গত বছরের শেষে উত্তোলনে রাশ টানার কথা জানিয়েছিল তেল রফতানিকারীদের সংগঠন ওপেক ও তার সহযোগী দেশগুলি। যার জেরে চলতি বছরের শুরু থেকে বাড়ছিল অশোধিত তেলের দাম। এ সপ্তাহের শুরুতে ইরানের তেল আমদানিতে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা জারির পরে বৃহস্পতিবার তা ছুঁল ব্যারেলে ৭৫ ডলার। ২০১৯ সালে এই প্রথম।

বিশ্ব বাজারে দামের ঊর্ধ্বগতির জেরে ভারতে তেলের দাম নিয়ে ফের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে বিভিন্ন মহলে। বিশেষ করে যখন ডলারের সাপেক্ষে টাকা পড়ছে। ভারতে গত অর্থবর্ষে উত্তোলন ৪% কমেছে। আবার রাশিয়ার তেলের মান নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় ইউরোপের বাজারে তা ঢোকা বন্ধ হয়েছে। এই অবস্থায় ১৯ মে ওপেক বৈঠকের দিকেই নজর সকলের। তবে অনেকের মতে, মার্কিন শেল গ্যাসের উত্তোলন বাড়লে ও বিশ্ব জুড়ে বৃদ্ধির গতি সত্যিই শ্লথ হলে এ বছর তেলের দাম মাত্রাছাড়া হবে না।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা, শুল্ক তোপ ও ইরানি তেলে নিষেধাজ্ঞার জেরে ভারত ও মার্কিন বাণিজ্য সম্পর্ক কিছুটা ধাক্কা খেয়েছে। এই অবস্থায় দু’দেশের দীর্ঘ দিনের সম্পর্কের কথা ভেবেই আমেরিকাকে সিদ্ধান্ত নিতে আর্জি জানিয়েছে বণিকসভা ইন্ডিয়ান চেম্বার।