Advertisement
Back to
Kunal Ghosh & Sudip Banerjee

কুণাল ঘোষকে দল থেকে সাসপেন্ড করতে বলুন নেত্রী মমতাকে, সুদীপকে পাঠানো হোয়াট্‌সঅ্যাপ চ্যাট ফাঁস!

বুধবার দুপুরে কুণালকে দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে সরিয়ে দেয় তৃণমূল। তার পরেই সমাজমাধ্যমে স্ক্রিনশটগুলি ছড়িয়ে পড়ে। ওই বার্তাগুলি পাঠান সারা বাংলা আতশবাজি সমিতির নেতা বাবলা রায়।

Kunal Ghosh Removed from TMCs post of General secretary, WhatsApp chat sent to Sudip Banerjee leaked on social media

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

আনন্দবাজার অনলাইন সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০১ মে ২০২৪ ২২:০০
Share: Save:

কুণাল ঘোষকে দল থেকে সাসপেন্ড করতে বলুন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। বুধবার তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাঠানো এমন অনুরোধের হোয়াট্‌সঅ্যাপ বার্তা ছড়িয়ে পড়েছে সমাজমাধ্যমে। সেই অনুরোধের জবাবে সুদীপ কী জবাব দিয়েছেন, তা-ও প্রকাশ্যে এসেছে। ঘটনাচক্রে, বুধবার দুপুরেই কুণালকে দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে সরিয়ে দিয়েছে তৃণমূল। তার কিছু পরেই সমাজমাধ্যমে একাধিক হোয়াট্‌সঅ্যাপ বার্তা ছড়িয়ে পড়ে। সমাজমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ওই সব বার্তায় দেখা যাচ্ছে, সুদীপকে সেগুলি পাঠিয়েছেন সারা বাংলা আতশবাজি সমিতির নেতা বাবলা রায়। বাবলা ওই বার্তায় সুদীপকে জানিয়েছেন, কুণালকে সাসপেন্ড করার অনুরোধ জানিয়ে তিনি মুখ্যমন্ত্রীকে মেলও পাঠিয়েছেন। একই সঙ্গে প্রাক্তন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদীকেও তিনি এই বিষয়ে বলেছেন। সুদীপকে পাঠানো এ সব বার্তার কথা কুণালও সমাজমাধ্যম থেকে জানতে পেরেছেন বলে সংবাদমাধ্যমের কাছে দাবি করেছেন।

সুদীপকে পাঠানো হোয়াট্‌সঅ্যাপ বার্তা যে তাঁরই, তা স্বীকার করে নিয়েছেন বাবলা। তিনি বলেন, ‘‘কুণাল দলের ক্ষতি করছেন। তাই আমি নেত্রী ও সুদীপদাকে অনুরোধ করেছি। যে ভাবে কুণাল দলের ক্ষতি করছেন, তাতে যাতে বড় বিপর্যয় না হয়, তা থেকে দলকে বাঁচাতেই এমন বার্তা পাঠিয়েছিলাম।’’ তাঁর আরও বক্তব্য, ‘‘যা করেছি বেশ করেছি। সুদীপদা আমার কথা রেখেছেন। আমি আবারও বলব, কুণালকে দল থেকে বার করে দেওয়া হোক।’’

বাবলার বার্তায় উত্তর কলকাতার বিদায়ী সাংসদ সুদীপ কী জবাব দিয়েছেন, তা-ও সমাজমাধ্যমে ঘুরছে। সুদীপ পরামর্শ দিয়েছেন বাবলাকে, কুণালকে এড়িয়ে যাওয়ার। একই সঙ্গে ১ জুন ভোট করিয়ে তাঁকে ভোটে জেতাতেও বলেছেন সুদীপ। সারা বাংলা আতসবাজি সমিতির নেতা যখন তাঁকে নেত্রীকে বিষয়টি কার্যকর করার অনুরোধ জানাতে বলছেন, সেখানে একটি হাসির ইমোজি পাঠিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘‘আচ্ছা বলছি।’’ যদিও এই হোয়াট্‌সঅ্যাপ বার্তার সত্যতা আনন্দবাজার অনলাইন যাচাই করেনি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE