অর্থনীতিকে ঘুরিয়ে দাঁড় করাতে কেন্দ্র সব রকম চেষ্টা করছে বলে মঙ্গলবার দাবি করেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। তাঁর এই মন্তব্যের পরেই বুধবার চাঙ্গা হয়ে উঠল শেয়ার বাজার। একই সঙ্গে অক্টোবরের বৈঠকের আগে শুল্ক-যুদ্ধের উত্তাপ কমিয়ে এ দিন কিছু মার্কিন পণ্যে শুল্ক তোলার কথা জানিয়েছে চিন। এই ঘটনাও শেয়ার সূচকের উত্থানে ইন্ধন জুগিয়েছে। সেনসেক্স বেড়েছে ১২৫.৩৭ পয়েন্ট। দাঁড়িয়েছে ৩৭,২৭০.৮২ অঙ্কে। এই নিয়ে সেনসেক্স বাড়ল টানা তিন দিন। ৩২.৬৫ পয়েন্ট বেড়েছে নিফ্‌টিও।

মহরমের জন্য মঙ্গলবার বাজার বন্ধ ছিল। ওই দিনই চেন্নাইয়ে নির্মলা বলেন, পরিকাঠামো উন্নয়নে লগ্নি বাড়ানোর জন্য ব্যবস্থা নিতে টাস্ক ফোর্স তৈরি করেছে কেন্দ্র। শিল্পকে আর্থিক সাহায্য করতে কোন কোন ক্ষেত্র সমস্যা রয়েছে, তা চিহ্নিতকরণের কাজ শুরু হয়েছে। সংশ্লিষ্ট মহলের খবর, এর পরেই বুধবার বাজার খুললে চাঙ্গা হয় সূচক। 

তবে সূচক টানা বাড়লেও বাজারে অনিশ্চয়তা কমেছে বলে মনে করছেন না বিশেষজ্ঞরা। দ্বিতীয় দফায় মোদী সরকারের প্রথম ১০০ দিনে লগ্নিকারীদের ১২.৫ লক্ষ কোটি টাকার সম্পদ মুছে গিয়েছে বলে খবর। তা নিয়ে এ দিনই কেন্দ্রকে তোপ দেগেছে বিরোধী কংগ্রেস। বিশেষজ্ঞদের মতে, বাজারে স্থিতিশীলতা আসার প্রথম শর্ত হল দেশের আর্থিক হাল ফেরা। সেটা যত দিন না হচ্ছে তত দিন অনিশ্চয়তা কাটার সম্ভাবনা প্রায় নেই বলেই মনে করছেন তাঁদের অনেকে।