Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

২৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

Sugam Homes: এটাই ফ্ল্যাট কেনার সঠিক সময়, জানাচ্ছেন সুহেল শরফ

শহর রয়েছে শহরের মতোই। অথচ বহু মানুষের মধ্যে কলকাতার একটু বাইরে বা মফঃস্বল এলাকায় ফ্ল্যাট-বাড়ি প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন প্রতিবেদন
০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ১৮:৫৫
মফঃস্বল এলাকায় ফ্ল্যাট-বাড়ি প্রবণতা বাড়ছে

মফঃস্বল এলাকায় ফ্ল্যাট-বাড়ি প্রবণতা বাড়ছে

সময় বদলেছে। বদলে গিয়েছে চাহিদাও। বর্তমানে খুব কম বয়সেই বাড়ি কেনার দিকে ঝুঁকছে তরুণ ব্রিগেড। কখনও জীবনযাপনের মাত্রা বদলাতে। কখনও বা স্রেফ বিনিয়োগের মাধ্যম হিসেবে। বাড়ি না ফ্ল্যাট, কোন দিকে ঝুঁকছে আধুনিক প্রজন্ম? ফ্ল্যাটের ক্ষেত্রে কী ধরনের চাহিদা তৈরি হচ্ছে বাজারে? দৈনিক যাপনে কোন কোন সুযোগ সুবিধা খুঁজছে সাধারণ মানুষ? এই সব প্রশ্নেরই খোলামেলা উত্তর দিলেন সুগম হোমসের ডিরেক্টর সুহেল শরফ।

সত্যিই, সময় ও বদলে যাওয়া জীবনযাপনের সঙ্গে সঙ্গে অনেকটাই বদল এসেছে বাড়ি বা ফ্ল্যাট কেনার ধরনেও। জমি কিনে বাড়ি করা বা পুরনো বাড়ি কেনার বদলে ফ্ল্যাটের দিকেই ঝুঁকছে নতুন প্রজন্ম। প্রথমত, দাম কম। এবং দ্বিতীয়ত হাতের কাছেই এক ছাদের তলায় পেয়ে যাওয়া অসংখ্য সুযোগ সুবিধা।

আলোচনায় সুহেল শরফ

সুগম হোমসের ডিরেক্টর সুহেল শরফ জানাচ্ছেন, কোভিড পরবর্তী সময়ে এই ফ্ল্যাট কেনার প্রবণতা মানুষের মধ্যে হঠাৎ করেই বেড়ে গিয়েছে। এঁরা প্রত্যেকেই চাইছেন জীবনযাপনের মাত্রাকে আরও উন্নত করতে। যে কারণে ফ্ল্যাটের চাহিদাও বেড়ে গিয়েছে। তার উপরে এই সময়ে হোম লোনের সুদ সবথেকে কম। যা ফ্ল্যাট কেনার আরও একটি বড় কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সুহেল মনে করেন, শুধুমাত্র জীবনযাপন উন্নত করার লক্ষ্যেই নয়, বিনিয়োগের দিক থেকেও রিয়েল এস্টেট বরাবরই দারুন বিকল্প। কারণ এই সেক্টরটি এমন একটি সেক্টর, যেখানে ক্ষতির সম্ভাবনা প্রায় নেই বললেই চলে। কোনও ফ্ল্যাট বা বাড়ি কিনলে, সেটির দাম কখনও কমে না, বরং সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে তা বাড়ে।

কী ধরনের ফ্ল্যাট পছন্দ করছে নতুন প্রজন্ম? উত্তরে সুহেল জানালেন, বর্তমান সময়ে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মানুষ বেছে নিচ্ছেন গেটেড কমিউনিটি অর্থাৎ সোস্যাইটি। যেখানে বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা থাকবে। যেমন সুইমিং পুল, ক্লাব হাউজ, বাগান, খেলার মাঠ, ক্লাব হাউজ, লাইব্রেরি ইত্য়াদি। যাতে বসবাস করার পাশাপাশি তাঁদের সামগ্রিক জীবনধারাও উন্নত হতে পারে। সেই সঙ্গে সর্বক্ষণের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এই সময়ে দাঁড়িয়ে এটি অত্যন্ত জরুরি।

পাশাপাশি বর্তমান চাহিদার কথা মাথায় রেখেই নতুন ফ্ল্যাটগুলি তৈরি হচ্ছে। যেমন বাড়ি থেকে কাজ করার সুবিধার জন্য আলাদা জায়গা, বিদ্যুতচালিত গাড়ির চার্জ করার জায়গা ইত্যাদি। ভবিষ্যতের কথা ভেবেই বড় কমপ্লেক্সের মধ্যে থাকা ফ্ল্যাটগুলিতে উন্নত করে তুলছে প্রস্তুতকারক সংস্থারা।

শহর রয়েছে শহরের মতোই। অথচ বহু মানুষের মধ্যে কলকাতার একটু বাইরে বা মফঃস্বল এলাকায় ফ্ল্যাট-বাড়ি প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তার কারণ কী? প্রশ্নের উত্তরে সুহেল জানালেন, সত্যিই কলকাতার অনতিদূরেই এই ধরনের প্রচুর ফ্ল্যাট তৈরি হচ্ছে। এবং মানুষ সেখানে কিনছেনও। তার পিছনে বেশ কয়েকটি কারণ রয়েছে। প্রথমত দাম কম কিন্তু সেই সমস্ত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে, যা বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে বিলাসবহুল জীবনযাপনের জন্য প্রয়োজন। দ্বিতীয়ত, শহরের দূষণ ছেড়ে দিনের শেষে একটু নিরিবিলিতে সময় কাটানোর জন্য এই জায়গাগুলি আদর্শ। সেই কারণেই, কলকাতা ছেড়ে গড়িয়া, সোনারপুর, রাজারহাট, হুগলি, হাওড়া ইত্যাদি এলাকায় বিভিন্ন বড় বড় কমপ্লেক্স মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে।

এই চাহিদাগুলির কথা মাথায় রেখেই কোন্নগর এলাকায় সুগম তাদের নতুন প্রকল্পের কাজে হাত লাগিয়েছে। ১৫ একর জুড়ে তৈরি হচ্ছে সুগমের এই প্রকল্প — আরবান লেকস। যেটির নকশা তৈরি করেছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা স্থাপত্য শিল্পী রিকার্ডো বফিল। বাগান, ক্লাব হাউজ, লেক, সুইমিং পুল, খেলার মাঠ সব কিছু রয়েছে এখানে। দামও রয়েছে সাধ্যের মধ্যে।

এই সমস্ত কারণেই সুহেল মনে করেন, এটাই হল ফ্ল্যাট কেনার সঠিক সময়। আর আপনি?

আরও পড়ুন