• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দালাল রুখতে কার্ডে পথ চেনাবে হাসপাতাল

Hospital
ফাইল চিত্র।

‘দালাল-রাজ’ রুখতে দিকনির্দেশ দেওয়া কার্ড চালু করার পরিকল্পনা নিয়েছে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল। অতীতে বারবার রোগীর পরিজনেদের ভুল বুঝিয়ে হাসপাতালের বাইরে নিয়ে গিয়ে এক্স-রে, সিটি স্ক্যান করানোর অভিযোগ উঠেছে। টাকা, গয়না প্রতারণার অভিযোগও উঠেছে একাধিক বার। এই কার্ডের সাহায্যে বাইরে থেকে আসা রোগী বা তার পরিজনেদের অপরিচিত কারও সাহায্য নেওয়ার প্রয়োজন কমবে। ফলে, ‘দালাল-রাজ’ আটকানো যাবে, দাবি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, সাধারণত কোনও রোগীকে রাধারানি ওয়ার্ডে বা সিটি স্ক্যানের জায়গায় যেতে বলা হলে না চেনার কারণে তিনি হাসপাতালে থাকা অন্য কারও সাহায্য নেন। অনেক ক্ষেত্রে এই সুযোগই নেন দালালেরা। সাহায্যের নাম করে ভুল বুঝিয়ে বা হাসপাতালের ওই পরীক্ষার ব্যবস্থা নেই দাবি করে রোগী বা রোগীর আত্মীয়দের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে অন্য নার্সিংহোম বা প্যাথলজিক্যাল ল্যাবরেটরিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। হাসপাতালের কর্মীদের একাংশও এই চক্রে জড়িত বলে অভিযোগ ওঠে। আবার রোগীর পরিজনেরা নিজেরা নির্দিষ্ট ওয়ার্ড  খুঁজে নিতে গিয়েও হয়রান হন অনেক সময়। তবে এই কার্ডে স্পষ্ট করে লেখা থাকবে রোগীর প্রয়োনীয় বিভাগ কোন দিকে।

মঙ্গলবার বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে সুপারের ঘরে একটি বৈঠক হয়। সেখানেই এই কার্ড তৈরির সিদ্ধান্ত হয়। আধিকারিকেরা জানান, কোন দিকে রাধারানি ওয়ার্ড, কোন দিকে নিউ বিল্ডিং, কোথায় হবে সিটিস্ক্যান বা ডিজিটাল এক্স রে, ব্লাড ব্যাঙ্কই বা কোন দিকে, সব লেখা থাকবে এই কার্ডে। যে রোগীকে যেখানে পাঠানো হবে সেখানকার কার্ড দিয়ে দেওয়া হবে তাঁর পরিজনের হাতে। গোটা কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কয়েকজনকে। হাসপাতাল কর্তাদের অনুমান, এই ব্যবস্থা চালু হলে এক দিকে যেমন ‘দালালচক্র’ ভাঙা যাবে, তেমনই কিছুটা হলেও হয়রানি কমবে রোগীর পরিজনদের।

বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের সুপার প্রবীর সেনগুপ্ত জানিয়েছেন, এই ব্যবস্থা চালু করার পাশাপাশি, আরও একটি বিষয়ে বিশেষ নজরদারি চালানো হবে। জরুরি বিভাগ থেকে রোগীদের ট্রলি ছাড়া, অন্য জায়গায় স্থানান্তরিত করা যাবে না।  এ নিয়ে নির্দেশিকারও জারি করা হবে, দাবি তাঁর।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন