দেশে নেট বাজারগুলির ব্যবসা ফুলেফেঁপে উঠছে বহু দিন ধরেই। ভবিষ্যতে তা আরও দ্রুত বাড়ার ইঙ্গিত দিল ডিজিটাল মার্কেটিং সংস্থা অ্যাডমিট্যাডের সমীক্ষা। জানাল, ২০২১ সালে নেট ব্যবহারকারীর হার হতে চলেছে ৪৫%। ফলে ২০২২ সালে ই-কমার্সগুলির মিলিত ব্যবসা ছুঁতে পারে ৫,২০০ কোটি। অর্থাৎ , এখনকার তুলনায় দ্বিগুণেরও বেশি।

বাড়ি বসে কেনা ও দামে ছাড়— দুই সুবিধাকে মূলধন করেই বাড়ছে নেট বাজার। সমীক্ষা বলছে, ২০১৭ সালে দেশে নেট কেনাকাটার অঙ্ক ছিল ২,৫০০ কোটি ডলার। পরের ক’বছর তা ২০% করে বাড়বে। এর কারণ, ২০২০ সালের মধ্যে মানুষের হাতে ৫৪ শতাংশের হাতে মোবাইল পৌঁছে যাওয়া। যার বড় অংশ হবে স্মার্ট ফোন। ফলে মোবাইলে নেট মারফত কেনার (এম-কমার্স) অঙ্ক বাড়বে। যদিও বিপুল ছাড় দেওয়ায় লাভের মুখ দেখা ই-কমার্স সংস্থাগুলির পক্ষে এখনও উদ্বেগের কারণ। এই সমস্যা কবে কাটবে, তা-ও পরিষ্কার নয়।

তবু নেট বাজারের ব্যবসার টানেই ফ্লিপকার্টের ৭৭% অংশীদারি কিনছে মার্কিন খুচরো সংস্থা ওয়ালমার্ট। ই-কমার্সের রমরমায় প্রমাদ গুনছে ইট-কাঠ-পাথরের দোকানগুলিও। ইতিমধ্যেই ফ্লিপকার্ট-ওয়ালমার্ট চুক্তিতে আপত্তি তুলেছেন ব্যবসায়ীরা। তাঁদের সংগঠন সিএআইটি দেশ জুড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে।