বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম গাড়ি বাজার ভারত। এক দশক আগের বিশ্ব জোড়া আর্থিক মন্দার প্রভাব কাটিয়ে গাড়ি শিল্পে ভারতের রমরমা দেখে এই উপমাদেশকে পাখির চোখ করেছিল বিশ্বের তাবড় গাড়ি সংস্থাগুলি। কিন্তু সম্প্রতি সেই ছবি কিছুটা ফিকে হওয়ায় তারা কী আর সেই আস্থা রাখতে পারছে? সুজুকি মোটরের প্রেসিডেন্ট তোশিহিরো সুজুকির ইঙ্গিত, ভারতের ব্যবসা বৃদ্ধির হার নিয়ে তাঁরা ততটা নিশ্চিত নন।

এর আগে জেনারেল মোটরস ভারতের জন্য গাড়ি তৈরি বন্ধ করেছে। তারা শুধু রফতানির জন্য গাড়ি তৈরি করছে। ফোর্ড, ফোক্সভাগেন ও ফিয়াটের মতো সংস্থা ইতিমধ্যেই তাদের পরিকল্পনার পুনর্মূল্যায়ন করছে। হোন্ডাও দু’টি কারখানার মধ্যে একটিকে গবেষণার কেন্দ্রে রুপান্তরের কথা ভাবছে বলে খবর। এই অবস্থায় সুজুকি বলেছেন, ‘‘ভারতে বৃদ্ধির হার নিরবচ্ছিন্ন বলে আর মনে হয় না।’’ গত ত্রৈমাসিকে সংস্থাটির লোকসান হওয়ায় দেশের বাজার নিয়ে তারা সতর্ক হচ্ছে বলে খবর।

বস্তুত, বাজারে নগদের টানাটানি, চড়া কর, চাহিদায় ভাটা ইত্যাদির জের পড়েছে গাড়ি শিল্পে। গাড়ির বাজার বিশেষজ্ঞ পুনিত গুপ্ত বলেন, ‘‘ভারতে ভবিষ্যৎ লগ্নি নিয়ে সংস্থাগুলি ভীষণ সতর্ক। বেশিরভাগই নতুন গাড়ি বাজারে আনার পরিকল্পনা হয় পিছিয়ে দিচ্ছে, নয়তো বাতিলই করে দিচ্ছে।’’