১২ প্রো ম্যাক্স (৫১২ জিবি)-র দাম ১ লাখ ৫৯ হাজার ৯০০ টাকা।

কী ভাবে প্রি-বুকিং করবেন?

কলকাতায় ক্যামাক স্ট্রিটের শান্তিনিকেতন বিল্ডিংয়ে যে অ্যাপেল স্টোর রয়েছে সেখানে এখনই আইফোন ১২ প্রি-বুকিং করা যাচ্ছে। স্টোরের পক্ষে শুভমিতা দে জানিয়েছেন, “এর জন্য অগ্রিম দিতে হবে পাঁচ হাজার টাকা। স্টোরে এসে সেই টাকা জমা করলে একটি স্লিপ দেওয়া হবে। এ ছাড়া বাড়িতে বসেও প্রি-বুকিং করা যাবে। তার জন্য স্টোরের ফোন নম্বরে (৯১৫৩৬৯১৫৩৬) কথা বললে মিলবে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ডিটেলস। সেখানে অগ্রিম টাকা জমা করলেও অ্যাডভান্স স্লিপ মিল‌বে। দুই ক্ষেত্রেই স্টোরে গিয়ে নগদ বা কার্ডের মাধ্যমে বাকি টাকা মেটালে ৩০ অক্টোবর থেকেই পাওয়া যাবে পছন্দের আইফোন।”

কলকাতায় অ্যাপেলের অপর স্বীকৃত ডিলার সাউথসিটি মলের ইমাজিন জানিয়েছে, তারা ‌অনলাইনে প্রি-বুকিং শুরু করছে আগামী ২৩ অক্টোবর। সেটা করা যাবে সংস্থার ওয়েবসাইট myimaginestore.com-এ গিয়ে।

আইফোন ১২-এর অন্যতম বড় বৈশিষ্ট হল এটি ৫জি সেলুলার গতিসম্পন্ন। এটিকে একেবারেই নতুন ভাবে সাজানো হয়েছে। ডিজাইনের দিক থেকেও এটি অন্যান্য আইফোনের থেকে আলাদা।

এক নজরে চারটি ভার্সানের আইফোন ১২-র বিশেষ ফিচার্সগুলি সম্পর্কে জেনে নিন।

আইফোন ১২ প্রো-তে রয়েছে ৬.১ ইঞ্চি ডিসপ্লে। এবং প্রো ম্যাক্স-এ রয়েছে ৬.৭ ইঞ্চি ডিসপ্লে। সুপার রেটিনা এক্সডিআর ও এলইডি ডিসপ্লে।

ডুয়াল ক্যামেরা সিস্টেম- আইফোন ১২-এর ক্যামেরায় ওয়াইড এবং আলট্রা ওয়াইড দুই মোডই রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ১৬ অ্যাপারচার-সহ দু’টি ১২এমপি + ১২এমপি (মেগাপিক্সেল) রিয়ার ক্যামেরা। যার মধ্যে রয়েছে রিয়ার অটোফোকাস এবং কোয়াড এলইডি ডুয়াল টোন ফ্ল্যাশ, এইচডিআর (ফটো/প্যানোরমা)। এর সঙ্গে রয়েছে সেলফি তোলার জন্য একটি ১২ এমপি-র ফ্রন্ট ক্যামেরা।

আরও পড়ুন: পুজোয় ৩৯২ স্পেশাল ট্রেন, বাংলা পেল ৬৬, রইল তালিকা

নাইট মোডে ছবি তোলার জন্যও অনেক সুবিধা। নাইট সেলফি তোলার ক্ষেত্রে আলোর ব্যবহার সঠিক মাত্রায় রাখার জন্য রয়েছে ডিপ ফিউশন, স্মার্ট এইচডিআর থ্রি, ডলবি ভিশন রেকর্ডিং ব্যবস্থা। আবার দিনের বেলা উজ্জ্বল আলোয় খুব ভালো রেজোলিউশন সহ, স্মার্ট এইচডিআর থ্রি টেক্সচারে ছবি তোলা যাবে। ছবির ডিটেলস দেখে একেবারে সত্যি বলে মনে হবে।

কোনও তার ছাড়াই চার্জ দেওয়া যাবে এই ফোন। আইফোন ১২ ম্যাগসেফ নামে নতুন ফিচারস এনেছে। ম্যাগসেফ মানে একটি চুম্বকীয় কেস রয়েছে আইফোন ১২-র পিছনের দিকে। যার মাধ্যমে খুব সহজেই ওয়্যারলেস চার্জিং হবে। সেটা খুব তাড়াতাড়িও হবে। এটি জল এবং ধূলিকণা প্রতিরোধ করতেও সক্ষম।

গ্রাফাইট, রুপোলি, সোনালি এবং নীল— এই চারটি রঙে আইফোনটি পাওয়া যাবে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন