Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১০ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

স্বেচ্ছা-পিএফে কাটাতে পারেন বাড়তি টাকা

শিয়রে লোকসভা ভোট। আর তাতেই দরাজ নরেন্দ্র মোদীর সরকার। বাজেট অন্তর্বর্তী হলেও, চিরাচরিত প্রথা ভেঙে এ বার ঘোষিত হয়েছে কৃষক, মধ্যবিত্তদের জন্য

অমিতাভ গুহ সরকার
কলকাতা ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ০২:০৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

শিয়রে লোকসভা ভোট। আর তাতেই দরাজ নরেন্দ্র মোদীর সরকার। বাজেট অন্তর্বর্তী হলেও, চিরাচরিত প্রথা ভেঙে এ বার ঘোষিত হয়েছে কৃষক, মধ্যবিত্তদের জন্য একগুচ্ছ সুবিধা। জানানো হয়েছে অসংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মীদের জন্য মাসে ৩,০০০ টাকা পেনশন প্রকল্পের কথা। এ বার শিকে ছিঁড়তে পারে কর্মী প্রভিডেন্ট ফান্ডের (ইপিএফ) ৬ কোটি সদস্যদেরও। তাঁদের জন্য সরকার বাড়াতে চলেছে ইপিএফের সুদ। পিএফের অছি পরিষদের সুপারিশ— সুদ ১০ বেসিস পয়েন্ট বাড়িয়ে করা হোক ৮.৬৫%। অর্থ মন্ত্রকের সায় পেলে ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষের জন্য কার্যকর হবে তা। যাঁর পিএফ তহবিলে এখনও পর্যন্ত ২৫ লক্ষ টাকা জমেছে, তাঁর কাছে ১০ বেসিস পয়েন্ট বাড়ার অর্থ সুদ বাবদ অতিরিক্ত ২,৫০০ টাকা জমা হওয়া। এই সুদ করমুক্ত।

ভাগ্য প্রসন্ন হতে পারে পিএফ পেনশন প্রাপকদেরও। মাসে ন্যূনতম পেনশন এখনকার ১,০০০ টাকা থেকে বাড়ানোর কথাও আলোচনা করেছে অছি পরিষদ। প্রস্তাব গৃহীত হলে সরকারের ঘাড়ে চাপবে অতিরিক্ত ৩,০০০ কোটি টাকার দায়।

পিএফে সুদ বাড়ায় এবং তা বর্তমান বাজারের নিরিখে উপরের দিকে থাকায়, যাঁরা স্বেচ্ছায় এখনও পিএফ অ্যাকাউন্টে বাড়তি টাকা কাটান না, তাঁরা নতুন বছর থেকে সেই পথে হাঁটতে পারেন। বিশেষত এই সুদ যেহেতু পুরো করমুক্ত। এবং বড় মেয়াদে জমে ওঠে বড় তহবিল।

Advertisement

এ দিকে, টানা ন’দিন পতনের পর গত বুধবার ঘুরে দাঁড়িয়েছিল শেয়ার বাজার। যার অন্যতম কারণ ছিল এক ডজন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককে সরকারের ৪৮,২৩৯ কোটি টাকা মূলধন জোগানোর ঘোষণা। এতে তেতে ওঠে বিভিন্ন ব্যাঙ্কের শেয়ার। এই নিয়ে চলতি অর্থবর্ষে এখনও পর্যন্ত কেন্দ্র রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককে জুগিয়েছে কমবেশি ১ লক্ষ কোটি টাকা।

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক সরকারকে ২৮,০০০ কোটি টাকার অন্তর্বর্তী ডিভিডেন্ড দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এতে রাজকোষ ঘাটতির সংশোধিত লক্ষ্য (৩.৪%) ছুঁতে কিছুটা সুবিধা হবে বলে মনে করছেন অনেকে। চলতি অর্থবর্ষে এখনও পর্যন্ত সরকারের মোট প্রাপ্তি ৬৮,০০০ কোটি। ২০১৭-১৮ সালে যা ছিল ৫০,০০০ কোটি এবং ২০১৬-১৭ সালে ৩০,৬৫৯ কোটি।

সংস্থাগুলির তৃতীয় ত্রৈমাসিক ফল প্রকাশের পালা শেষ। সেনসেক্স ৩৫ হাজারের উপরে থাকলেও, ভিতরে দুর্বল। অপেক্ষা শুরু হয়েছে বর্ষার পূর্বাভাসের জন্য। ভারতীয় অর্থনীতির অনেকটাই নির্ভর করে বৃষ্টি কেমন হয়, তার উপর। সেই সঙ্গে বিশ্বের নজর থাকবে চিন-মার্কিন বাণিজ্যিক সম্পর্ক কোন দিকে গড়ায়। বিএসইতে নথিবদ্ধ প্রথম ৫০০টির মধ্যে ৪০০টি শেয়ারই ২০০ দিনের গড় দামের নীচে। ভাল খবর পেলেই এরা সুযোগ খুঁজবে উপরে ওঠার।

(মতামত ব্যক্তিগত)

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement